Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 1.1/5 (7 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৪-২২-২০১৬

দেড়শো মিটার দে ছুট! মত্ত যুবককে পাকড়ালেন মন্ত্রী বাবুল

দেড়শো মিটার দে ছুট! মত্ত যুবককে পাকড়ালেন মন্ত্রী বাবুল

কলকাতা, ২২ এপ্রিল- উত্তর কলকাতার সরু গলি দিয়ে দৌড়ে ‘মত্ত’ যুবককে ধরে ফেললেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। পারবেন জেনেই দৌড়েছিলেন আসানসোলের বিজেপি সাংসদ। কারণ, কয়েকদিন আগেই অলিম্পিক্সে পদকজয়ী রাইফেল শ্যুটার তথা তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রকের মন্ত্রী রাজ্যবর্ধন সিংহ রাঠৌরের ১৮ বছরের ছেলেকে ১০০ মিটার দৌড়ে হারিয়েছেন বাবুল!

উত্তর কলকাতার সরু গলি দিয়ে দৌড়ে ‘মত্ত’ যুবককে ধরে ফেললেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। পারবেন জেনেই দৌড়েছিলেন আসানসোলের বিজেপি সাংসদ। কারণ, কয়েকদিন আগেই অলিম্পিক্সে পদকজয়ী রাইফেল শ্যুটার তথা তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রকের মন্ত্রী রাজ্যবর্ধন সিংহ রাঠৌরের ১৮ বছরের ছেলেকে ১০০ মিটার দৌড়ে হারিয়েছেন বাবুল! নরেন্দ্র মোদীর মন্ত্রিসভায় সহকর্মীর সেই দৌড় দেখে রাজ্যবর্ধন বলেছিলেন, ‘‘কি করেছো!’’ আর বৃহস্পতিবারের দৌড়ের পরে বাবুল বললেন, ‘‘আরেকবার দেখে নিলাম। ঠিকই আছে।’’

ঘটনার সূত্রপাত এদিন বিকেল সাড়ে তিনটে নাগাদ। জোড়াসাঁকো বিধানসভার অন্তর্গত বিধান সরণি সংলগ্ন আর্যকন্যা স্কুলে বাবা-মা’কে সঙ্গে নিয়ে ভোট দিতে গিয়েছিলেন বাবুল। কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে ভোটকেন্দ্রে দেখে উৎসাহী জনতার ভিড় বাড়তে থাকে। তারই প্রেক্ষিতে বাবুলের বিরুদ্ধে ১৪৪ ধারা লঙ্ঘনের অভিযোগ করেন এক তৃণমূলকর্মী।
উত্তপ্ত কথা কাটাকাটির মধ্যেই যুবকের কাছে মুখ নিয়ে গিয়ে বাবুল অভিযোগ করেন, ‘‘আরে এ মদ খেয়েছে!’’ এরপরই দ্রুত বদলে যায় পরিস্থিতি। এতক্ষণ যিনি মন্ত্রীকে আঙুল উঁচিয়ে হুঁশিয়ারি দিচ্ছিলেন তিনিই জটলা থেকে দূরত্ব তৈরি করে দ্রুত পায়ের গতি বাড়াতে থাকেন। ওই যুবককে ধরতে দৌড়ন আসানসোলের সাংসদও।


প্রায় ১৫০ মিটার দৌড়ের পরে প্রতিক্রিয়া দেওয়ার সময় একটু হাঁফাচ্ছিলেন ঠিকই। তবে দৌড় সম্পর্কে প্রশ্ন করলেই জবাব, ‘‘ফিটনেসটা দেখেছো!’’ দু’সপ্তাহ আগে রক্তচাপ মেপে দেখেছেন ১২৮/৮৫। হৃদস্পন্দন ৭৪ থেকে ৭৬’এর ঘরে ঘোরাফেরা করছে। এদিনের দৌড়ের পরে রক্তচাপ, হৃদস্পন্দন সব স্বাভাবিকই বলে জানালেন বাবুল।
তবে দৌড় শেষে এদিনের নাটকের শেষ হয়নি। তৃণমূলকর্মীর সঙ্গে বচসা এবং তাঁকে তাড়া করে ধরে ফেলার খবর চাউর হতেই ঘটনাস্থলে চলে আসেন জোড়াসাঁকোর তৃণমূলপ্রার্থী স্মিতা বক্সি। কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর সঙ্গে তর্ক জুড়ে দেন স্মিতার নির্বাচনী এজেন্ট। পরিস্থিতি শান্ত করতে অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (৩) রাজীব মিশ্র ঘটনাস্থলে পৌঁছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর কাছে কী হয়েছে জানতে চান। কিন্তু কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর সঙ্গেও তর্ক জুড়ে দিয়ে বাবুল বলেন, ‘‘আমি কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। আপনি পুলিশ। আপনিই জেনে নিন কী হয়েছে!’’ যার প্রেক্ষিতে ওই পুলিশকর্তা বলেন, ‘‘দয়া করে আমাকে ডিউটি শেখাবেন না। আপনি ক্ষমতা দেখাবেন না।’’ এদিনের ঘটনার জন্য বাবুলকেই দায়ী করেছেন স্মিতা। যদিও বাবুল তা মানতে নারাজ।

দিনের শেষে চর্চায় অবশ্য কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর দৌড়ই! ঘটনাচক্রে, এদিনই রাজ্যে নির্বাচনী সফরে এসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। প্রধানমন্ত্রীকে বললেন দৌড়ের কথা? বাবুলের জবাব, ‘‘নিজের মুখে কি এসব বলা যায়!’’

আর/০৮:৪৪/২২ এপ্রিল

পশ্চিমবঙ্গ

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে