Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 1.8/5 (8 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৪-২৯-২০১৬

লিও টলস্টয়ের অজানা কিছু কথা

আফসানা সুমী


লিও টলস্টয়ের অজানা কিছু কথা

'ওয়ার এন্ড পিস' এবং 'আনা কারেনিনা' বইয়ের লেখক লিও টলস্টয় আমাদের সবারই পরিচিত। তিনি জন্মগ্রহণ করেন ১৮২৮ সালে রাশিয়ার এক অভিজাত পরিবারে। তার আসল নাম লেভ নিকোলায়েভিচ টলস্টয়। লিও টলস্টয়কে সর্বোকালের সেরা লেখক হিসেবে বিশ্বব্যাপি স্বীকৃতি দেওয়া হয়। উপরে উল্লেখিত বই দুইটি তার অনন্য সৃষ্টি। এই বই দু'টি বিশ্বব্যাপী সাফল্য পাওয়ার পর তরূণ বয়সেও উগ্রতার চর্চা করেন নি। এমনকি আধ্যাত্মিকতার চর্চা বা নৈতিক কোন দর্শন না দাঁড় করিয়ে তিনি বরং বেছে নিয়েছেন সাধারণ জীবনযাপন এবং শান্তিবাদ। যা তার হাজারো ভক্তকে উৎসাহী করেছে, এদের মধ্যে রয়েছেন মহাত্মা গান্ধী এবং মার্টিন লুথার কিং জুনিয়র।
 
আসুন জেনে নিই টলস্টয় সম্পর্কে আরও কিছু তথ্য।
 
টলস্টয়ের আত্ম-উন্নয়ন
বেনজামিন ফ্রাঙ্কলিন যেমন তার আত্মজীবনীতে ১৩ টি গুণের কথা উল্লেখ করেছিলেন, তেমনি টলস্টয়েরও ছিল নিয়মের তালিকা। কীভাবে তিনি জীবনযাপন করবেন, কী করবেন আর কী করবেন না এ বিষয়ে স্পষ্ট নীতিমালা ছিল তার। সেগুলোর অনেক কিছুই অবশ্য এখনো মানুষের দৈনন্দিন চর্চায় সন্নিবেশ করতে পরামর্শ দেওয়া হয়। যেমন- পরিমিত খাওয়া, ১০ টায় ঘুমাতে যাওয়া এবং ৫ টায় ঘুম থেকে ওঠা, মিষ্টি খাবার এড়িয়ে যাওয়া ইত্যাদি। নিজের খারাপ দিকগুলোকেও অদ্ভুতভাবে নিয়ন্ত্রণ করতেন তিনি। যেমন, ব্রথেলে মাসে ২ বারের বেশি যেতেন না। জুয়া খেলা নিয়ন্ত্রণ করতেন। কিশোর বয়স থেকে তিনি একটি পত্রিকা রাখতেন। নাম ছিল “Journal of Daily Occupations”। তিনি চাইতেন তার প্রতি মিনিটের হিসেব রাখতে। কীভাবে তিনি দিন পার করেছেন তা লিখতেন এবং একইসাথে পর্যালোচনা করতেন, কীভাবে দিনটি যেতে পারত! এতেও শান্তি না হলে তিনি নিজের ব্যর্থতার একটা তালিকা তৈরি করতেন। এরপরও তিনি গান শোনা বা কার্ড খেলার সময় পেতেন।
 
'ওয়ার এন্ড পিস' লিখতে সাহায্য করেছিলেন তার স্ত্রী সোফিয়া
দেখা হওয়ার এক সপ্তাহের মধ্যেই ১৮ বছর বয়সি সোফিয়াকে বিয়ে করেছিলে ৩৪ বছর বয়সী টলস্টয়। সালটি ছিল ১৮৬২। টলস্টয় তখন 'ওয়ার এন্ড পিস' লেখা শুরু করেছেন। প্রথম ড্রাফটটি শেষ করেন ১৮৬৫ সালে। এরপর সোফিয়া তার ড্রাফটটি গুছিয়ে লেখার ভার নেন। তিনি হাতে লিখতেন, প্রয়োজনে ম্যাগনিফাইং গ্লাস দিয়ে দেখে নিতেন, পরীক্ষা করতেন টলস্টয়ের প্রতিটি কাটাকাটি বা এলোমেলো অক্ষর। পরবর্তী ৭ বছর সময় নিয়ে তিনি লেখাটির পরিচ্ছন্ন কপি তৈরি করেন। এজন্য কোন কোন অংশ তিনি ৮ বার লিখেছেন। আবার কোনটা লিখেছেন ৩০ বারও। সোফিয়া জন্ম দিয়েছেন ১৩টি শিশুর এবং একই সাথে দেখাশোনা করতেন ব্যবসা এবং স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি।

রাশিয়ার অর্থডক্স চার্চ তাকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করে
আনা কারেনিনা লেখার পর জীবন সম্পর্কে টলস্টয়ের ভাবনার ব্যপক পরিবর্তন ঘটে। ১৮৭০ সাথে আনা কারেনিনা প্রকাশিত হয়। এরপর থেকে তিনি তার অভিজাত পরিবার এবং বিপুল সহায় সম্পত্তি নিয়ে বিব্রত বোধ করতে থাকেন। আধ্যাত্মিক অনুশাসনের সংকট তাকে বাধ্য করে নিজের বিশ্বাসের প্রতি প্রশ্ন করতে। ধর্মীয় নিয়মকানুনগুলোর মধ্যে তিনি নানাবিধ সমস্যা দেখতে পান। যিশুখ্রিষ্টের শিক্ষা তাকে আর সন্তুষ্ট করতে পারে না। টলস্টয় ধর্মকে প্রশ্ন করতে শুরু করেন, ধর্মীয় অনুশাসন মানতে অস্বীকৃতি জানান। রাষ্ট্রের নিয়মের ত্রুটি তুলে ধরেন। এই সবকিছু তাকে রাশিয়ার দুই সবচেয়ে বড় রাজনৈতিক শক্তির চক্ষুশূল করে তোলে। ফলে ১৯০১ সালে রাশিয়ার অর্থডক্স চার্চ তাকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করে

আর/১৭:৩৪/২৯ এপ্রিল

জানা-অজানা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে