Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৫-২৫-২০১৬

ভারত-ইরান চুক্তিতে সতর্ক নজর ওয়াশিংটনের

ভারত-ইরান চুক্তিতে সতর্ক নজর ওয়াশিংটনের

নয়া দিল্লী, ২৫ মে- ইরানের ছাবাহারে বন্দর নিমার্ণে তেহরানের সঙ্গে নয়াদিল্লির চুক্তিতে সতর্ক নজর রাখছে ওয়াশিংটন। ওবামা প্রশাসনের ঘোষণা, ভারত-ইরানের ছাবাহার ঘোষণাপত্রের সবকয়টি শর্ত খতিয়ে দেখা হবে।

এক দশকেরও বেশি সময় ধরে ছাবাহারে বন্দর গড়তে আগ্রহী ভারত। একাধিক কারণে ভারত এই বন্দর নিমার্ণে আগ্রহ দেখিয়েছে। প্রথমত, পাকিস্তানের গোয়াদরে চীনের বন্দর নিমার্ণের পাল্টা প্রস্তুতি এই ছাবাহার। দ্বিতীয়ত, আফগানিস্তানের পুনর্গঠনের জন্য ভারতের পণ্য ও সরঞ্জাম পাকিস্তানের মধ্যে দিয়ে পাঠানোই সুবিধাজনক। কিন্তু পাকিস্তান রাস্তা দিতে রাজি নয়। তাই ইরান হয়েই পণ্য ও সরঞ্জাম পাঠাতে হচ্ছে। আফগানিস্তানের সঙ্গে যোগাযোগ দৃঢ় রাখতে ইরানে নিজস্ব বিনিয়োগে তৈরি বন্দর থাকা ভারতের পক্ষে খুবই সুবিধাজনক। তৃতীয়ত, ছাবাহার বন্দরের মাধ্যমে ইরান এবং মধ্য এশিয়ার অন্য দেশগুলির সঙ্গে ব্যবসা ও লেনদেন অনেক বাড়াতে পারবে ভারত।

এই তৃতীয় বিষয়টি নিয়েই আপত্তি যুক্তরাষ্ট্রের। ইরানের পরমাণু কর্মসূচি প্রতিরোধে দীর্ঘ সময় সে দেশের উপর নানা নিষেধাজ্ঞা জারি করে রেখেছিল যুক্তরাষ্ট্র। সম্প্রতি ইরান তার পরমাণু কর্মসূচি স্থগিত করতে রাজি হওয়ায় একগুচ্ছ নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হয়েছে। এর পরই ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ইরান সফরে গিয়ে সে দেশের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানির সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর করে ঘোষণা করেছেন, তিন হাজার ৩০০ কোটি রূপিরও বেশি বিনিয়োগে ছাবাহারে বন্দর গড়ে তুলবে ভারত।

মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি নিশা দেসাই বিসওয়াল মার্কিন সিনেটে জানিয়েছেন, ‘‘ইরানের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক কার্যকলাপের ক্ষেত্রে যে সব বিধিনিষেধ রয়েছে, সে ব্যাপারে ভারতের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের কথাবার্তা খুব স্পষ্ট ভাবেই হয়েছে।

মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সে দেশের আইনসভাকে আশ্বস্ত করেছে যে, ইরানে বন্দর তৈরি করলেও ভারত এমন কিছু করবে না যা যুক্তরাষ্ট্রের অস্বস্তির কারণ হয়।

এরপরেও যুক্তরাষ্ট্র এসব বিষয়কে হালকা ভাবে দেখছে না, সেটা স্পষ্ট করে দেয়া হয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে। মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মতে, ইরানে ভারত ঠিক কী কী কার্যকলাপে অংশ নিচ্ছে, সে দিকে যুক্তরাষ্ট্র সতর্ক নজর রাখছে। ছাবাহার ঘোষণাপত্রের সবকয়টি দিক মার্কিন প্রশাসন খতিয়ে দেখবে। ভারতের প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে যুক্তরাষ্ট্র ওয়াকিবহাল। অর্থনৈতিক বিষয়, জ্বালানির অভাব মেটানো এবং নতুন বাণিজ্য পথ তৈরি করাই ভারতের মূল লক্ষ্য।

দক্ষিণ এশিয়া

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে