Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 1.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৪-২৮-২০১৬

আগামী প্রজন্ম সুরক্ষায় শব্দদূষণ নিয়ন্ত্রণের আহ্বান

আগামী প্রজন্ম সুরক্ষায় শব্দদূষণ নিয়ন্ত্রণের আহ্বান

ঢাকা, ২৮ এপ্রিল- বর্তমানে শব্দদূষণ পরিবেশ ও জনস্বাস্থ্যের প্রেক্ষাপটে একটি মারাত্মক পরিবেশগত সমস্যা হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে। বিশেষ করে শব্দদূষণের কারণে আগামী প্রজন্ম মানসিক ও শারীরিকভাবে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। শব্দদূষণের কারণে  শ্রবণশক্তি হ্রাস পাওয়া, বধিরতা, হৃদরোগ, মেজাজ খিটখিটে হওয়া, শিক্ষর্থীদের লেখাপড়ায় বিঘ্ন হওয়া, ঘুমের ব্যাঘাতসহ নানা রকম সমস্যা দেখা দেয়। শব্দদূষণ নিয়ন্ত্রণে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।

আন্তর্জাতিক শব্দসচেতনতা দিবস উপলক্ষে আজ বুধবার সকালে মানিক মিয়া এভিনিউয়ের ন্যাম ভবন এমপি হোস্টেলের সামনে পরিবেশ অধিদপ্তরের উদ্যোগে ‘শব্দদূষণ নিয়ন্ত্রণে সমন্বিত ও অংশীদারত্বমূলক কর্মসূচি’র আওতায় সমাবেশে বক্তারা এসব কথা বলেন। শব্দদূষণ রোধে ১৯৯৬ সাল থেকে এপ্রিল মাসের যেকোনো বুধবার দিবসটি পালিত হয়ে আসছে।

সমাবেশে পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী আব্দুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব বলেন, ‘প্রাণীর যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম হলো শব্দ। কিন্তু এই শব্দই আজ আমাদের পরিবেশ এবং স্বাস্থ্যগত ক্ষতির কারণ হয়ে দেখা দিয়েছে। সরকার শব্দদূষণ নিয়ন্ত্রণে নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। আমরা যারা শব্দদূষণের সৃষ্টি করছি তারাও এর ক্ষতির শিকার। কাজেই সরকারের গৃহীত কর্মসূচির পাশপাশি আমাদের সবাইকে সচেতন হতে হবে। সবাই মিলে শব্দদূষণ প্রতিরোধ করতে হবে।’

পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. কামাল উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘ শব্দ দূষণের উৎসগুলো বন্ধ করার পাশাপশি আমাদের সবাইকে সচেতন হতে হবে। সবাইকে নিজ নিজ জায়গা থেকে কাজ করতে হবে। সরকার শব্দদূষণ রোধে বেশ কিছু কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। আমাদের বিশ্বাস এই কর্মসূচির মাধ্যমে শব্দদূষণ নিয়ন্ত্রণে একধাপ এগিয়ে যাওয়া যাবে। শব্দদূষণের মতো এই মারাত্মক ঘাতক থেকে আপামর জনসাধারণকে রক্ষা করতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর শ্রদ্ধেয় শিক্ষক ও ছাত্রসমাজের ভূমিকা পালন করতে হবে।’

পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. রইছ উল আলম মণ্ডল বলেন, ‘মাত্রারিক্ত শব্দ তৈরির কারণে আমরা আজ ভয়াবহ শব্দদূষণের মধ্যে বাস করছি। নগরায়ণ, শিল্পায়ন, মানুষের দৈনন্দিন কাজকর্ম, যানবাহন ব্যবহারের ফলে শব্দের মাত্রা অসহনীয় হলে তা মানব স্বাস্থ্য ও পরিবেশের ওপর বিরূপ প্রভাব ফেলে। পরিবেশ অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে শব্দদূষণ নিয়ন্ত্রণে সচেতনতামূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে।’

অনুষ্ঠানে পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক, উপপরিচালক এবং ‘শব্দদূষণ নিয়ন্ত্রণে সমন্বিত ও অংশীদারত্বমূলক কর্মসূচি’র পরিচালক ফরিদ আহমেদ; ওয়ার্ক ফর এ বেটার বাংলাদেশ ট্রাস্ট্রের নির্বাহী পরিচালক সাইফু্দ্দিন আহমেদ; ধানমণ্ডি গভর্নমেন্ট বয়েজ হাইস্কুল, কচিকণ্ঠ হাই স্কুল, আইডিয়াল ক্যাডেট স্কুল এবং আলিফ আইডিয়াল স্কুলের শিক্ষক ও শিক্ষার্থী; বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি ও পেশাজীবীরা উপস্থিত ছিলেন।

এফ/০৮:৫৫/২৮ এপ্রিল

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে