Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৪-২৭-২০১৬

‘পদ বাণিজ্যে’র খবরে বিএনপিতে অস্বস্তি!

‘পদ বাণিজ্যে’র খবরে বিএনপিতে অস্বস্তি!

ঢাকা, ২৭ এপ্রিল- জাতীয় কাউন্সিলের পর ধীরে ধীরে কমিটি ঘোষণার কাজ চলছে এখন। কয়েক দফায় নতুন কমিটিতে দলের মহাসচিবসহ প্রায় অর্ধশত নেতার নাম ঘোষণা করার পর ‘পদ বাণিজ্যের’ অভিযোগ নিয়ে দলের দায়িত্বশীল নেতাদের মধ্যে অস্বস্তি বাড়ছে। দলের মধ্যে এ নিয়ে চলছে কানাঘুষা। প্রশ্নের মুখে পড়তে হচ্ছে দলের সিনিয়র নেতাদেরকেও। এ নিয়ে রীতিমতো চাপে পড়েছে দলের হাইকমান্ড। অর্থের বিনিময়ে পদ দেয়ার অভিযোগ নিয়ে গণমাধ্যমেও একাধিক প্রতিবেদন ছাপা হয়েছে।

প্রথম দিকে এ ইস্যুতে কথা বলতে না চাইলেও দলের ভেতরে চাপ বাড়তে থাকায় নড়েচড়ে বসেছে দলের দায়িত্বশীল নেতারা। সেই চিরাচরিত কায়দায় নেতারা বলছেন, গণমাধ্যমের এসব খবরের কোনো ভিত্তি নেই। আমরা গণমাধ্যমে প্রতিবাদপত্র পাঠিয়েছি। সোমবার বিকালে দলের পক্ষ থেকেও বিবৃতি দিয়ে এসব অভিযোগ খণ্ডন করার চেষ্টা করা হয়। গতকাল মঙ্গলবার আনুষ্ঠানিকভাবে সংবাদ সম্মেলনে এ নিয়ে বক্তব্য তুলে ধরে বিএনপি।

সেখানে বিএনপি নেতারা বলেছেন, যখন দল গুছিয়ে সাংগঠনিকভাবে শক্তিশালী হওয়ার চেষ্টা চলছে তখন একটি মহল বিএনপিকে নিয়ে ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। এর আগেও বিভিন্ন সময় বিএনপিকে হেয় প্রতিপন্ন করতে বিভিন্ন গণমাধ্যমে একাধিক সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় এখন দলের অনেক শীর্ষ নেতাকে জড়িয়ে ভিত্তিহীন সংবাদ প্রকাশ করা হচ্ছে। বিএনপি নেতাদের দাবি, গণমাধ্যমে যেন বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রকাশ পায়। এজন্য তারা গণমাধ্যমকর্মীদের সহযোগিতা চেয়েছেন। তবে যাদের বিরুদ্ধে ‘পদ বাণিজ্যের’ অভিযোগ সেসব নেতারাও আছেন অস্বস্তির মধ্যে। গত দুদিনে এমন  দুই নেতার সঙ্গে আলাপকালে এমনটাই মনে হয়েছে।

গত ১৯ মার্চ বিএনপির ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিল হয়। এখন পর্যন্ত প্রায় অর্ধশতাধিক পদের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। তবে পুরো কমিটি ঘোষণা করতে আরও কিছুদিন সময় চান বিএনপি প্রধান বেগম খালেদা জিয়া।

কমিটি গঠন নিয়ে যেসব নেতার বিরুদ্ধে অর্থ নেয়ার অভিযোগ রয়েছে তাদের মধ্যে কতিপয় চিহ্নিত নেতা ছাড়াও চেয়ারপারসনের কার্যালয়ের প্রভাবশালী কর্মকর্তার নাম এসেছে। দলের সহ-দপ্তর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপুর ব্যক্তিগত ব্যাংক অ্যাকাউন্টে অস্বাভাবিক লেনদেনের খবর প্রকাশের পর দলের মধ্যে ঝড় শুরু হয়েছে।

এছাড়াও পৌরসভা ও চলমান ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থী বাছাই প্রক্রিয়ার সঙ্গে যুক্ত নেতাদের বিরুদ্ধে আর্থিক লেনদেনের খবর পত্র-পত্রিকায় প্রকাশিত হচ্ছে। বিএনপির পক্ষ থেকে এসব অভিযোগকে ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দেয়া হলেও এসব খবর এখন নেতাকর্মীদের মুখে মুখে।

মঙ্গলবার নয়াপল্টনে যুবদলের একজন কেন্দ্রীয় নেতা বলেন, ‘অতীতেও এমন ঘটনা ঘটেছে,সামনেও ঘটবে। এই চক্র অনেক শক্তিশালী তাই কেউ সরাসরি মুখ খুলবে না।’

এদিকে গত শুক্রবার থেকে বিভিন্ন গণমাধ্যমে এসব খবর প্রকাশ পেলেও বিএনপির পক্ষ থেকে এ নিয়ে প্রকাশ্যে কেউ কথা বলেননি। এমনকি সোমবার সকালে দলের সংবাদ সম্মেলনে এই প্রসঙ্গে কথা বলতে চাইলে সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী তা এড়িয়ে যান। তবে বিকাল গড়াতে না গড়াতে গণমাধ্যমে একে একে নিজেদের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের প্রতিবাদ জানিয়ে বিবৃতি দেন সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আউয়াল খান, নির্বাহী কমিটির সদস্য বেলাল হোসেন। একইসময়ে দলের পক্ষ থেকে বিএনপিকে জড়িয়ে সংবাদের প্রতিবাদ জানান মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এর আগে প্রতিবাদ দেন তাইফুল ইসলাম টিপু।

যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ সেসব নেতারা তা অস্বীকার করলেও দলের বিভিন্ন সূত্রে ভিন্ন খবর জানা গেছে। এদের একজনকে প্রথম দফা ইউপি নির্বাচনে অর্থের বিনিময়ে মনোনয়ন দেয়ার অভিযোগে গুলশান কার্যালয় থেকে বের করে দেয়া হয়েছিল বলে খবর আছে। ওইসময় অন্য একজনকে আর্থিক লেনদেনের অভিযোগে প্রার্থী মনোনয়ন প্রক্রিয়ার কাজ থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়।

এদিকে পদ পদবি নিয়ে বাণিজ্যের বিষয়টি মানতে নারাজ বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার। ঢাকাটাইমসকে তিনি বলেন, ‘বিচ্ছিন্নভাবে এমন ঘটনা ঘটতে পারে। তাই বলে কোটি কোটি টাকার বাণিজ্যের কথা বলা হচ্ছে এটা বিশ্বাসযোগ্য নয়।’ এ বিষয়ে কথা বলতে বিএনপির একজন ভাইস চেয়ারম্যানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোনো কথা বলতে অপারগতা প্রকাশ করেন।

এফ/১৬:০৯/২৭ এপ্রিল

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে