Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৫-১২-২০১৬

‘গভীর সমুদ্র বন্দর নির্মাণের দায়িত্ব একক কোম্পানিকে নয়’

‘গভীর সমুদ্র বন্দর নির্মাণের দায়িত্ব একক কোম্পানিকে নয়’

ঢাকা, ১২ মে- বাংলাদেশের জন্য গভীর সমুদ্র বন্দর নির্মাণের দায়িত্ব কোনো একক কোম্পানিকে দেওয়া হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার সন্ধ্যায় গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গেলে ঢাকা সফররত ভারতের পররাষ্ট্রসচিব ড. এস জয়শংকরকে একথা বলেন তিনি। 

বৈঠকের পর প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের এসব বিষয়ে অবহিত করেন। 

ইহসানুল করিম জানান, ভারতীয় পররাষ্ট্রসচিব এলএনজি-এলপিজি সরবরাহ বিষয়ক সহযোগিতা, পালাটানা বিদ্যুৎ প্রকল্পে সহযোগিতাসহ অন্য দিকগুলো তুলে ধরে বাংলাদেশের প্রশংসা করেন। বাংলাদেশের জন্য গভীর সমুদ্র বন্দর নির্মাণে ভারতীয় কয়েকটি কোম্পানির আগ্রহ রয়েছে বলে তিনি জানান। সে সময় প্রধানমন্ত্রী আরও কয়েকটি আন্তর্জাতিক কোম্পানি তাদের আগ্রহ দেখিয়েছে উল্লেখ করে বলেন, কোনো একক কোম্পানিকে নয় কনসোর্টিয়াম গঠন করে এই কাজ দেওয়ার কথা ভাবছে তার সরকার।

বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের বর্তমান সহযোগিতার সম্পর্ক তাদের দেশের জনগণের মাঝেও প্রশংসিত বলে উল্লেখ করেন এস জয়শংকর। সে সময় তিনি সার্ক স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণে বাংলাদেশের সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ জানান।

প্রধানমন্ত্রীও এ সময় স্থল সীমান্ত চুক্তি স্বাক্ষর ও বাস্তবায়নে ভারত সরকার ও জনগণকে ধন্যবাদ জানান। নরেন্দ্র মোদীর বাংলাদেশ সফরকে ঐতিহাসিক বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ওই সফর দুই পক্ষের সম্পর্ককে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছে। আমরা ভারতের সঙ্গে এই সম্পর্ককে এনজয় করছি।  

বৈঠকে জয়শঙ্কর প্রধানমন্ত্রীকে অবহিত করেন, ২০১৫ সালের মাঝামাঝিতে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ঢাকা সফরের সময় প্রতিশ্রুত ১১টি উন্নয়ন সহযোগী উদ্যোগের ৮টি এরই মধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। বাকি চারটিতেও হয়েছে গুরুত্বপূর্ণ অগ্রগতি। এক বছরেরও কম সময়ে এই অগ্রগতিকে একটি বড় অর্জন বলে মনে করেন ভারতীয় পররাষ্ট্রসচিব।

উত্তরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই অগ্রগতিতে সন্তুষ্টির কথা জানান এবং নরেন্দ্র মোদীর ঐতিহাসিক সফরের মধ্য দিয়ে দুই দেশের সম্পর্ক অনন্য উচ্চতায় পৌঁছেছে বলেও মত দেন।

বৈঠকে ভারতীয় পররাষ্ট্রসচিবের সঙ্গে ছিলেন ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাই কমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলা ও সুপ্রিয়া রঙ্গনাথন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দিল্লিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাই কমিশনার সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলী, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব আবুল কালাম আজাদ ও পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক উপস্থিত ছিলেন।

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে