Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 2.5/5 (22 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৫-১৯-২০১৬

ডারউইনে প্রথমবারের মতো বৈশাখী মেলা

মাহমুদুল হাসান


ডারউইনে প্রথমবারের মতো বৈশাখী মেলা
মেলার নানা দৃশ্য

ক্যানবেরা, ১৯ মে- বাংলাদেশ থেকে শত সহস্র মাইল দুরে থেকেও প্রবাসী বাংলাদেশিরা প্রতিনিয়ত মনে রাখেন তাদের প্রথম ভালোবাসাকে। তাদের মাকে। যেকোনো উপলক্ষে, যেকোনো আয়োজনে বাংলাদেশি আমেজ নিয়ে এসে দূর করতে চায় মায়ের থেকে দুরে থাকার ক্ষত। অস্ট্রেলিয়ার সর্ব উত্তরের শহর ডারউইনের ছোট্ট বাংলাদেশি কমিউনিটিও দূরে নেই সেই সব আয়োজন থেকে। আর উৎসবটি যদি হয় বৈশাখ তবে তো কথাই নেই।


মেলার নানা দৃশ্য

এরই ধারাবাহিকতায় এই প্রথমবারের মতো ডারউইনে বৈশাখী মেলার আয়োজন করেছিল বাংলাদেশ স্টুডেন্ট অ্যাসোসিয়েশন-চার্লস ডারউইন ইউনিভার্সিটি। ১৮ বৈশাখ (১ মে) রোববার চার্লস ডারউইন ইউনিভার্সিটি মুক্তাঙ্গনে এই মেলার আয়োজন করা হয়। এখানে উল্লেখ্য, এই নিয়ে পরপর তিনবার বাংলাদেশ স্টুডেন্ট অ্যাসোসিয়েশন সফলতার সঙ্গে বৈশাখ উদ্‌যাপন করল। তবে ডারউইনবাসীদের জন্য বৈশাখী মেলা ছিল এবারই প্রথম। এই নিয়ে স্থানীয় বাংলাদেশিদের মাঝে উন্মাদনা ছিল চোখে পড়ার মতো। তা ছাড়াও মেলা জুড়ে ভিনদেশিদের উপস্থিতি সবার নজর কাড়ে। মেলার দরজা অতিথিদের জন্য উন্মুক্ত করা হয় বিকেল ৫টায়। মেলার নানা স্টলের দিকে ছিল সকলের বাড়তি আকর্ষণ। নানা স্টলে বাংলাদেশি হরেক রকমের খাবার নিয়ে আসে বাংলাদেশের আমেজ। বিভিন্ন স্টলে পাওয়া যায় হাওয়াই মিঠাই, চটপটি-ফুচকা, ঝালমুড়ি, লাচ্ছি, তেঁতুলের শরবত, লেবুর শরবত, শিঙারা, ছোলা-পিয়াজু, লুচির সঙ্গে সবজি ডাল, বিরিয়ানির সঙ্গে বোরহানি-জর্দা এবং হরেক রকমের মিষ্টির মেলা।


মেলার নানা দৃশ্য

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শুরু হয় সন্ধ্যা ৭টা ১৫ মিনিটে নোমায়ের ও নাজমুলের উপস্থাপনায়। শুরুতেই স্থানীয় শিল্পীদের পরিবেশনায় মঞ্চে গাওয়া হয় বৈশাখের আগমনী সংগীত এসো হে বৈশাখ। এরপর মঞ্চে জাভেদ ও তার গানের আসরের সদস্যরা গেয়ে শোনান বৈশাখী ও দেশাত্মবোধক কিছু গান। গানের পর সামি আযাম আবৃত্তি করেন রুদ্র মুহম্মদ শহীদুল্লাহর বাতাসে লাশের গন্ধ। অতপর বৈশাখী নৃত্য পরিবেশন করেন নাসিবা ও তার দল। বুশরা পরিবেশন করেন একটি অসাধারণ লোকসংগীত। অনুষ্ঠানটি শেষে এসে পরিপূর্ণতা পায় স্থানীয় শিল্পীদের (রাজীব, রাফি, সানবীর, দীপন ও জামাল) নিয়ে গড়া একটি ব্যান্ডের কনসার্টের মাধ্যমে।


মেলার নানা দৃশ্য

সফল অনুষ্ঠান শেষে অনুষ্ঠানটির আয়োজক কমিটির পক্ষ থেকে সবাইকে ধন্যবাদ জানানো হয়। অনুষ্ঠানটি স্পনসর করবার জন্য তারা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন নর্দার্ন টেরিটরি সরকারের প্রতি। এ ছাড়া তারা ধন্যবাদ জানান মাল্টিকালচারাল নর্দার্ন টেরিটরি, চার্লস ডারউইন ইউনিভার্সিটিকে, অনুষ্ঠান আয়োজনে সহযোগিতা করার জন্য। তারা একই সঙ্গে উপস্থিত দর্শকদেরও ধন্যবাদ জানান। যাদের উপস্থিতি মেলাকে করে তোলে সফল এবং আয়োজকদের কষ্টকে সার্থক করে।

বাংলাদেশ স্টুডেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের যাত্রা শুরু হয় প্রায় চার বছর আগে মাত্র ৩০ জন ছাত্র নিয়ে। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই সভাপতি নাজমুল, সম্পাদক ইনাম, সহসভাপতি মিজান, জনসংযোগ এ হাসান, অনুষ্ঠান আয়োজনে ইমরান ও রনি আর অ্যাকাউন্টসে শফিকের নেতৃত্বে ধাপে ধাপে আজকের অবস্থানে আসে এই অ্যাসোসিয়েশন।

এফ/২২:৩৩/১৯মে

অষ্ট্রেলিয়া

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে