Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৪-২৪-২০১৬

বন্যা ঝুঁকিতে গুগল ও ফেসবুকের হেডকোয়ার্টার

আরিফ আরমান বাদল


বন্যা ঝুঁকিতে গুগল ও ফেসবুকের হেডকোয়ার্টার

ক্যালিফোর্নিয়া, ২৪ এপ্রিল- ফেসবুক এর হেডকোয়ার্টারের আঙিনায় যে টিলা তৈরি করেছে তা ১.৬ ফুটের মতো সমুদ্রের পানি উঠলেই বন্যায় ভাসিয়ে নিয়ে যাবে। আর এ শতকের মধ্যেই তা হতে পারে। বৈশ্বিক উষ্ণতার দরুন সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বাড়ায় সারা বিশ্বজুড়েই তীব্র শঙ্কা বিরাজ করছে। আর তার বাইরে নেই সিলিকন ভ্যালেস্থ বিশ্ব শাসন করা প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোও। জানা গেছে ভয়ঙ্কর বন্যা ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে ফেসবুক ও গুগল এবং সিসকোর মতো প্রতিষ্ঠানগুলোর ক্যাম্পাস।

সম্প্রতি একদল বিজ্ঞানী এক পূর্বাভাসে জানিয়েছে, সানফ্রান্সিসকো উপসাগরীয় এলাকায় সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বাড়ার ফলে এই তিন প্রতিষ্ঠানের হেডকোয়ার্টার বন্যার কবলে পড়বে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘কোনধরণের বিশেষ অভিযোজন ব্যবস্থা ছাড়াই নির্মিত ফেসবুকের নতুন ক্যাম্পাস সবচেয়ে বড় ঝুঁকির মধ্যে আছে। ফেসবুকের ক্যাম্পাসটি সান ফ্রান্সিসকো উপসাগারীয় অঞ্চলে ৪৩০,০০০ স্কয়ার ফুট এলাকা জুড়ে অবস্থিত।

এ ব্যাপারে ক্যালিফোর্নিয়া উপসাগরীয় কনজারভেশন এবং ডেভেলপমেন্ট কমিশনের জ্যৈষ্ঠ পরিকল্পক লিন্ডি লোওই বলেন, ’ফেসবুক খুবই আশঙ্গাজনক অবস্থায় আছে। তারা খুবই নিম্ম সমতল ভূমিতে বিল্ডিং তৈরি করেছে। আমি জানিনা তারা কোন আক্কেলে এরকম জায়গা পছন্দ করেছিল। ফেসবুক ভাবে, অনেক টাকা ব্যয় করলেই হয়তো নিজেদের রক্ষা করা যাবে।’ 


ফেসবুক এর হেডকোয়ার্টারের আঙিনায় যে টিলা তৈরি করেছে তা ১.৬ ফুটের মতো সমুদ্রের পানি উঠলেই বন্যায় ভাসিয়ে নিয়ে যাবে। আর এ শতকের মধ্যেই তা হতে পারে। গুগলের অফিসটি মাউন্টেন ভিউ এবং প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান সিসকোর হেডকোয়ার্টার সান জোসে অবস্থিত। যেভাবে এন্টার্কটিকার বরফ গলছে তাতে সমুদ্র পৃষ্ঠ ৬ফুট পরিমাণ বাড়লেই এ দুটি বিল্ডিংও প্লাবিত হবে।

এ ব্যাপারে ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া-বার্কলের পরিবেশ পরিকল্পনা এবং নগরায়ণ বিশেষজ্ঞ ক্রিস্টিনা হিল বলেন, ‘পানি অল্প একটু বাড়লেই গুগলপ্লেক্সসহ ওখানকার বিল্ডিংগুলো প্লাবিত হবে। গুগল এবং ফেসবুককে অবশ্যই তাদের ক্যাম্পাস পুনরায় অন্য কোন স্থানে নির্মাণ করতে হবে।’

উল্লেখ্য, উপসাগারীয় অঞ্চলটিতে অন্তত ১০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার সমমূল্যের সম্পদ সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতার ফলে বন্যা, ঝড়ের ঝুঁকিতে রয়েছে।

সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া

এফ/০৮:২০/২৪ এপ্রিল

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে