Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৫-০৫-২০১৬

আগামী বছরেই বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণে আশাবাদী প্রধানমন্ত্রী

মিজানুর রহমান সোহেল


আগামী বছরেই বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণে আশাবাদী প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা, ০৫ মে- আগামী বছরের ১৬ ডিসেম্বরের মধ্যে মহাকাশে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ উৎক্ষেপণে আশাবাদী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার বিকেলে দশম জাতীয় সংসদের দশম অধিবেশনে যশোর-২ আসনের সংসদ সদস্য মো. মনিরুল ইসলামের এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, আগামী বছরের মধ্যে মহাকাশে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ উৎক্ষেপণ করা সম্ভব হবে। ২ হাজার ৯৬৭ কোটি ৯৫ লাখ ৭৭ হাজার টাকা ব্যয়ে গাজীপুর ও বেতবুনিয়ায় দুটি গ্রাউন্ড স্টেশন নির্মাণের কার্যক্রম চলমান রয়েছে বলেও জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এর ফলে সমগ্র বাংলাদেশের স্থল ও জলসীমায় নিরবচ্ছিন্ন টেলিযোগাযোগ ও সম্প্রচারের নিশ্চয়তা সৃষ্টি হবে। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট থেকে সুবিধা পাওয়া যাবে। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ উৎক্ষেপণের ফলে বাংলাদেশ ঘূর্ণিঝড়সহ প্রাকৃতিক দুর্যোগের পূর্বাভাস আগে থেকে জানতে পারবে। এতে অধিক পরিমাণে জানমালের ক্ষয়ক্ষতি থেকে দেশের মানুষ রক্ষা পাবে। এছাড়া মহাকাশে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ উৎক্ষেপণের ফলে প্রাকৃতিক দুর্যোগে টেরিস্ট্রিয়াল অবকাঠামো ক্ষতিগ্রস্থ হলেও সারাদেশে নিরবচ্ছিন্ন যোগাযোগ ব্যবস্থা বহাল রাখা যাবে।

শেখ হাসিনা বলেন, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ উৎক্ষেপণের ফলে বাংলাদেশের মানুষ স্থল ও জলসীমায় নিরবচ্ছিন্ন টেলিযোগাযোগ ও সম্প্রচারের নিশ্চয়তা পাবে, স্যাটেলাইট টেকনোলজি ও সেবা প্রসারের মাধ্যমে কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে। বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইটে মোট ৪০টি ট্রান্সপন্ডার থাকবে। এর মধ্যে ২০টি বাংলাদেশের জন্য ব্যবহৃত হবে এবং ২০টি মধ্যপ্রাচ্য ও পাশ্ববর্তী দেশসমূহে লিজ প্রদানের মাধ্যমে বৈদেশিক মুদ্রা আয় করাও সম্ভব হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের মাধ্যমে টেলিযোগাযোগ ও সম্প্রচার সেবার পাশাপাশি টেলিমেডিসিন, ই-লার্নিং, ই-এডুকেশন, ডাইরেক্ট টু হোম (ডিটিএইচ) প্রভৃতি সেবা প্রদান করা হবে। প্রাকৃতিক দুর্যোগে টেরিস্ট্রিয়াল অবকাঠামো ক্ষতিগ্রস্ত হলে সারাদেশে নিরবচ্ছিন্ন যোগাযোগ বহাল রাখাসহ বর্তমানে বিদেশী স্যাটেলাইটের ভাড়া বাবদ প্রদেয় বার্ষিক প্রায় ১৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার সাশ্রয় করে বৈদেশিক মুদ্রা আয়ের সুযোগ সৃষ্টি হবে।

জাতীয় পার্টির কাজী ফিরোজ রশীদের অপর এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দক্ষিণাঞ্চলে পায়রা সামুদ্রিক বন্দর নির্মাণ করা হলে সেখানে অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপনসহ ব্যাপক ব্যবসা-বাণিজ্য ও কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে। তিনি বলেন, পায়রা বন্দরে যাওয়ার জন্য পায়রা সেতু নির্মাণে কুয়েত সরকার আর্থিক সহায়তা দিতে সম্মত হয়েছেন। এছাড়া সেখানে লেবুখালি সেতুও নির্মাণ করা হবে। স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের ফলে দক্ষিণাঞ্চলের মানুষ ইন্টারনেট ও টেলিকমিউনিকেশন ব্যবহারের মাধ্যমে তথ্য প্রযুক্তির আধুনিক সুবিধা পাবে বলে প্রধানমন্ত্রী উল্লেখ করেন।

বগুড়া-৬ আসনের সংসদ সদস্য মো. নুরুল ইসলাম ওমর প্রধানমন্ত্রীর কাছে জানতে চান- দেশে শিক্ষিত বেকার ও সাধারণ বেকারদের বেকারত্ব দূর করতে সরকারের কোনো পরিকল্পনা আছে কি? জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সাধারণ বেকার যুবকদের বেকারত্ব দূরীকরণ ও যুবসমাজকে কর্মমুখী করে গড়ে তুলতে সরকার নানামুখী পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণলায়াধীন যুব উন্নয়ন অধিদফতরের মাধ্যমে এসব কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে বলেও প্রধানমন্ত্রী জানান। এছাড়াও প্রধানমন্ত্রী বলেন, সারাদেশে বেকার যুব সমাজকে কর্মমুখী করে গড়ে তুলতে যুব উন্নয়ন অধিদফতরের আওতায় ৬৪টি জেলায় কম্পিউটার ল্যাব স্থাপন করা হবে।

আর/১৭:৩৪/০৫ মে

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে