Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৫-০৭-২০১৬

বাঁশ লোহার চেয়ে শক্তিশালী হলে...

বাঁশ লোহার চেয়ে শক্তিশালী হলে...
ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশের (আইবি) ৬৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ

ঢাকা, ০৭ মে- ভবন তৈরিতে রডের পরিবর্তের বাঁশ ব্যবহারের অনিয়মের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে প্রকৌশলীদের নির্মাণ কাজের ‘কোড অব এথিক্স’ মেনে চলার আহ্বান জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

সাম্প্রতিক কয়েকটি ঘটনার দিকে ইঙ্গিত করে  তিনি বলেছেন, “এটা দুঃখজনক হলেও সত্য যে, আজকাল পত্রপত্রিকায় প্রায়ই নির্মাণ কাজ বিশেষ করে রাস্তাঘাট ও ইমারত নির্মাণ কাজের ত্রুটি ও নিম্নমান নিয়ে রিপোর্ট প্রকাশিত হচ্ছে। রডের পরিবর্তে বাঁশ ব্যবহারের কথাও আমাদের জানতে হয়েছে।

“এতে একদিকে যেমন জনগণের টাকার অপচয় হচ্ছে তেমনি জনভোগান্তিও বাড়ছে। এছাড়া কিছু অসাধু লোকের জন্য আপনাদের সুনামও হানি হচ্ছে। দেশে-বিদেশে আমাদের ভাবমূর্তিও ক্ষুণ্ন হচ্ছে।”

শনিবার রাজধানীতে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশের (আইবি) ৬৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি তার স্বভাবসুলভ হাস্যরসে আরও বলেন, “তবে এখানে বলতে চাই, আপনারা যদি বৈজ্ঞানিক কোনো প্রযুক্তি বের করতে পারেন, যাতে বাঁশ লোহার চেয়ে শক্তিশালী, তাহলে কোনো কথাই হবে না।” এসময় পুরো অনুষ্ঠানস্থলে হাসির রোল পড়ে।

গত এপ্রিল মাসে চুয়াডাঙ্গার দর্শনায় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের নির্মাণাধীন একটি ভবনে রডের পরিবর্তে বাঁশের চটা ব্যবহার করায় কাজ বন্ধ করে দেয় স্থানীয় প্রশাসন।

গণমাধ্যমে এ নিয়ে খবর প্রকাশিত হওয়ার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন মহলে সমালোচনার ঝড় ওঠে। পরে ওই প্রকল্পের পরিচালককে ‘শাস্তিমূলক বদলি’ হিসেবে খাগড়াছড়িতে পাঠানো হয়। রডের বদলে বাঁশের চটা দিয়ে ভবন নির্মাণের গঠনায় গত ১১ এপ্রিল দামুড়হুদা থানায় একটি ফৌজদারি মামলা করা হয়। গাইবান্ধায় শৌচাগার নির্মাণেও রডের বদলে বাঁশের খবর আসে গণমাধ্যমে।

প্রকৌশলীদের জনগণের টাকার সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করার আহ্বান জানিয়ে আবদুল হামিদ বলেন,“আমি প্রকৌশলীদের ‘কোড অব এথিক্স’ অনুসরণের আহ্বান জানাই। কারণ ‘এথিক্স’ থেকে বিচ্যুত হলে ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের নয়, গোটা দেশের ক্ষতি হয়।

“আমার বিশ্বাস আপনাদের মেধা, মনন ও সৃষ্টিশীলতায় সরকার ঘোষিত দিন বদলের কর্মসূচি বাস্তবায়নের মাধ্যমে বাংলাদেশ উন্নত-সমৃদ্ধ দেশে পরিণত হবে।”

রাষ্ট্রপতি বলেন, “আজ আপনারা প্রকৌশলী, উন্নয়নের মূল কারিগর। মনে রাখতে হবে আপনাদেরকে আজকের অবস্থানে পৌঁছে দিতে যাদের অবদান সবচেয়ে বেশি, তারা হলেন এ দেশের সাধারণ মানুষ। তাদের ট্যাক্সের টাকাই আপনাদের লেখাপড়ার খরচ জুগিয়েছে। তাই এখন সময় এসেছে প্রতিদান দেওয়ার।”

জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবেলায় সক্ষম অবকাঠামো নির্মাণে প্রকৌশলীদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান আবদুল হামিদ।

সড়ক, সেতু ও যোগাযোগ অবকাঠামো নির্মাণ, বিদ্যুৎ উৎপাদনসহ প্রতিটি উন্নয়ন পরিকল্পনা প্রণয়নের ক্ষেত্রে প্রকৌশলীদের সুদূরপ্রসারি পরিকল্পনা রাখার পরামর্শও দেন তিনি।

“আগামী ৫০ বা ১০০ বছরে জনসংখ্যার চাহিদা ও চাপ মাথায় রেখেই এ পরিকল্পনা প্রণয়ন করতে হবে। পাশাপাশি পরিবেশের উপর উন্নয়ন পরিকল্পনা বাস্তবায়নের নেতিবাচক দিকগুলো অত্যন্ত সতর্কতার সাথে পর্যবেক্ষণ করতে হবে।”

আইবির প্রেসিডেন্ট কবির আহমেদ ভূঞার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুস সবুর, আইবি ঢাকা কেন্দ্রের চেয়ারম্যান মেসবাহুর রহমান, সম্পাদক আমিনুর রশীদ।

এফ/১৫:৪০/০৭মে

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে