Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৪-২১-২০১৬

পানামা পেপার্স : নতুন প্রমাণ, দমে গেছেন বিগ বি

পানামা পেপার্স : নতুন প্রমাণ, দমে গেছেন বিগ বি

মুম্বাই, ২১ এপ্রিল- কর ফাঁকি ও অর্থপাচারের বিপুল সংখ্যক নথি ফাঁস করে হইচই ফেলে দিয়েছে সাংবাদিকদের একটি জোট। বিশ্বের বাঘা বাঘা রাষ্ট্রনায়করাসহ সেই ‘পানামা পেপার্স’ নামে সেইসব নথিতে নাম এসেছে বলিউড তারকা অমিতাভ বচ্চন ও তার পুত্রবধূ ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চনেরও।

তবে এই খবর প্রকাশের সঙ্গে সঙ্গে অভিযোগ অস্বীকার করেন অমিতাভ ও ঐশ্বরিয়া। সেই নথিতে যেসব কোম্পানির সঙ্গে তাদের সংশ্লিষ্টতার কথা বলা হয়েছে সেগুলোর নামই শোনেননি বলে দাবি করেছিলেন।

কিন্তু এবার নতুন নথিপত্রে কয়েকটি অফশোর কোম্পানির সঙ্গে ভারতের অমিতাভ বচ্চনের যোগাযোগের নতুন প্রমাণ সামনে এসেছে। আর এরপরই এর তদন্তে সব রকম সহযোগিতা করার আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।

অথচ এর আগে অমিতাভ বলেছিলৈন, ‘আমি কোনও দিনই এই কোম্পানিগুলোর বোর্ডে ডিরেক্টর হিসেবে ছিলাম না। ফলে আমার নাম কীভাবে এই কোম্পানিগুলোর সঙ্গে জড়ানো হচ্ছে তা আমি নিজেও জানতে উৎসুক।’

পানামা পেপার্স তদন্তে যুক্ত হয়েছে ভারতীয় পত্রিকা ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস। তাদের পক্ষ থেকে প্রকাশ করা নতুন নথিতে দাবি করা হচ্ছে, অমিতাভ বচ্চন পানামা-ভিত্তিক দুটি কোম্পানি ট্র্যাম্প শিপিং লিমিটেড ও সি বাল্ক শিপিং কোম্পানির ডিরেক্টরদের বোর্ড মিটিংয়ে অংশ নিয়েছিলেন।

এই নথিতে দেখা গেছে, ১৯৯৪ সালের ডিসেম্বরে টেলিফোন কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে তিনি ওই বোর্ড মিটিংয়ে যোগ দেন। দুটি কোম্পানির ডিরেক্টরদের তালিকা এবং ‘সার্টিফিকেট অব ইনকামবেন্সি’তে পদাধিকারীদের মধ্যেও তার নাম ছিল।

এই নতুন খবর প্রকাশের পরই বৃহস্পতিবার অমিতাভ বচ্চন একটি বিবৃতি দিয়ে বলেছেন, ‘সরকার দশদিন আগেই আমাকে একটি নোটিশ পাঠিয়েছিল এবং তাতে তোলা সব প্রশ্নেরই আমি জবাব দিয়েছি। আমি তদন্তে সব রকম সহযোগিতা চালিয়ে যেতে প্রস্তুত।’

বিবৃতিতে তিনি আরও বলেন, ‘সরকার যদি আমার কাছে আরও কিছু জানতে চায় তাহলে আমি অবশ্যই জানাব। আমাদের উচিত হবে সরকারকে তাদের কাজ চালিয়ে যেতে দেয়া।’

পানামা পেপার্সের তদন্তের সূত্র ধরে ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস এর আগে জানিয়েছিল, ১৯৯৩ থেকে ১৯৯৭ সালের মধ্যে অমিতাভ বচ্চন অন্তত চারটি অফশোর শিপিং কোম্পানির ডিরেক্টর পদে ছিলেন – যা ভারতের কেন্দ্রীয় ব্যাংক রিজার্ভ ব্যাংক অব ইন্ডিয়ার নীতিমালার পরিপন্থি।

পানামার আইনি সংস্থা মোসাক ফনসেকা থেকে ফাঁস হওয়া নথিপত্রে প্রায় শ’পাঁচেক ভারতীয় নাগরিকের নাম রয়েছে। এরা অফশোর ট্যাক্স হাভেনে অ্যাকাউন্ট খুলেছিলেন বা কোম্পানির পরিচালনায় যুক্ত ছিলেন।

তবে অমিতাভের নাম আসাতে খোদ ভারতের ভাবমূর্তিও কিছুটা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে তাতে সন্দেহ নেই। কারণ ভারত সরকারের পর্যটন বিভাগ তাদের ‘ইনক্রেডিবল ইন্ডিয়া’ ক্যাম্পেনের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর হিসেবে অমিতাভ বচ্চনের নাম ঘোষণা প্রায় চূড়ান্ত করে ফেলেছিল। কিন্তু সেটা এখন অনিশ্চিত হয়ে পড়লো।

সরকারি সূত্রগুলো বলছে, পানামা পেপার্স তদন্তে নিজেকে সম্পূর্ণ নির্দোষ প্রমাণ করতে পারার আগে অমিতাভকে ওই ক্যাম্পেনের অ্যাম্বাসেডর হিসেবে নিয়োগ করার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে।

এদিকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নিজে পানামা পেপার্সে নাম জড়ানো সব ভারতীয়র বিরুদ্ধে দ্রুত তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন।

মহারাষ্ট্র রাজ্যে বাঘ সংরক্ষণের জন্য অমিতাভ বচ্চন সরকারের যে ‘সেভ টাইগার’ প্রকল্পের জন্য ক্যাম্পেন চালিয়ে থাকেন, সেখান থেকেও তাকে সরানোর দাবি তুলেছে বিরোধী কংগ্রেস।

আর/১০:৩৪/২১ এপ্রিল

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে