Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 1.6/5 (7 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৫-০৩-২০১৬

‘আমেরিকা মুসলমানদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ শুরু করেছে’

‘আমেরিকা মুসলমানদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ শুরু করেছে’

তেহরান, ০৩ এপ্রিল- ইরানের সর্বোচ্চ নেতা হযরত আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ি তেহরানে ফিলিস্তিনের ইসলামী জিহাদ আন্দোলনের প্রধান রামাজান আব্দুল্লাহকে দেয়া সাক্ষাতে মধ্যপ্রাচ্যের বর্তমান পরিস্থিতির বর্ণনা তুলে ধরে বলেছেন, মধ্যপ্রাচ্যের ওপর আধিপত্য ধরে রাখার জন্য মার্কিন নেতৃত্বাধীন পশ্চিমা দেশগুলো ইসলামি ফ্রন্টের বিরুদ্ধে যুদ্ধ শুরু করেছে। তিনি বলেন, এ দৃষ্টিভঙ্গি থেকেই মধ্যপ্রাচ্যের ঘটনাবলীকে দেখতে হবে। বৃহৎ পরিসরে এই কাঠামোর ভেতরে ফেলে ইরাক, সিরিয়া, লেবানন ও হিজবুল্লাহর বিরুদ্ধে লড়াই‌ শুরু করেছে তারা। খবর-রেতে।

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা বলেন, এখন যে যুদ্ধ চলছে তা ৩৭ বছর আগে থেকেই ইসলামী ইরানের বিরুদ্ধে শুরু হয়েছে। তবে এর মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ও প্রধান সমস্যা হচ্ছে ফিলিস্তিন সংকট। তিনি বলেন, ইসলামী ইরান শুরু থেকেই ফিলিস্তিনিদের প্রতি সমর্থন দিয়ে আসছে এবং এটাকে নিজেদের ধর্মীয় কর্তব্য বলে মনে করে-ভবিষ্যতেও ইরানের এ সমর্থন অব্যাহত থাকবে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, মুসলিম বিশ্বের নানা সংকটের মধ্যে মজলুম ফিলিস্তিনিদের প্রতি সমর্থন দেয়াকে ইরান সবচেয়ে অগ্রাধিকারযোগ্য বিষয় বলে মনে করে। ইরানের পররাষ্ট্র নীতিতে বিষয়টিকে অগ্রাধিকার দেয়া ছাড়াও দেশটির সংবিধানেও এর ওপর বিশেষভাবে গুরুত্বারোপ করা হয়েছে। ইরানের সংবিধানের ১৫৪ নম্বর ধারায় বলা হয়েছে, সমস্ত মানব সমাজের কল্যাণই ইরানের লক্ষ এবং বিশ্বের সব মানুষের মুক্তি, স্বাধীনতা, ন্যায়বিচার ও অধিকারকে সমর্থন করে। ইরানের সংবিধানে এও বলা হয়েছে, তারা কোনো দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করবে না তবে বিশ্বের নির্যাতিত জনগোষ্ঠীর পাশে থাকবে।

ইরানে ইসলামী বিপ্লব বিজয়ের পর আধিপত্যকামী শক্তির বিরুদ্ধে যুদ্ধের নতুন যুগের সূচনা হয়েছে। ইসলামী বিপ্লবের প্রতিষ্ঠাতা মরহুম ইমাম খোমেনি (র.) প্রথম থেকেই বিশ্বের নির্যাতিত জাতিগুলোর প্রতি সমর্থন দিয়ে এসেছেন। এ কারণে যে কোনো পরিস্থিতিতে ইরানের ইসলামী সরকার নির্যাতিত জাতিগুলো বিশেষ করে ফিলিস্তিনিদের অধিকার বাস্তবায়নে সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে আসছে। ফিলিস্তিনিদের রক্ষায় ইরান সব রকম সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছে।

ঠিক এ কারণে আমেরিকা নির্যাতিত জাতিগুলোর প্রতি ইরানের সাহায্য সমর্থন বন্ধ করার জন্য আর্থ-রাজনৈতিক চাপ ও প্রচারণার পাশাপাশি সামরিক হামলার হুমকি পর্যন্ত দিচ্ছে ইরানের বিরুদ্ধে। ইরানকে দমিয়ে রাখার জন্য আমেরিকা একদিকে যুদ্ধের ভয়ভীতি দেখাচ্ছে অন্যদিকে দেশটির বিরুদ্ধে নরম যুদ্ধ শুরু করেছে। নরম যুদ্ধের অংশ হিসেবে তারা ইরানের ওপর সাংস্কৃতিক আগ্রাসন এবং ইসলামের ইতিহাস বিকৃত করার চেষ্টা করছে। কিন্তু মধ্যপ্রাচ্যের বর্তমান পরিস্থিতিতে একদিকে আমেরিকার পরাজয়ের চিহ্ন ফুটে উঠেছে অন্যদিকে ইরান তার লক্ষ্য আদর্শ বাস্তবায়নে ক্রমেই সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।

আমেরিকা মুসলিম দেশগুলোর মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি এবং ফিলিস্তিন সমস্যাকে সবার নজর থেকে আড়াল করার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এ লক্ষ্যে তারা মধ্যপ্রাচ্যের বর্তমান অশান্ত পরিস্থিতিকে শিয়া-সুন্নি দ্বন্দ্ব বলে প্রচার চালাচ্ছে। ইরানের সর্বোচ্চ নেতা এ ষড়যন্ত্র সম্পর্কে বলেছেন, শিয়া-সুন্নি মিথ্যা দ্বন্দ্বের কথা বলে আমেরিকাসহ পাশ্চাত্যের সাম্রাজ্যবাদী শক্তিগুলো আসলে মুসলমানদেরকে একে অপরের বিরুদ্ধে দাঁড় করানোর চেষ্টা করছে। তিনি বলেন, ইরানের ইসলামী বিপ্লবী সরকার শত্রুদের এসব ষড়যন্ত্র মোকাবেলায় স্পষ্ট নীতি-কৌশল গ্রহণ করেছে এবং ফিলিস্তিনি জনগণকে রক্ষা করাকে জিহাদ বলে মনে করে।

আর/১২:০৪/০৩ মে

মধ্যপ্রাচ্য

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে