Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৫-১৮-২০১৬

সেলিম ওসমানের সংসদ সদস্য পদ বাতিল চায় বাকবিশিস

সেলিম ওসমানের সংসদ সদস্য পদ বাতিল চায় বাকবিশিস

ঢাকা, ১৮ মে- নারায়ণগঞ্জে পিয়ার সাত্তার লতিফ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তকে অপদস্ত করার দায়ে সংসদ থেকে সেলিম ওসমানের সদস্য পদ বাতিলের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি (বাকবিশিস)।

বুধবার (১৮ মে) দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) টিএসসি রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে সামনে এ ঘটনায় জড়িতদের শাস্তির দাবিতে আয়োজিত মানববন্ধন থেকে এ দাবি জানানো হয়। এ সময় তারা সেলিম ওসমানকে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানেরও দাবি জানানো হয়।

মানববন্ধনে বাকবিশিস সভাপতি নূর মোহাম্মদ তালুকদার বলেন, ‘এদেশে অনেক সেলিম ওসমান আছে, এদেরকে খুঁজে বের করে উপযুক্ত শিক্ষা দিতে হবে। শিক্ষকরা হচ্ছে ভীমরুলের চাকের মতো। আর আজ আপনারা এই ভীমরুলের চাকে হাত দিয়েছেন। এক শিক্ষকের অপমানের সময় সারা দেশের শিক্ষক সমাজ চুপ করে বসে থাকবে না।’

মানববন্ধনে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- ডাকসুর সাবেক ভিপি ও বিশ্ব শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের সভাপতি অধ্যাপক মাহফুজা খানম, বাকবিশাস’র সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর, অধ্যক্ষ রফিক উদ্দিন, অধ্যক্ষ ভাস্কর রঞ্জন দাস, অধ্যাপক মিজানুর রহমান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক মফিজুর রহমানসহ বিভিন্ন কলেজ-বিশ্ববিদালয়ের শতাধিক শিক্ষক।

উল্লেখ্য, গত ১৩ মে ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটূক্তি এবং শিক্ষার্থীকে মারধর করার অভিযোগ এনে নারায়ণগঞ্জের কলাগাছিয়া ইউনিয়নের কল্যান্দির পিয়ার সাত্তার লতিফ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তকে গণপিটুনি দেয়ার পর জাতীয় পার্টির সাংসদ সেলিম ওসমানের উপস্থিতিতে কান ধরে উঠবস করানো হয়।

এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ সারা দেশে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রতিবাদের মুখে মঙ্গলবার (১৭ মে) তদন্ত কমিটি করে শিক্ষা অধিদপ্তর। এর পর সন্ধ্যায় ওই কমিটি পিয়ার সাত্তার উচ্চ বিদ্যালয় পরিদর্শনও করেছে। 

এদিকে লাঞ্ছনার শিকার শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তকে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় স্কুল ম্যানেজিং কমিটি ৪ অভিযোগে প্রধান শিক্ষকের পদ থেকে সাময়িক বরখাস্তের নোটিশ দিয়েছে।

শ্যামল কান্তি ভক্তকে কান ধরে উঠবস করানোর প্রতিবাদে সরব হয়ে উঠেছে সামাজিক যোগাযোগের জনপ্রিয় মাধ্যম ফেসবুক। ‘সরি স্যার’, ‘উই আর সরি স্যার’, ‘কান ধরে হোক প্রতিবাদ’ লেখা হ্যাশট্যাগ দিয়ে এ ঘটনায় নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অনেক ফেসবুক ব্যবহারকারী। প্রতিবাদ জানাতে কানে ধরা অবস্থায় তোলা নিজেদের ছবিও পোস্ট করেছেন অনেকে।

এদিকে এ ঘটনায় সাংসদ সেলিম ওসমানসহ জড়িতদের বিরুদ্ধে কেন আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। বুধবার (১৮ মে) বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি ইকবাল কবিরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ স্ব-প্রণোদিত হয়ে এ আদেশ দেন।
 
স্বরাষ্ট্র সচিব, আইজিপি, নারায়ণগঞ্জের ডিসি, এসপি, ইউএনও, সংশ্লিষ্ট থানার ওসিকে আগামী ২ সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

আর/১০:৩৪/১৮ মে

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে