Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 1.1/5 (9 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৪-২৬-২০১৬

প্রাচীন এই আধ্যাত্মিক ক্ষমতাগুলো এখনো যদি থাকত!

আফসানা সুমী


প্রাচীন এই আধ্যাত্মিক ক্ষমতাগুলো এখনো যদি থাকত!

প্রাচীন পৃথিবী নিয়ে প্রচলিত আছে অনেক পৌরাণিক কথা। অনেকে মনে করেন, আগে মানুষ ছিল শুদ্ধ, পবিত্র। হিন্দু পূরাণে সত্য যুগের কথা তো আমরা শুনেছি। সে সময় মানুষ যা বলত তাই নাকি ঘটত। নানান রকম অভিশাপের কথা শুনি আমরা। কোন ঈশ্বরভক্ত যদি অভিশাপ দিত ঠিক সেই ক্ষতিটি অবশ্যই হত যত বছর পরই হোক না কেন! কারও ছোঁয়ায় আবার রোগমুক্তি হত, কারও আশির্বাদে পূর্ণ হত মনের ইচ্ছা। তবে এসব কোনকিছুর অস্তিত্বই এখন আর নেই। আসুন জেনে নিই কি কি আধ্যাত্মিক ক্ষমতা মানুষের আছে বলে বিশ্বাস করা হত।
 
সাইকোকাইনেটিক ক্ষমতা
'কাইনেসিস' প্রত্যয়টি এসেছে প্রাচীন গ্রীক শব্দ ‘kínēsis’ থেকে। এর অর্থ হচ্ছে গতি বা নড়াচড়া। টেলেকাইনেসিস বা সাইকোকাইনেটিক বলতে বোঝানো হয় শরীরের সাথে কোন সংযোগ ছাড়াই শারীরিক ক্রিয়ার উপর প্রভাব বিস্তার করা। সহজ কথায় টেলেকাইনেসিস হল কোন বস্তুকে সরানো, মোড়ানো, শুন্যে ভাসানো। এই ক্ষমতা দিয়ে মানুষ অনেক কিছুই নিয়ন্ত্রণ করতে পারত, যেমন পানি, বাতাস, বিদ্যুৎ, মাধ্যাকর্ষণ বল, তাপ শক্তি ইত্যাদি। বিভিন্ন রকম ক্ষমতা এখানে একত্রিত, তাই প্রয়োগও বিভিন্ন।
 
ভবিষ্যত জেনে ফেলার ক্ষমতা এবং স্ক্রাইং
ভবিষ্যতবক্তাদের কথা তো আমরা শুনেছি। বিশ্বাস করা হত, কিছু মানুষ ছিলেন যারা ভবিষ্যত আগেই টের পেয়ে যান। অন্যদিকে স্ক্রাইং হল এমন এক রহস্যময় পদ্ধতি যেখানে কোন স্ফটিক বল অথবা এক বোল তরলের দিকে তাকিয়ে সেখানে দেখে ফেলা যায় ভবিষ্যতের প্রতিচ্ছবি। শুধু ভবিষ্যত নয়, স্ক্রাইং এর মাধ্যমে দেখা যেত অতীতও। বিভিন্ন রূপকথা, পৌরাণিক গল্পে আমরা এই পদ্ধতির উল্লেখ পাই। এধরনের আধ্যাত্মিক ক্ষমতার অধিকারী ব্যক্তি যদি বর্তমানেও থাকত তাহলে ভূমিকম্পসহ কত প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের খবর পেয়ে যেতাম আমরা আগে থেকেই।
 
রিট্রোকগনিশন
রিট্রোকগনিশন হল এমন এক ক্ষমতা যা অতীত সম্পর্কে এমন সব তথ্য বের করে যা বর্তমানে আর পাওয়া সম্ভব নয়। শুনতে সাধারণ হলেও এটি কিন্তু জটিল এক ক্ষমতা। এই ক্ষমতার সাহায্যে বের করা হত আসল সত্যকে যা হয়ত চাপা পড়ে গিয়েছিল বা গোপন করা হয়েছিল। অনেক তথ্য জানা যেত যা বর্তমানের সিদ্ধান্তকে বদলে দিতে পারত।
 
হিপনোসিস
যে প্রক্রিয়ায় একজন মানুষ অন্য একজন মানুষের অবচেতন মনের ভেতর প্রবেশ করতে পারেন এবং তার মনকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন তাকে হিপনোসিস বলে। হিপনোটাইজ করা মানুষের সম্পূর্ণ মস্তিষ্ক ওপর ব্যক্তিটির সরাসরি প্রভাবে চলে আসে। শুনতে ভয়ংকর লাগলেও মনোরোগ চিকিৎসার জন্য কাজে লাগে পদ্ধতিটি। অনেক সময় রোগী কোনভাবেই নিজের কথা খুলে বলতে চায় না। তখন এভাবেই তার মধ্য থেকে সত্য বের করে আনা হয়।
 
টেলেপোর্টেশন
টেলেপোর্টেশন বা টেলেট্রান্সপোর্টেশন একটি মজার আধ্যাত্মিক ক্ষমতা। এরকম ক্ষমতাবান একজন ব্যক্তি এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় ভ্রমণ করতে পারেন বাস্তবে কোন যানবাহনে বা পায়ে হেটে বা শারীরিক নড়াচড়ার মাধ্যমে সেখানে না যেয়ে। অর্থাৎ, তিনি মনে মনে ভাবলেন যে তিনি ওই জায়গায় যাবেন আর পৌঁছে গেলেন। ভাবুন দেখি, কি মজার ক্ষমতা। আমাদের যদি এমন ক্ষমতা থাকত, রাস্তাঘাটে যানজট বলে কিছু থাকত না। কত সময় বেঁচে যেত!

আর/১৭:৩৪/২৬ এপ্রিল

জানা-অজানা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে