Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৫-১৫-২০১৬

ইমিউন সিস্টেমের ক্ষতি করছে আপনার যে কাজগুলো

সাবেরা খাতুন


ইমিউন সিস্টেমের ক্ষতি করছে আপনার যে কাজগুলো

আপনি কি প্রায়ই ঠান্ডায় বা রোগজীবাণুর সংক্রমণে আক্রান্ত হন? যদি আপনার উত্তর হ্যাঁ হয় তাহলে বলা যায় আপনার ইমিউন সিস্টেম খুবই দুর্বল। আপনার শরীরের অভ্যন্তরের জৈব গঠন ও প্রক্রিয়ার সাথে সম্পর্কিত এই ইমিউন সিস্টেম। যখন ইমিউন সিস্টেম ঠিকভাবে কাজ করে তখন তা বিভিন্ন রোগ ও সংক্রমণ সৃষ্টিকারী ক্ষতিকর জীবাণুর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে সাহায্য করে। এটি আসলে আপনার শরীরের প্রধান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা। এজন্যই ইমিউন সিস্টেমকে স্বাস্থ্যবান ও শক্তিশালী রাখাটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। দুর্বল ইমিউন সিস্টেম আপনাকে অনেক বেশি রোগ প্রবণ করে তোলে। প্রত্যেকেই ভিন্ন মাত্রার ইমিউনিটি বা অনাক্রম্যতা নিয়ে জন্মগ্রহণ করে। এমন অনেক বিষয় আছে যা আপনার ইমিউন সিস্টেমের ক্ষতি করতে পারে এবং একে দুর্বল করে দিতে পারে। এমন কিছু অভ্যাসের কথাই আজ আমরা জানবো।

১। সূর্যরশ্মি এড়িয়ে চলা
সূর্যরশ্মির ক্ষতিকর আল্ট্রাভায়োলেট রে এর প্রভাব ত্বকের ও সার্বিক স্বাস্থ্যের ক্ষতি করে। এই কারণে অনেক মানুষ সূর্যরশ্মি পুরোপুরি এড়িয়ে চলে। কিন্তু এই কাজটিও আপনার ইমিউনিটির ক্ষতি করে। সূর্যরশ্মি ইমিউন সিস্টেমের গঠনে সাহায্য করে। সূর্যের সংস্পর্শে আসলে শরীরে ভিটামিন ডি উৎপন্ন হয়। ইমিউন প্রতিরক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় টি সেলকে সঠিকভাবে কাজ করতে সাহায্য করার জন্য ভিটামিন ডি অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। এছাড়াও ক্যালসিয়াম ও হাড়ের বিপাকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে ভিটামিন ডি। ২০১১ সালে জার্নাল অফ ইনভেস্টিগেটিভ মেডিসিন এ প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানা যায় যে, ভিটামিন ডি সহজাত ও অভিযোজিত ইমিউন প্রতিক্রিয়ার মধ্যে সামঞ্জস্য বিধান করে। শরীরে পর্যাপ্ত ভিটামিন ডি উৎপাদনের জন্য প্রতিদিন ১০-১৫ মিনিট সকালের সূর্যালোক উপভোগ করুন।

২। নেতিবাচক আবেগ
নেতিবাচক আবেগ যেমন- স্ট্রেস, বিষণ্ণতা, ভয়, রাগ এবং দুশ্চিন্তা আপনার ইমিউন সিস্টেমের ক্ষতি করে। যখন আপনি স্ট্রেসের মধ্যে থাকেন তখন আপনার শরীরে কর্টিসলের লেভেল বৃদ্ধি পায়। কর্টিসল ইমিউন সিস্টেমের প্রতিক্রিয়ায় বাঁধা দেয় ফলে পরিপাক তন্ত্র, প্রজনন তন্ত্র এবং বৃদ্ধি প্রক্রিয়া ব্যহত হয়। তাছাড়া উচ্চমাত্রার  কর্টিসল লেভেল ইমিউন সিস্টেমে সাহায্যকারী ভালো প্রোস্টাগ্ল্যান্ডিনের উৎপাদন কমিয়ে দেয়। নেতিবাচক আবেগ কমানোর জন্য ইয়োগা, মেডিটেশন ও ম্যাসাজ করুন,  অ্যারোমাথেরাপি নিন এবং হাসুন।  

৩। ব্যক্তিগত স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করা
ব্যক্তিগত স্বাস্থ্যবিধি মেনে না চললে ইমিউন সিস্টেম পরোক্ষভাবে প্রভাবিত হয়। অস্বাস্থ্যকর জীবন যাপন করলে সংক্রমণ ও রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বৃদ্ধি পায়। মনে রাখবেন চারপাশে ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়া ছড়িয়ে আছে এবং তারা আপনাকে আক্রমণের সুযোগ মিস করবেনা। তাই প্রতিদিন দুইবেলা দাঁত ব্রাশ করুন, খাওয়ার আগে হাত ভালো করে ধুয়ে নিন, নখ পরিষ্কার রাখুন, প্রতিদিন গোসল করুন, ঘরে রান্না করা খাবার খান।  এই নিয়মগুলো মেনে চললে ইনফেকশন আপনার কাছ থেকে দূরে থাকবে।

৪। মেকআপ ও হাইজিন প্রোডাক্ট ব্যবহার করা
বেশিরভাগ মানুষ প্রতিদিনই মেকআপ ও হাইজিন প্রোডাক্ট ব্যবহার করে থাকেন যেমন- বডি ওয়াশ, লোশন, শ্যাম্পু, কসমেটিক্স এবং টুথপেস্ট ব্যবহার করেন। এগুলোতে বিষাক্ত ও ক্ষতিকর রাসায়নিক থাকে। যা আপনার ইমিউনিটিকে দুর্বল করে দেয়। তাই ক্ষতিকর রাসায়নিক উপাদান যুক্ত মেকআপ ও হাইজিন প্রোডাক্ট এর ব্যবহার কমিয়ে প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহার করুন। যদি ব্যবহার করতেই হয় তাহলে কম রাসায়নিক উপাদান সমৃদ্ধ পণ্য ব্যবহার করুন ও কেনার সময় লেবেল দেখে নিন।  

এছাড়াও যে কোন ধরণের ধোঁয়াই ইমিউন সিস্টেমের জন্য ক্ষতিকর। তাই প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ধোঁয়া এড়িয়ে চলুন, রিফাইন্ড সুগার ও প্রোসেসড ফুড খাওয়া, অ্যালকোহল সেবন করা, পর্যাপ্ত ঘুমের অভাব, স্থূলতা, ব্যায়াম না করা, অত্যধিক এন্টিবায়োটিক সেবন করা, ঠান্ডা ও জ্বরের ঔষধ বেশি বেশি গ্রহণ করলে এবং পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি পান না করলে ইমিউন সিস্টেম দুর্বল হয়ে পড়ে।        

লিখেছেন- সাবেরা খাতুন

এফ/০৮:৩৩/১৫মে

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে