Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৪-২২-২০১৬

ফের ৫ দিনের রিমান্ডে শফিক রেহমান

ফের ৫ দিনের রিমান্ডে শফিক রেহমান

ঢাকা, ২২ এপ্রিল- যুক্তরাষ্ট্রে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়কে অপহরণ ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগের মামলায় সিনিয়র সাংবাদিক শফিক রেহমানকে ফের ৫ দিনের রিমান্ডে পেয়েছে ডিবি পুলিশ।
 
শুক্রবার নতুন করে ৭ দিনের রিমান্ড আবেদনের শুনানি শেষে ফের ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদুল হাসান।
 
এদিন, গত ১৬ এপ্রিল মঞ্জুর হওয়া ৫ দিনের রিমান্ড শেষে তাকে আরও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে হাজির করে নতুন করে সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন ডিবির সহকারী পুলিশ সুপার হাসান আরাফাত।
 
বেলা ৩টার দিকে ওই রিমান্ড আবেদনের শুনানি শুরু হয়। এদিকে, তার রিমান্ড আবেদন নাকচ করে তার সুষ্ঠু চিকিৎসার ব্যবস্থা করার জন্য শুনানিতে অংশ নেন অ্যাডভোকেট সানাউল্লা মিয়া, অ্যাডভোকেট মাসুদ আহমেদ তালুকদারসহ বিএনপি দলীয় আইনজীবীরা।
 
এর আগে গত ১৬ এপ্রিল তাকে ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছিল ঢাকার সিএমএম আদালত।
 
ওইদিনই রাজধানীর ইস্কাটনের নিজ বাসা থেকে সকালে তাকে গ্রেপ্তার করে গোয়েন্দা পুলিশ।
 
রিমান্ডে থাকা অবস্থায় গত ১৯ এপ্রিল শফিক রেহমানকে সঙ্গে নিয়েই তার বাসায় অভিযান চালায় ডিবি। সেখান থেকে জয় সম্পর্কে অর্থের বিনিময়ে এফবিআইয়ের এজেন্টের দেয়া নথিপত্র পেয়েছেন গোয়েন্দারা। সেগুলো জব্দ করা হয়।

এছাড়া রিমান্ডে জয়কে অপহরণ ও হত্যার চক্রান্তে যুক্তরাষ্ট্রে দণ্ডিতদের সঙ্গে একাধিক বৈঠকের কথা স্বীকার করেছেন শফিক রেহমান- দাবি ঢাকা মহানগর পুলিশের মুখপাত্র মনিরুল ইসলামের।

তিনি আরও জানান, এই চক্রান্তের সঙ্গে বিএনপির হাইকমান্ডের আর কেউ জড়িত আছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

ডিএমপির মুখপাত্র সাংবাদিকদের জানান, রিমান্ডে শফিক রেহমান জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের আদালতে দণ্ডিত রিজভী আহমেদ সিজার, এফবিআই এজেন্ট রবার্ট লাস্টিক এবং এ দুজনের মধ্যস্থতাকারী লাস্টিকের বন্ধু জোহানেস থালের সঙ্গে বেশ কয়েকবার বৈঠক করেছেন তিনি।

এছাড়া এ ঘটনায় আমার দেশ পত্রিকার সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের সম্পৃক্ততা আছে বলেও জানিয়েছেন মনিরুল ইসলাম।

এ সময় তিনি আরো বলেন, ‘বিএনপির উচ্চ পর্যায়ের নেতারা জড়িত আছে কি না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’

এদিকে, এই হত্যা মামলা তদন্তের জন্য ডিএমপির একটি গোয়েন্দা দল যুক্তরাষ্ট্রে যাবে বলেও জানান তিনি।

এর আগে দুপুরে (১৯ এপ্রিল) রাজধানীর মিন্টু রোডের ডিবি কার্যালয়ে ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার মো. মনিরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, ‘জয় হত্যা চেষ্টার পরিকল্পনার বিষয়ে একাধিক বৈঠকে যোগ দেয়ার কথা স্বীকার করেছেন রিমান্ডে শফিক রেহমান।’

মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘ওই পরিকল্পনায় যারা অংশ নেবে তারাও বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বলে স্বীকার করেন তিনি।

তিনি আরো বলেন, ‘রিমান্ডে বৈঠকসহ বিভিন্ন বিষয়ে তথ্য পাওয়া গেছে- সেগুলো কর্মকর্তারা তদন্ত করে দেখছেন তবে এছাড়া তদন্তের স্বার্থে এখন সবকিছু বলা যাচ্ছে না।’

শফিক রেহমানকে গ্রেপ্তার দেখানো ও পরে রিমান্ডে নেয়া এই মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, জাসাসের সহ-সভাপতি যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী মোহাম্মদ উল্লাহ মামুন এবং দেশে ও দেশের বাইরে অবস্থানরত বিএনপির উচ্চ পর্যায়ের নেতারা জয়কে অপহরণ ও হত্যার ষড়যন্ত্র করছে। প্রাপ্ত তথ্যসমূহ পর্যালোচনা করে সন্দেহ করা হচ্ছে যে, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, বাংলাদেশসহ বিশ্বের যে কোনো দেশে বিএনপির উচ্চ পর্যায়ের নেতৃত্ব উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের জীবননাশসহ যে কোনো ধরনের ক্ষতির ষড়যন্ত্রে লিপ্ত আছেন। এই ষড়যন্ত্র বাস্তবায়নে বিএনপির হাই কমান্ড দেশ ও দেশের বাইরে থেকে অর্থায়ন করছে।
 
২০১৫ সালের ৪ আগস্ট ডিবির পরিদর্শক ফজলুর রহমান এ বিষয়ে পল্টন থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন, যা পরে মামলায় রূপান্তরিত হয়। শফিক রেহমানকে ওই মামলাতেই গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।
 
২০১৫ সালে এফবিআইকে ঘুষ দেয়ার কারণে মামুনের ছেলে রিজভী আহমেদ সিজারকে ৪২ মাসের  কারাদণ্ড প্রদান করে দেশটির আদালত। বাংলাদেশি এক রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে সংরক্ষিত তথ্য পেতে ২০১১ সালে এফবিআইয়ের স্পেশাল এজেন্ট রবার্ট লাস্টিককে এ ঘুষ দেয়া হয়।
 
বাংলাদেশি ওই রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের নাম মার্কিন আদালতের নথিপত্রে উহ্য রাখা হলেও যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা জয়ই সে ব্যক্তি বলে আওয়ামী লীগের পক্ষ দাবি করা হয়।

আর/১৭:১৪/২২ এপ্রিল

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে