Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৪-২২-২০১৬

যুক্তরাজ্যে কার্গো চালুতে ২৯ এপ্রিলের পর সিদ্ধান্ত: মেনন

যুক্তরাজ্যে কার্গো চালুতে ২৯ এপ্রিলের পর সিদ্ধান্ত: মেনন

ঢাকা, ২২ এপ্রিল- ঢাকা থেকে যুক্তরাজ্যে সরাসরি কার্গো ফ্লাইট কবে চালু হবে এ ব্যাপারে ২৯ এপ্রিলের পর সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন।

শুক্রবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে ‘মিট দ্য রিপোর্টার্স’ আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা জানান।

অপর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থার কারণ দেখিয়ে গত ৯ মার্চ ঢাকা থেকে যুক্তরাজ্যে সরাসরি কার্গো ফ্লাইট চলাচল সাময়িক বন্ধ ঘোষণা করে যুক্তরাজ্য।

মন্ত্রী বলেন, ‘যুক্তরাজ্য কর্তৃপক্ষ বলেছে, নিরাপত্তার বিষয়টি নিশ্চিত হলে পুনরায় কার্গো ফ্লাইট চালু করে দেওয়া হবে। এ নিয়ে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। চিঠির মাধ্যমে সে দেশের সরকার জানিয়েছে, আমাদের গৃহীত পদক্ষেপে তারা সন্তুষ্ট। এ বিষয়টি খতিয়ে দেখতে আগামী ২৯ এপ্রিল ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) একটি প্রতিনিধিদল শাহজালাল বিমানবন্দর পর্যবেক্ষণে আসবে। তারপর তাদের প্রতিবেদনের ওপর ভিত্তি করেই কার্গো ফ্লাইট চালু হওয়ার বিষয়টি নির্ভর করছে।’

হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানববন্দরে নিরাপত্তার উন্নয়নে বেসরকারি ব্রিটিশ কোম্পানি রেডলাইন এভিয়েশন সিকিউরিটিজের সঙ্গে ২১ মার্চ চুক্তি স্বাক্ষর করে সরকার। এর এক দিন পর থেকেই নিরাপত্তার দায়িত্ব বুঝে নিয়ে কাজ শুরু করে দিয়েছে কোম্পানিটি। দায়িত্ব গ্রহণের পর স্ক্যানিং ব্যবস্থা ও যাত্রী সেবায় কর্মকর্তাদের দক্ষ করে গড়ে তোলার আশ্বাস দিয়েছে রেডলাইন।

এ বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘পৃথিবীব্যাপী সন্ত্রাস ও অন্যান্য ঘটনার কারণে সব জায়গায় ভীতিকর অবস্থা বিরাজ করছে। এজন্য প্রত্যেকটি দেশই তাদের নিরাপত্তা ব্যবস্থা ঢেলে সাজাচ্ছে। এই ভীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টির পর শুধু বাংলাদেশ নয় বিশ্বের ১৮টি দেশের ৩০ টি বিমানবন্দরেই পর্যবেক্ষণ শুরু করে যুক্তরাজ্য। এরপর তারা আমাদের নিরাপত্তার দুর্বলতার অজুহাতে বিমানবন্দর থেকে কার্গো ফ্লাইট বন্ধ করে দেয়। এজন্য আমরা কনসাটেন্সি হিসেবে রেডলাইনকে নিয়োজিত করেছি। তাদের সাথে আমাদের ২ বছরের চুক্তি হয়েছে। কিন্তু আমাদের আমরা নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিতে নিজেরা স্বাবলম্বী হয়ে গেলে, লক্ষ্য পূরণ হলে যে কোনো সময়ই তাদের সাথে চুক্তি শেষ করে দিতে পারি।’

‘রেডলাইন বিমানবন্দরের নিরাপত্তা জোরদারে অ্যাডভাইজিং, অপারেশন ও ট্রেনিং এই তিনটি বিষয়ে কাজ করছে। ইতোমধ্যে তারা আমাদের ৬০ জন স্কেনারকে ট্রেনিং দিয়েছে’ বলেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশের পর্যটন খাতের সম্ভাবনা ও সরকারের কর্মপরিকল্পনার বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরেন মন্ত্রী। ২০১৬ পর্যটন বর্ষ উপলক্ষে দেশে ২০১৬-১৭ সালে ১৫ শতাংশ পর্যটক বৃদ্ধি, ১৭ সালে ১৮ শতাংশ ও ১৮ সালে ২০ শতাংশ পর্যটক বৃদ্ধির পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানান তিনি।

এছাড়া ২০১৮ সালের মধ্যে কক্সবাজার বিমানবন্দরকে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পরিণত করা হবে বলেও জানান মন্ত্রী।

বিএনপির ঐক্য ভাঙতে সরকার পরিকল্পনা করে তৃণমূল বিএনপি প্রতিষ্ঠা করছে এমন অভিযোগের ব্যাপারে জানতে চাইলে সরকারের এই মন্ত্রী বলেন, ‘রাজনৈতিক দলকে নিজেদের যোগ্যতাতেই ঐক্য ধরে রাখতে হয়। নিজেদের ঐক্য থাকলে কেউ এসে ভেঙে দিতে পারে না।’

আর/১৭:১৪/২২ এপ্রিল

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে