Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৪-১৫-২০১৬

‘জাবেদ-মোসলেম বিরোধে’ আ. লীগ কার্যালয়ে হামলা

উত্তম সেন গুপ্ত


‘জাবেদ-মোসলেম বিরোধে’ আ. লীগ কার্যালয়ে হামলা

চট্টগ্রাম, ১৫ এপ্রিল- ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ ও চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মোসলেম উদ্দিনের বিরোধের জেরে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আনোয়ারা ও পশ্চিম পটিয়া এলাকার প্রার্থী মনোনয়নকে কেন্দ্র করে দলীয় কার্যালয়ে হামলা হয়েছে বলে দুই পক্ষের বক্তব্যে উঠে এসেছে।

শুক্রবার নগরীতে দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে ওই হামলার ঘটনা ঘটে। পরে এ বিষয়ে বক্তব্য জানতে মোসলেম উদ্দিনকে একাধিকবার টেলিফোন করেও পাওয়া যায়নি। প্রতিমন্ত্রী জাবেদ লন্ডনে থাকায় মেলেনি তার বক্তব্যও।

চট্টগ্রামের পটিয়া, আনোয়ারা, বোয়ালখালী, বাঁশখালী, চন্দনাইশ, লোহাগাড়া ও সাতকানিয়া উপজেলা এবং নগরীর কর্ণফুলী থানা নিয়ে আওয়ামী লীগের চট্টগ্রাম দক্ষিণ সাংগঠনিক জেলা গঠিত।

দক্ষিণ জেলার আনোয়ারা উপজেলা ও নগরীর কর্ণফুলী থানা নিয়ে গঠিত চট্টগ্রাম আসন-১৩-এর এমপি ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ।

পুলিশ জানায়, আনোয়ারা উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে এসে প্রায় ২০০ লোক আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে হামলা চালায়। এতে দুই পুলিশও আহত হয়।

দুপুরে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, টিনশেড কার্যালয়ের বাইরে প্রায় অর্ধশতাধিক পুলিশ; ভেতরে অনেক চেয়ার ভাঙা, ব্যানার ছেড়া। এখানে-ওখানে ছড়িয়ে আছে ইট-পাথরের টুকরো।

আনোয়ারা উপজেলার চেয়ারম্যান ও থানা আওয়ামী লীগের অ্যাডহক কমিটির সদস্য তৌহিদুল হক চৌধুরী বলেন, এলাকার নির্বাচিত প্রতিনিধি হিসেবে ভূমি প্রতিমন্ত্রী জাবেদ তৃণমূলের বর্ধিত সভা করেন।

সভায় পশ্চিম পটিয়া ও আনোয়ার উপজেলার মোট ১৬ ইউনিয়নের তৃণমূল কর্মীদের ‘ভোটে মনোনীতদের’ একটি তালিকা গত ১৩ এপ্রিল জেলা আওয়ামী লীগের হাতে দেন তারা।
তালিকায় ইউনিয়ন ও থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের স্বাক্ষর ছিল এবং দক্ষিণ জেলা কমিটিকে তার একটি অনুলিপি দেওয়া হয় বলে দাবি করেন প্রতিমন্ত্রী জাবেদের অনুসারী তৌহিদুল। 

তিনি বলেন, “তারপরও চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোসলেম উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান তৃণমূলের নির্বাচিতদের বাদ দিয়ে নিজেদের মতো করে আজ মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার ডাকেন।

“মনোনয়ন বাণিজ্যের খবর পেয়ে আমরা শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ করতে গেলে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সমর্থকরা আমাদের উপর হামলা করে।”

দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমানের দাবি- তৃণমূল থেকে যথাযথভাবে প্রার্থী বাছাই হয়নি।

তিনি বলেন, “নিয়মানুযায়ী জেলা, থানা ও ইউনিয়ন কমিটির সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক বসে তৃণমূলের প্রার্থী বাছাই করবে। একক বা একাধিক নাম পাওয়া গেলে তার তালিকা কেন্দ্রে পাঠানো হবে।”

প্রতিমন্ত্রী জাবেদ ইউনিয়ন কমিটির কোনো বর্ধিত সভা না করে নিজ এলাকার (আনোয়ারা-কর্ণফুলী) মনোনয়ন প্রত্যাশী চেয়ারম্যানদের নামের তালিকা কেন্দ্রে পাঠিয়েছেন বলে দাবি করেন মফিজ।

নিয়ম অনুযায়ী প্রতিমন্ত্রী তা করতে পারেন না- দাবি করে মোসলেম উদ্দিনের কমিটির সাধারণ সম্পাদক মফিজ বলেন, “নামের তালিকা কেন্দ্রে পাঠানোর পর প্রতিমন্ত্রী জাবেদ জেলা কমিটিকে না জানিয়ে সেসব এলাকার ইউনিয়ন কমিটি ভেঙে দিয়েছেন।”

প্রতিমন্ত্রী হিসেবে জাবেদ তা করতে পারেন না বলে মন্তব্য করেন তিনি।

শুক্রবার ওই সাক্ষাৎকার গ্রহণ স্থগিত করা হয় জানিয়ে মফিজ দলীয় কার্যালয়ে ভাংচুরের জন্য প্রতিমন্ত্রী জাবেদের অনুসারীদের দায়ী করেন। 

তিনি বলেন, “আনোয়ারা উপজেলার চেয়ারম্যান তৌহিদুল হক ও দক্ষিণ জেলার শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক ইসলামের নেতৃত্বে এই হামলা হয়েছে।”

এ অভিযোগ অস্বীকার করে তৌহিদুল বলেন, “সাক্ষাৎকারের সময় ধার্য থাকায় আমরা শন্তিপূর্ণভাবে এর প্রতিবাদ জানাতে গিয়েছিলাম। কিন্তু দলীয় কার্যালয়ে সামনে পৌঁছামাত্র সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের অনুসারী ও পুলিশ হামলা করে।”

আর/১০:১৪/১৫ এপ্রিল

চট্টগ্রাম

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে