Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৪-২৯-২০১৬

ডিসেম্বরের মধ্যে সরকারি কেনাকাটা হবে ই-জিপিতে

ডিসেম্বরের মধ্যে সরকারি কেনাকাটা হবে ই-জিপিতে

চট্টগ্রাম, ২৯ এপ্রিল- চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে সরকারি সব সংস্থার কেনাকাটা ইলেকট্রনিক গভর্নমেন্ট প্রকিউরমেন্ট (ই-জিপি বা ইলেকট্রনিক পদ্ধতিতে সরকারি ক্রয়) পদ্ধতিতে নিয়ে আসা হবে। সরকারি কেনাকাটার প্রক্রিয়ায় স্বচ্ছতা ও জবাবদিহি নিশ্চিতের পাশাপাশি নাগরিকদের সম্পৃক্ত করতে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার চট্টগ্রামের আগ্রাবাদ হোটেলে আয়োজিত কর্মশালায় এ তথ্য জানান পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন (আইএমই) বিভাগের সচিব ফরিদ উদ্দিন আহম্মদ চৌধুরী।

ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্র্যাক ইনস্টিটিউট অব গভর্ন্যান্স অ্যান্ড ডেভেলপমেন্টের (বিআইজিডি) ব্যবস্থাপনায় ‘সরকারি ক্রয় কার্যক্রমে নাগরিক সম্পৃক্ততা ও সামাজিক জবাবদিহিতা সৃষ্টির উপায়’ শীর্ষক এ কর্মশালার আয়োজন করে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের আইএমই বিভাগ।

কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে ফরিদ উদ্দিন আহম্মদ চৌধুরী বলেন, সরকারি প্রায় ১ হাজার ২০০ প্রতিষ্ঠান রয়েছে। সব কটি প্রতিষ্ঠানের কেনাকাটার দরপত্র ই-জিপির আওতায় আনা হবে। ইতিমধ্যে ২০০-এর মতো প্রতিষ্ঠানকে এই কার্যক্রমের আওতায় আনা হয়েছে। তিনি বলেন, সরকারিভাবে যেসব কেনাকাটা হয়, তাতে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহি নিশ্চিত করতে তৃতীয় পক্ষ হিসেবে নাগরিকদের সম্পৃক্ততার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। কারণ, জনগণের অর্থেই সরকারি ক্রয় কার্যক্রম পরিচালিত হয়। তাঁদের সম্পৃক্ত করতে না পারলে সরকারের উন্নয়ন কার্যক্রমে মানুষের আগ্রহ কমবে এবং কাজের বিশ্বাসযোগ্যতা প্রশ্নবিদ্ধ হবে। তাই জনগণকে সরকারি কেনাকাটা সম্পর্কে সচেতন করে তুলতে হবে।
কর্মশালায় বিশ্বব্যাংকের ঢাকা কার্যালয়ের মুখ্য ক্রয় বিশেষজ্ঞ জাফরুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশ এগোচ্ছে। তবে যে গতিতে এগোনোর দরকার, তা হচ্ছে না। আর্থিক সংকটসহ বিভিন্ন সীমাবদ্ধতা রয়েছে। তিনি বলেন, ‘সরকারি কেনাকাটায় শতভাগ স্বচ্ছতা ও জবাবদিহি নিশ্চিত করতে হবে।
পরিকল্পিত চট্টগ্রাম ফোরামের সভাপতি ও ইস্ট ডেল্টা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মুহাম্মদ সিকান্দর খান বলেন, জনগণের জন্য সরকারের উন্নয়ন কার্যক্রম। এ কার্যক্রমে জনগণকে সম্পৃক্ততা করা একটি আধুনিক ধারণা। এর মাধ্যমে সরকার বুঝতে পারবে, কোন কাজটি জনগণের প্রয়োজন আছে, কোনটি নেই। তবে নাগরিকদেরও দায়িত্বশীল আচরণ করতে হবে।

চট্টগ্রামের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক দৌলতুজ্জামান খানের সভাপতিত্বে কর্মশালায় বক্তব্য দেন পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য (আর্থসামাজিক ও অবকাঠামো) আবদুল মান্নান, আইএমই বিভাগের সেন্ট্রাল প্রকিউরমেন্ট টেকনিক্যাল ইউনিটের (সিপিটিইউ) পরিচালক মো. আজিজ তাহের খান। কর্মশালা সঞ্চালনা করেন বিআইজিডির জ্যেষ্ঠ ব্যবস্থাপক একরাম হোসেন।

কর্মশালায় বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানের প্রকৌশলী, ঠিকাদার, নাগরিক সমাজের প্রতিনিধি ও সংবাদকর্মীরা অংশ নেন।

এস/০১:২৫/২৯ এপ্রিল

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে