Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৫-১১-২০১৬

নিজামীর ফাঁসি কার্যকর

নিজামীর ফাঁসি কার্যকর

ঢাকা, ১১ মে- মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতের আমীর মওলানা মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসির রায় কার্যকর করা হয়েছে। কারা কর্তৃপক্ষ জেলা প্রশাসক, সিভিল সার্জন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের উপস্থিতিতে নিজামীর ফাঁসি কার্যকর করা হয়।

আজ মঙ্গলবার রাত ১২.০১ মিনিটে নিজামীর ফাঁসি কার্যকর করা হয়েছে।

কারা সূত্রে জানা গেছে, ফাঁসি দেওয়ার আগে জামায়াত নেতাকে গোসল করানো হয় এবং জমটুপি পরিয়ে ফাঁসিমঞ্চে তোলা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মো. সালাহ উদ্দিন, সিভিল সার্জন আবদুল মালেক মৃধা, জেল সুপার জাহাঙ্গীর কবির ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

এর আগে জেল সুপার জাহাঙ্গীর কবির সন্ধ্যায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে রায় কার্যকরে আদেশ নিয়ে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পৌছান। এর পর পরই কেন্দ্রীয় কারাগারে জল্লাদ রাজু ও সহযোগীরা ফাঁসির মহড়াও সম্পন্ন করেন।

রাত ৮টার মধ্যে নিজামীর পরিবারের সদস্যদের শেষবারের মতো সাক্ষাতের জন্য ডাকে কারা কর্তৃপক্ষ। মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টা ৪৫মিনিটে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পৌঁছে তার সঙ্গে শেষ দেখা করেন পরিবারের ২৪ সদস্য। রাত ৯ টা ৩৩ মিনিটে বের হন পরিবারের সদস্যরা।

এসময় প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে কোনো কথাই বলেননি নিজামীর স্বজনরা। তারা সোজা গাড়ি নিয়ে কারাগার এলাকা ত্যাগ করেন। রাত ১০ টার পর তার স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য কারাগারে যান সিভিল সার্জন।

স্বজনদের মধ্যে নিজামীর স্ত্রী শামসুন্নাহার নিজামী, বড় ছেলে ব্যারিস্টার নাজীব মোমেন, বড় পুত্রবধূ, দুই নাতি, ছোট মেয়ে মহসীনা, নিজামীর চাচাতো ভাই, ভাইয়ের মেয়েসহ ২৪ জন নিকটাত্মীয় ছিলেন।

এর আগে, ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে নিজামীকে একটি প্রতিনিধিদল জিজ্ঞাসাবাদ করে তিনি রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষা চাইবেন কি না। তবে নিজামী এতে সাড়া দেননি। এই দলে ছিলেন অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক (প্রিজনস) ইকবাল কবীর, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও জেল সুপার জাহাঙ্গীর কবির। সোমবার দুপুরে নিজামীর রিভিউ খারিজের পূর্ণাঙ্গ রায়ে বিচারকদের সইয়ের পর বিকেলে ট্রাইব্যুনালে পৌঁছায় ওই রায়। সেখানে আনুষ্ঠানিকতা শেষে রায়ের অনুলিপি পৌঁছে দেয়া হয় কেন্দ্রীয় কারাগারে। রাতে তা পড়ে শোনানো হয় নিজামীকে।

সোমবার বিকেলে নিজ কার্যালয়ে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম সাংবাদিকদের বলেন, নিজামীর দণ্ড কার্যকর এখন সরকারের বিষয়। সরকার নির্ধারিত সময়ে কারা কর্তৃপক্ষ তা কার্যকর করবে।

এর আগে বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী ও জামায়াত নেতা আলী আহসান মোহাম্মাদ মুজাহিদের ফাঁসি কার্যকর করেছিলেন রাজু। এ ছাড়া জামায়াত নেতা কামারুজ্জামানের মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের সময়ও সহযোগী ছিলেন রাজু।।

মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন বুদ্ধিজীবী হত্যা, লুট, ধর্ষণে পরিকল্পনা, সাম্প্রদায়িক উসকানিসহ মোট ১৬টি অভিযোগে মতিউর রহমান নিজামীর মৃত্যুদণ্ড দেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। এরপর রিভিউ (রায় পুনর্বিবেচনা) আবেদনও খারিজ করে দেন সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগ।

আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে এ মামলার সাক্ষ্য ও জেরা শেষ হয় ২০১৩ সালের শেষের দিকে। এরপর ২০১৪ সালের ২৪ জুন দুই দফা যুক্তিতর্ক শেষে মামলাটি রায়ের জন্য অপেক্ষমাণ রাখা হয়েছিল। পরে ২০১৪ সালের ২৯ অক্টোবর ট্রাইব্যুনালের চেয়ারম্যান বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম নেতৃত্বাধীন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ পাঁচটি অপরাধে নিজামীর মৃত্যুদণ্ডের রায় ঘোষণা করেন। অন্যগুলোতে যাবজ্জীবন ও বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেয়া হয়।

তার বিরুদ্ধে ১৬টি অভিযোগের মধ্যে আটটি প্রমাণিত হয়। এর মধ্যে চারটি অভিযোগে তাঁকে ফাঁসির আদেশ দেন ট্রাইব্যুনাল। এই রায়ের বিরুদ্ধে নিজামীর আপিলের রায় ঘোষণা করা হয় চলতি বছরের ৬ জানুয়ারি। আপিলে আরও তিনটি অভিযোগ থেকে নিজামী খালাস পান। বাকি পাঁচটি অভিযোগে তাঁকে ট্রাইব্যুনালের দেওয়া দণ্ড বহাল রাখেন আপিল বিভাগ, এর মধ্যে তিনটিতে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়।

এগুলো হলো পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার রূপসী, বাউসগাড়ি ও ডেমরা গ্রামের ৪৫০ জনকে নির্বিচার হত্যা ও ধর্ষণ, ধুলাউড়ি গ্রামে ৫২ জনকে হত্যা এবং বুদ্ধিজীবী হত্যার পরিকল্পনা। বাকি দুটি অভিযোগে তাঁকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন সর্বোচ্চ আদালত।

আর/১২:৩৪/১১ মে

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে