Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 2.8/5 (11 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৪-২৭-২০১৬

সমুদ্রের নিচে ৬ বিস্ময়কর বাড়ি

সমুদ্রের নিচে ৬ বিস্ময়কর বাড়ি

আমরা আকাশ ছোঁয়া দালান দেখে অভ্যস্ত। ইদানিং অবশ্য মানুষ ভূগর্ভেও দালান বানাচ্ছে। তবে সেই দালানের সৌন্দর্য দেখা যায় না। কিন্তু দালান যদি হয় পানিতে? সাগরের গভীরে? সাগরের পরিষ্কার নীলচে কিংবা সবুজাভ পানির নিচের দালান দেখতে কেমন হবে? সেই দালানের সৌন্দর্য কি শুধু মানুষ দেখবে নাকি সাগরের প্রাণীরাও দূর থেকে অবাক হয়ে দেখবে এই জিনিস। সাগরের নিচে বাড়ি বানানো কঠিন ব্যাপার। ‍সেই কারণেই বোধ হয় এর সৌন্দর্যও অনেক বেশি। সমুদ্রের নিচের ছয়টি আশ্চর্য সুন্দর ভবনের কথা নিচে ধরা হল :


দ্য ওয়াটার ডিসকাস হোটেল : মধ্যপ্রাচ্যের দুবাইয়ে অবস্থিত এই হোটেলটির ডিজাইন স্বতন্ত্র। সমুদ্রের নিচে এই হোটেলে অবস্থান করে খুব কাছ থেকে দেখা যায় সমুদ্রের নিচের প্রাণীদের জীবন। তবে প্রাণীদের দেখতে আপনাকে পানিতে ভিজতে হবে না। ভবিষ্যতের বাড়ির ডিজাইনগুলোর মধ্যে এই বাড়িটি অন্যতম। ২০১২ সালে এই বাড়ি বানানোর ঘোষণা দেয়া হয়। গত বছর এই হোটেলটি সম্পন্ন হয়। এই হোটেলটি তৈরিতে খরচ হয়েছে ৪ কোটি ৫০ লাখ ডলার।


পৃথিবীর প্রথম পানির নিচের গ্রীণহাউজ : পৃথিবীতে অনেক গ্রীনহাউজ প্রকল্প রয়েছে তবে এর বেশিরভাগই মাটির ওপরে। ইটালির এই গ্রীণ হাউজটি পানির নিচে অবস্থিত। ওশান রিফ গ্রুপ এ ধরনের পাঁচটি ডুবন্ত জৈবমন্ডল বানিয়েছে। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে এই গ্রীণহাউজ ২০ ফুট নিচে অবস্থিত। যেসব এলাকার মাটিতে সারের পরিমাণ কম, সেসব এলাকায় কিভাবে ফসল উৎপাদন করা যায় তার একটি উৎকৃষ্ট উদাহরণ পানির নিচের এই গ্রীণ হাউজ।


প্লানেট ওশান আন্ডারওয়্যাটার হোটেল : যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডাতে এই হোটেলটি অবস্থিত। প্রবাল দ্বীপ রক্ষা করার স্লোগানে উদ্বুদ্ধ হয়ে বানানো এই হোটেলটি স্থান পরিবর্তন করতে সক্ষম। এতে ১২টি গেস্টরুম রয়েছে এবং ডাইনিংরুম রয়েছে। হোটেলের লবিও রয়েছে। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ২৮ ফিট নিচে এই হোটেলটি অবস্থিত। এলিভেটরের সাহায্যে গ্রাহকদের সমুদ্রের ওপর থেকে নিচে নিয়ে আসা হয়। এই হোটেলে থাকতে গেলে প্রতিরাতে গুণতে হবে ৩ হাজার ডলার।


পৃথিবীর বৃহৎ আন্ডারওয়াটার রেস্টুরেন্ট : সমুদ্রের নিচে বসে দুপুর বা রাতের খাবার খাচ্ছেন। পাশেই ঘুরে বেড়াচ্ছে হরেক রকমের মাছ। এমনটা আর ভাবনাতে নেই। মালদ্বীপের হুরাওয়ালহি আইল্যান্ড রেস্তোঁরায় বাস্তবে আপনি এ ধরনের আতিথীয়েতার সুযোগ নিতে পারবেন। এই রেস্তোঁরার দেয়ালগুলো বানানো হয়েছে স্বচ্ছ কাঁচ দিয়ে। নতুন হওয়া এই রেস্টুরেন্টে একসাথে ৩০ জন বসে খাবার গ্রহণ করতে পারে।


ভাসমান সি হর্স রিট্রেটস : দুবাইয়ে অবস্থিত নির্মানাধীন এই থাকার হোটেলটি সমুদ্রের নিচের স্থাপনাগুলোর মধ্যে অন্যতম। এই হোটেলের রুমের জানালা থেকে যে কোন সময় আপনি উপভোগ করতে পারবেন সমুদ্রের নিচের সৌন্দর্য্য। এই হোটেলের নির্মাতা ক্লেইনডাইনেস্ট গ্রুপ দাবি করছেন, হোটেলটি শুধু মানুষের বিনোদনের জন্য নয়, স্থানীয় সমুদ্রের প্রাণীদের জন্যও উপকারি। এতে দড়ি দিয়ে আলাদা একটি অঞ্চল বানানো হয়েছে যেখানে ডুবুরীরা বিশ্রাম গ্রহণ করতে পারবে। ৪২ ইউনিটের এই হোটেলটি শিগগিরই তাদের নির্মাণ কাজ সমাপ্ত করবে। এতে খরচ হয়েছে ১৮ কোটি ডলার।


মান্টা রিসোর্টস আন্ডারওয়্যাটার রুম : তানজেনিয়ার পেম্বা আইল্যান্ডে অবস্থিত পানির নিচের এই কক্ষটি বেশ আকর্ষণীয়। আফ্রিকাতে এটি প্রথম পানির নিচে থাকার ব্যবস্থা। সুইডেনের জেনবার্গ প্রতিষ্ঠান এই বাড়ির ডিজাইন করে। এই হোটেলে থাকলে আপনি যে কোন ডুবোজাহাজে থাকার অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পারবেন। প্রতিরাতে এই হোটেলে থাকতে খরচ হবে ১ হাজার ২০০ ডলার।

আর/১০:১৪/২৭ এপ্রিল

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে