Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.0/5 (4 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৫-০৪-২০১৬

ডিজিটাল নিরাপত্তায় দুই সংস্থা করছে সরকার

ডিজিটাল নিরাপত্তায় দুই সংস্থা করছে সরকার

ঢাকা, ০৪ মে- ‘জাতীয় ডিজিটাল নিরাপত্তা কাউন্সিল’ ও ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা এজেন্সি’ নামে নতুন দুটি সংস্থা গঠন করতে যাচ্ছে সরকার। কম্পিউটার, কম্পিউটার ব্যবস্থা বা নেটওয়ার্ক বা মুঠোফোন নেটওয়ার্কের মাধ্যমে সংঘটিত ডিজিটাল অপরাধ তদন্ত ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করাই হবে ওই দুই সংস্থার কাজ।

এ জন্য  ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন, ২০১৬’ নামে একটি নতুন আইনের খসড়া তৈরি করেছে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ। শিগগিরই এ আইনের খসড়া অনুমোদনের জন্য মন্ত্রিসভায় উত্থাপন করা হবে। আইনে ডিজিটাল পদ্ধতির অপব্যবহার করে কোনো অপরাধ করলে তা রোধ ও শাস্তির বিধান রাখা হয়েছে প্রস্তাবিত আইনে।

জাতীয় ডিজিটাল নিরাপত্তা কাউন্সিলের সভাপতি হবেন প্রধানমন্ত্রী। আর ডিজিটাল নিরাপত্তা এজেন্সির প্রধান হবেন একজন মহাপরিচালক।

আইনের খসড়ার একটি কপি এনটিভি অনলাইনের হাতে এসেছে। জাতীয় ডিজিটাল নিরাপত্তা কাউন্সিল গঠনের বিষয়ে প্রস্তাবিত আইনের ৬ নম্বর ধারায় বলা হয়েছে, ‘ডিজিটাল নিরাপত্তার সার্বিক বিষয় নিয়ে আলোচনা এবং ডিজিটাল নিরাপত্তার বিষয়ে জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণের লক্ষ্যে একটি জাতীয় ডিজিটাল নিরাপত্তা কাউন্সিল গঠিত হইবে। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী জাতীয় ডিজিটাল নিরাপত্তা কাউন্সিল এর সভাপতি হইবেন।’ একই ধারার ২ নম্বর উপধারায় বলা হয়েছে, ‘জাতীয় ডিজিটাল নিরাপত্তা কাউন্সিল এর গঠন ও কার্যাবলী বিধি দ্বারা নির্ধারিত হইবে।’ 

ডিজিটাল নিরাপত্তা এজেন্সির গঠন ও এর কার্যাবলির বিষয়ে খসড়া আইনের ৫ নম্বর ধারায় বলা হয়েছে, ‘জাতীয় ডিজিটাল নিরাপত্তা নিশ্চিত করিবার লক্ষ্যে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের অধীনে সরকার এই আইনের আওতায় উপযুক্ত কর্তৃপক্ষ গঠন করিতে পারিবে। ডিজিটাল নিরাপত্তা এজেন্সি বাংলাদেশের সকল কম্পিউটার বা ডিজিটাল সিস্টেম, নেটওয়ার্ক, মোবাইল বা ডিজিটাল যোগাযোগ (ভয়েস অ্যান্ড ডাটা) নেটওয়ার্ক, নিরাপত্তা প্রদান, সাইবার অপরাধ দমন ও প্রতিরোধ এবং উক্তরূপ অপরাধমূলক তৎপরতা রোধ করিবার উদ্দেশ্যে—(ক) সাইবার অপরাধসমূহ পর্যবেক্ষণ; (খ) কম্পিউটার, কম্পিউটার সিস্টেম বা কম্পিউটার নেটওয়ার্কের বা মোবাইল নেটওয়ার্কের মাধ্যমে আর্থিক কর্মকাণ্ডের সহিত জড়িত অন্যান্য সংস্থার কার্যতৎপরতা বাংলাদেশ ব্যাংক বা অর্থ মন্ত্রণালয় এ সহিত সমন্বয় এবং পর্যবেক্ষণ; (গ) কম্পিউটার, কম্পিউটার সিস্টেম বা কম্পিউটার নেটওয়ার্কের বা মোবাইল নেটওয়ার্কের সহিত জড়িত অন্যান্য সংস্থার নিকট হইতে ডিজিটাল অপরাধ সম্পর্কিত কোনো বিষয়ে প্রতিবেদন আহ্বান করা।’

একই ধারার ৩ নম্বর উপধারায় বলা হয়েছে, “এই আইনের উদ্দেশ্য পূরণকল্পে সরকার প্রয়োজনীয় জনবলসহ ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা এজেন্সি’-এর নতুন দপ্তর সৃষ্টি করিতে পারিবে এবং ডিজিটাল নিরাপত্তা এজেন্সির একজন মহাপরিচালক থাকিবে। সরকারের নিয়ন্ত্রণ ও তত্ত্বাবধান সাপেক্ষে মহাপরিচালক এই আইনের অধীন তাহার উপর ন্যস্ত সকল কার্য সম্পাদন করিবেন।’

৫ নম্বর উপধারায় বলা হয়েছে, ‘মহাপরিচালকের প্রধান কার্যালয় ঢাকায় থাকিবে এবং সরকার প্রয়োজনে দেশের যেকোনো স্থানে তৎকর্তৃক নির্ধারিত সময়ের জন্য বা স্থায়ীভাবে শাখা কার্যালয় স্থাপন করিতে পারিবে।’

৭ নম্বর উপধারায় বলা হয়েছে, ‘এই আইনের অধীনে মহাপরিচালকের নিয়ন্ত্রণে এক বা একাধিক ডিজিটাল ফরেনসিক ল্যাব স্থাপন করা হইবে। ইহা ছাড়া, সরকার ডিজিটাল নিরাপত্তা নিশ্চিত করা এবং ডিজিটাল নিরাপত্তা হুমকীর সম্মুখীন হইলে এর প্রতিকার বিধানের জন্য অন্যান্য প্রয়োজনীয় ল্যাব স্থাপন করিতে পারিবে।’

৯ নম্বর উপধারায় বলা হয়েছে, ‘বাংলাদেশ সরকারের অতিরিক্ত সচিব বা গ্রেড-২ পদমর্যাদার কর্মকর্তা বা ডিজিটাল সিকিউরিটিতে বিশেষভাবে অভিজ্ঞ ব্যক্তি ডিজিটাল নিরাপত্তা এজেন্সির মহাপরিচালক হইবে।’

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে