Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৫-১০-২০১৬

সংখ্যালঘু স্কুলে নিয়োগ করতে আর অনুমতির দরকার নেই

সংখ্যালঘু স্কুলে নিয়োগ করতে আর অনুমতির দরকার নেই

কলকাতা, ১০ মে- নিয়োগ প্রক্রিয়ায় এবার সংখ্যালঘু স্কুলগুলিকে  নিজের মতো চলার ছারপত্র দিল রাজ্য সরকার৷ থেকে প্রধান শিক্ষক, শিক্ষক বা অশিক্ষক কর্মী পদে নিয়োগ করতে গেলে সংখ্যালঘু স্কুলগুলিকে আর আগাম অনুমতি নিতে হবে না। স্কুলে শিক্ষা দফতর স্বীকৃত পদ খালি হলেই তারা নিজেদের মতো বিজ্ঞাপন দিয়ে নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করতে পারবে। সংখ্যালঘু স্কুলগুলির নিয়োগ প্রক্রিয়া নিয়ে গেজেট বিজ্ঞপ্তিতে এমনটাই বলা হয়েছে। ফেব্রুয়ারি মাসে প্রকাশিত হয়েছে এই বিজ্ঞপ্তি। উল্লেখ্য, ভারত সরকার দ্বারা স্বীকৃত সংখ্যালঘু বিষয়ক দফতরের শংসাপত্র পাওয়া স্কুলগুলিই এই আওতায় পড়ে। রাজ্যে কমপক্ষে ৫০০-৬০০টি এই ধরনের স্কুল আছে। যদিও সাধারণ স্কুলগুলির (সরকার পোষিত) ক্ষেত্রে নিয়োগের আগে সংশ্লিষ্ট জেলা পরিদর্শকের কাছ থেকে অনুমতি নেওয়া বাধ্যতামূলক।

কিন্তু এই সংখ্যালঘু স্কুলগুলিকে নিয়োগের ক্ষেত্রে এই ছাড় দিয়ে বাড়তি সুবিধা করে দেওয়া হলে বলেই মনে করছেন অনেকে। তবে এর ইতিবাচক দিকও রয়েছে। শিক্ষকরা জানান, ডিআইয়ের কাছে নিয়োগের জন্য আবেদন করে দেখা যায়, তার ছাড়পত্র পেতেই অনেক সময় চলে যায়। তারপর বিজ্ঞাপন করে নিয়োগ—অর্থাৎ, দীর্ঘমেয়াদি প্রক্রিয়া। ফলে নিয়োগের প্রক্রিয়া একেবারে স্কুলের উপর ছাড়লে সময় কিছুটা কম লাগবে বলেই ধারণা তাঁদের। আরও একটি বিষয়ে সংশোধন করা হয়েছে। তা হল, কর্মরত অবস্থায় যদি কোনও শিক্ষক বা অশিক্ষক কর্মীর মৃত্যু হয়, তাহলে তাঁর পরিবারের একজনকে চাকরি দেওয়া হবে। এতদিন এই ক্ষেত্রে যোগ্যতা অনুযায়ী প্রাথমিক স্কুলের শিক্ষক বা অশিক্ষক কর্মীর পদেই চাকরি দেওয়া হত। কিন্তু নতুন নীতি বলছে, কেবল অশিক্ষক কর্মীর পদেই সেই চাকরি দেওয়া হবে। অর্থাৎ, যোগ্যতা থাকলেও প্রাথমিক শিক্ষক পদে চাকরি পাওয়া যাবে না।

পশ্চিমবঙ্গ

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে