Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৫-১৯-২০১৬

ব্যাংককের মাদাম তুসো জাদুঘরে বসবে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য

রমেন দাশগুপ্ত


ব্যাংককের মাদাম তুসো জাদুঘরে বসবে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য

ব্যাংকক, ১৯ মে- থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককের মাদাম তুসো জাদুঘর। ব্যাংককে বেড়াতে আসা দেশ-বিদেশের পর্যটকদের কাছে এই জাদুঘরের আবেদন অন্যরকম। বিশ্ববরেণ্য রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, বিভিন্ন দেশের জাতির পিতা, রাষ্ট্রপ্রধান, বিজ্ঞানী থেকে শুরু করে মিডিয়া ও খেলার জগতের জীবিত ও প্রয়াত তারকা ব্যক্তিত্বদের ভাস্কর্য আছে এই জাদুঘরে। নির্মাণশৈলীর কারণে দেখতে প্রায় জীবন্ত এসব বরেণ্য ব্যক্তিত্বদের ভাস্কর্য দেখতে দেশ-বিদেশের পর্যটকরা মাদাম তুসোর জাদুঘরে ছুটে যান।

বিশ্ববরেণ্য অনেক ব্যক্তিত্বের ঠাঁই মাদাম তুসো জাদুঘরে হলেও উপেক্ষিত থেকে গেছে বাংলা, বাঙালি ও বাংলাদেশ। নোবেলজয়ী বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, বাংলাদেশের স্বাধীনতার মহান স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান কিংবা পশ্চিমবঙ্গের নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ অর্মত্য সেনের মতো ব্যক্তিত্বদের ঠাঁই হয়নি সেই জাদুঘরে। এর ফলে বাঙালিদের ব্যাংককের মাদাম তুসো জাদুঘরে গিয়ে হতাশ হতে হয়।


তবে বাঙালিদের উপেক্ষার অবসান ঘটাতে এগিয়ে এসেছেন থাইল্যান্ডে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত সাঈদা মুনা তাসনিম। তিনি জানিয়েছেন, মাদাম তুসো জাদুঘরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের একটি ভাস্কর্য স্থাপনের বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে প্রস্তাব দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দূতাবাস। সেক্ষেত্রে ভাস্কর্য স্থাপনের প্রয়োজনীয় খরচও বহন করবে দূতাবাস।


মাদাম তুসো জাদুঘরে গিয়ে দেখা গেছে বিশ্ববরেণ্য সব ব্যক্তিত্বের সমাহার।

ভারতের স্বাধীনতার জন্য অবিস্মরণীয় ভূমিকার কথা উল্লেখ করে জাতির পিতা মহাত্মা গান্ধীর ভাস্কর্য জাদুঘরে স্থান পেয়েছে। ইন্দোনেশিয়ার স্বাধীনতাকামী সাবেক রাষ্ট্রপতি সুকর্ণের ভাস্কর্যও আছে এখানে।

আমেরিকার রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামা ও স্ত্রী মিশেল ওবামা, ভারতের রাষ্ট্রপতি নরেন্দ্র মোদি, মিয়ানমারের গণতন্ত্রপন্থী নেত্রী নোবেলজয়ী অং সান সু চি, রাশিয়ার ভ্লাদিমির পুতিনও ঠাঁই পেয়েছেন জাদুঘরে।


বিশ্বখ্যাত বিজ্ঞানী আলবার্ট আইনস্টাইন, চিত্রশিল্পী পাবলো পিকাসোসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে স্বমহিমায় উজ্জ্বল বিশ্ববরেণ্যদের ভাস্কর্য আছে। ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জুকারবার্গকেও রাখা হয়েছে। এমনকি প্রিন্সেস ডায়ানা, মাইকেল জ্যাকসন, তারকা ফুটবলার ব্রাজিলের রোনালদোসহ অনেকেই আছেন।

সোমবার (১৬ মে) দুপুরে মাদাম তুসো জাদুঘরে গিয়ে দেখা হয় প্রাণ আর এফ এল গ্রুপের হেড অব মার্কেটিং তোষন পাল এবং ব্র্যান্ড ম্যানেজার সাদ সরওয়ারের সঙ্গে।


তোষন পাল বলেন, ভারতের লোকেরা তাদের জাতির পিতার সামনে আবেগে মাথা নিচু করছেন। আমেরিকার লোকেরা বারাক ওবামাকে, মিয়ানমারের লোকেরা অং সান সু চিকে দেখে উচ্ছ্বসিত হচ্ছেন। কিন্তু বাঙালিরা কাকে দেখে তাদের মাথা নোয়াবে ? আমাদের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য এখানে নেই কেন? নরেন্দ্র মোদির ছবি থাকতে পারলে বঙ্গবন্ধুর ছবি থাকবে না কেন ?

সাদ সরওয়ার বলেন, বাঙালিদের মধ্যে কি বরেণ্য ব্যক্তির এতই অভাব যে মাদাম তুসো জাদুঘরে কারও ঠাঁই হয়নি ? এটা আসলে উদ্যোগের অভাব। চিন্তার সীমাবদ্ধতা।

ব্যাংককের সুখমভিতের আকামাই রোডে বাংলাদেশ দূতাবাসে গিয়ে রাষ্ট্রদূত সাঈদা মুনা তাসনিমের কাছে প্রসঙ্গটি তুলতেই তিনি যেন মুখের কথা কেড়ে নেন!

সাঈদা মুনা তাসনিম বলেন, ব্যাংককের মাদাম তুসো জাদুঘর বাঙালিদের হতাশ করে এটা ঠিক। এটা আমরা অনুধাবন করে সেখানে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য বসানোর উদ্যোগ নিয়েছি। আমরা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে প্রস্তাব চূড়ান্ত করে পাঠাবো। কথাবার্তার মাধ্যমে দ্রুতই বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য বসানো হবে। এটা কঠিন কোন বিষয় নয়।

‘যিনি হাজার বছরের পরাধীন জাতিকে স্বাধীনতা এনে দিয়েছেন, লাল-সবুজের পতাকা দিয়েছেন, সেই বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য অবশ্যই মাদাম তুসো জাদুঘরে স্থাপন করা হবে। দেশ-বিদেশের মানুষ সেই ভাস্কর্যের সামনে এসে জানতে পারবে আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধ, বাঙালির আত্মত্যাগ এবং বঙ্গবন্ধুর অসাম্প্রদায়িক জাতীয়তবাদী আদর্শের কথা।’ বলেন সাঈদা মুনা তাসনিম।

এফ/১৪:০৫/১৯মে

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে