Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 2.0/5 (2 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৪-১৮-২০১৬

বাতিল হচ্ছে শতাধিক ফিলিং স্টেশনের লাইসেন্স

সুজিত সাহা


বাতিল হচ্ছে শতাধিক ফিলিং স্টেশনের লাইসেন্স

ঢাকা, ১৮ এপ্রিল- নীতিমালার শর্ত ভেঙে অননুমোদিত উৎস থেকে জ্বালানি তেল সংগ্রহের অভিযোগ উঠেছে দেশের তিন শতাধিক ফিলিং স্টেশনের বিরুদ্ধে। দেড়শ প্রতিষ্ঠান সরেজমিন পরিদর্শন করে এর প্রমাণও পেয়েছে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন (বিপিসি)। এ অবস্থায় শতাধিক প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্স বাতিলের কথা ভাবছে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থাটি।

জানা গেছে, বিপিসির সরবরাহ করা জ্বালানি তেলের মান নিয়ে প্রশ্ন ওঠার পর দেশের বিভিন্ন ফিলিং স্টেশন সরেজমিন পরিদর্শন করে সংস্থাটির একটি দল। পরিদর্শনে বিপিসির তিন সরবরাহকারী কোম্পানি থেকে সংগ্রহ করা জ্বালানির বিপরীতে বিক্রি করা জ্বালানির পরিমাণ বেশি পাওয়া যায়। মূলত বেসরকারি কনডেনসেট পরিশোধনকারী প্রতিষ্ঠান থেকে কম দামে জ্বালানি তেল সংগ্রহের কারণেই এমনটা হয়েছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে দেশের প্রায় সাড়ে ৩০০ প্রতিষ্ঠানকে নোটিস দেয় সংশ্লিষ্ট তেল সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানগুলো। অননুমোদিত প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে জ্বালানি তেল সংগ্রহের অভিযোগে শতাধিক প্রতিষ্ঠানের  লাইসেন্স বাতিলের প্রক্রিয়া শুরু করেছে বিপিসি।

জানতে চাইলে বিপিসির পরিচালক (বিপণন) মীর আলী রেজা বলেন, অননুমোদিত উৎস থেকে জ্বালানি সংগ্রহ করায় আটটি প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্স বাতিল করা হয়েছে। আরো ১২০টি ফিলিং স্টেশনের বিরুদ্ধে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে। নিম্নমানের জ্বালানি বিক্রির মাধ্যমে চুক্তির শর্ত ভঙ্গ করায় এসব প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অভিযান চালানো হবে।

বিপিসির পরিদর্শন অনুযায়ী, বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার মেসার্স ইউনিক ফিলিং স্টেশন এ পর্যন্ত ১৭ লাখ ৮ হাজার ২৬৫ লিটার পেট্রল ও ডিজেল বিক্রি করে। অনুমোদিত সরবরাহকারীর বাইরে ভিন্ন উৎস থেকে সংগ্রহ করে প্রতিষ্ঠানটি ১৫ লাখ ১৪ হাজার ২৬৫ লিটার অতিরিক্ত জ্বালানি তেল বিক্রি করেছে। খুলনার বটিয়াঘাটা এলাকার মেসার্স রূপা পেট্রোলিয়াম অ্যান্ড সিএনজি ২৭ লাখ ২৫ হাজার ৩২২ লিটার, বাগেরহাটের মেসার্স শেখ ওসমান আলী ফিলিং স্টেশন ১৯ লাখ ১৬ হাজার ২৪০ লিটার, যশোরের মেসার্স সরদার ফিলিং স্টেশন ১২ লাখ ৫৮ হাজার ৪১৭ লিটার ও সানতলা এলাকার মেসার্স যশোর ফিলিং স্টেশন ১৩ লাখ ৫৭ হাজার ১০৪ লিটারের বাইরে দ্বিতীয় উৎস থেকে উল্লেখযোগ্য পরিমাণ জ্বালানি তেল সংগ্রহের পর বিক্রি করেছে; যা ফিলিং স্টেশনের লাইসেন্স প্রদান নীতিমালার ৩০ নং অনুচ্ছেদের লঙ্ঘন। নীতিমালায় বলা আছে, বিপিসির তিন সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান ছাড়া দ্বিতীয় উত্স থেকে জ্বালানি সংগ্রহ করলে লাইসেন্স বাতিল হবে। এর পরিপ্রেক্ষিতে সম্প্রতি বেশ কয়েকটি ফিলিং স্টেশনের লাইসেন্স বাতিলও হয়েছে।

বিপিসির ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা জানান, দেশে বর্তমানে সেচ মৌসুম চলছে। এ সময় আইন লঙ্ঘনকারী ফিলিং স্টেশনের লাইসেন্স বাতিল হলে কৃষকদের মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হতে পারে। সেচকাজে জ্বালানি সরবরাহ নিরবচ্ছিন্ন রাখতে তাই এখনই অভিযান চালানো হচ্ছে না। তবে সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের কাছে অভিযুক্ত ফিলিং স্টেশনের তালিকা এরই মধ্যে পাঠানো হয়েছে।

অভিযোগ রয়েছে, শুধু প্যাকড পয়েন্ট ডিলার হিসেবে লাইসেন্স নিয়ে যানবাহনে জ্বালানি তেল সরবরাহ করছে বেশকিছু প্রতিষ্ঠান। বিএসটিআই, বিস্ফোরক অধিদপ্তর ও জেলা প্রশাসনের দপ্তর থেকে তেল বিক্রির অনুমোদন নিয়ে দেশের বিভিন্ন জেলায় বিপিসির অনুমোদিত সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের পরিবর্তে চোরাই তেল কিংবা বেসরকারি কনডেনসেট পরিশোধন কোম্পানির কাছ থেকে জ্বালানি তেল সংগ্রহের পর তা সরবরাহ করছে তারা। এতে সরকার রাজস্ব হারানোর পাশাপাশি যানবাহনের ইঞ্জিন নষ্ট হওয়ার ঘটনা বাড়ছে। সম্প্রতি এ বিষয়ে সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে বিপিসির চেয়ারম্যানের কাছেও চিঠি দেয়া হয়েছে।

বিপণন বিভাগের তথ্যমতে, দেশে বিপিসির অধীন তিন বিপণন কোম্পানি পদ্মা, মেঘনা ও  যমুনা অনুমোদিত ফিলিং স্টেশন আছে ১ হাজার ৯০৭টি। এছাড়া প্যাকড পয়েন্ট ডিলার লাইসেন্স রয়েছে ৭৪৩টি। এজেন্ট বা ডিস্ট্রিবিউশন লাইসেন্স রয়েছে ৩ হাজার ৫৮০টি। বিপিসি দেশীয় চাহিদামতো বিশ্ববাজার থেকে জ্বালানি তেল আমদানি করে তিন সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে তা বিপণন করে। এছাড়া সরকারি-বেসরকারি ১৭টি ফ্র্যাকশনেশন প্লান্টের কাছ থেকে পরিশোধিত পেট্রোলিয়াম পণ্য সংগ্রহ করে সংস্থাটি। ২০১৪-১৫ মৌসুমে বিপিসি ৫৩ লাখ ২১ হাজার ৪২৩ টন জ্বালানি তেল বিক্রি করেছে। অন্যদিকে ছয়টি  ফ্র্যাকশনেশন প্লান্ট থেকে ১ লাখ ৯৯ হাজার ৩৬৮ টন ও বেসরকারি ১১টি প্লান্ট থেকে ১ লাখ ৪২ হাজার ১১৬ টন পেট্রোলিয়াম পণ্য সংগ্রহের পর বিপণন করেছে।

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে