Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 2.0/5 (11 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৪-১৭-২০১৬

হারিয়ে যাবে হাতিয়া! রক্ষার দাবি

হারিয়ে যাবে হাতিয়া! রক্ষার দাবি

নোয়াখালী, ১৭ এপ্রিল- মেঘনা নদীর তীব্র ভাঙনে হুমকির মুখে পড়েছে নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়া। নদী ভাঙন প্রতিরোধ করে দেশের মানচিত্রে হাতিয়ার অস্থিত্ব টিকিয়ে রাখার জোর দাবি তুলেছে ঢাকাস্থ হাতিয়াকেন্দ্রিক সংগঠনগুলো।

তাদের দাবি, ব্লক নির্মাণ ও মেঘনা থেকে ড্রেজার দিয়ে বালু তোলা বন্ধ করে অতি সত্বর হাতিয়াকে রক্ষার ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। একই সঙ্গে হাতিয়াকে জেলা ঘোষণারও দাবি জানানো হয়েছে।

রোববার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অনুষ্ঠিত এক মানববন্ধন থেকে এ দাবি জানায় হাতিয়া জেলা বাস্তবায়ন পরিষদ, উপকূল বাঁচাও আন্দোলন, আনলাইন গ্রুপ তিলোত্তমা হাতিয়া, হাতিয়া অনলাইন পেজ ও ঢাকাস্থ হাতিয়া ছাত্র ফোরাম।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, চর লরেন্স ও আটক পালিয়া মান্নান নগরে দুটি বাঁধের অভাবে হাতিয়ায় মেঘনা নদীর ভাঙন তীব্র আকার ধারণ করছে। নদী ভাঙন থেকে রক্ষা না করলে হাতিয়া মানচিত্র থেকে হারিয়ে যাবে। আশির দশকে হাতিয়ার চেয়ে আয়তনে ছোট ২০টি এলাকাকে জেলা করা হয়েছে। কিন্তু হাতিয়া দ্বীপ নোয়াখালী জেলার অন্যান্য সব উপজেলার আয়তনের চেয়ে বড় হলেও একে জেলা করা হয়নি। ‍

বক্তারা বলেন, অর্থনৈতিক জোন হওয়ার যোগ্যতা অর্জন করা সত্ত্বেও হাতিয়ার প্রতি সরকারের বিশেষ কোনো উদ্যোগ নেই। বৃহত্তর হাতিয়া বাংলাদেশের একমাত্র উপজেলা, যার অভ্যন্তরীণ নৌসীমা রয়েছে শতাধিক মাইল। পাশাপাশি সমুদ্রসীমাও রয়েছে।

বক্তারা আরো বলেন, বিগত ৫০ বছরে নদী ভাঙনের কারণে হাতিয়া দ্বীপের বহু মানুষ সহায় সম্বলহীন হয়ে পড়েছে। এদের রক্ষা করতে হলে দ্বীপের উত্তর পাশে ব্লক নির্মাণ করতে হবে।

পর্যটনের বিষয়টি তুলে ধরে বক্তারা বলেন, হাতিয়া দ্বীপের দক্ষিণে চর মিজান,  দমারচর, মাইদুল, নিঝুমদ্বীপ, ঢালচর, জাগলারচর, কাজির বাজার ও ভার্জিন সি বিচ রয়েছে। যেগুলো পর্যটনপ্রেমিদের কাছে অনেক প্রিয়। বিশাল আয়তনের হাতিয়া দ্বীপকে একটি থানা ও কয়েকটি পুলিশ ফাঁড়ি দিয়ে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হয় না। তাই একে জেলা ঘোষণা করে এর একাধিক অফিস আদালত স্থাপন করা প্রয়োজন।

মানববন্ধনে বক্তব্য দেন হাতিয়া জেলা বাস্তবায়ন পরিষদের আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট ফজলে আজীম তুহিন, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধ কমান্ডার বিনয় ভূষণ দাস, তিলোত্তমা হাতিয়ার পরিচালক ফৌজিহা সাফদার সোহেলী, সিপিবির উপজেলার সাধারণ সম্পাদক মাঈন উদ্দিন লেলিন, হাতিয়া জেলা বাস্তবায়ন পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক ফাহিম উদ্দিন, উপকূল বাঁচাও আন্দোলনের আহ্বায়ক সাংবাদিক শাহেদ শফিক, ছাইফুল ইসলাম মাসুম, কামরুজ্জামান প্রমুখ।

আর/১৭:১৪/১৭ এপ্রিল

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে