Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 1.1/5 (7 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৪-১৪-২০১৬

কংগ্রেস, সি পি এম উঠে গেছে, বললেন মমতা

কংগ্রেস, সি পি এম উঠে গেছে, বললেন মমতা

কলকাতা, ১৪ এপ্রিল- ১৯ মে রাজ্যে আমাদের সরকার ৫ বছর পূর্ণ করবে। সেইদিনই বিধানসভা ভোটের ফল। পরের দিন থেকেই আমাদের সরকার  ৬ বছরে পা দেবে। বললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। সি পি এম, কংগ্রেস সম্পর্কে তাঁর মন্তব্য, এই দুটি দলই বাংলা থেকে উঠে গেল। আর বি জে পি হল বসন্তের কোকিল। বুধবার বর্ধমানে‌র সমুদ্রগড়, নদীয়ার গয়েশপুর, উত্তর ২৪ পরগনার বাগদায় নির্বাচনী সভা করেন মুখ্যমন্ত্রী। জোটকে আক্রমণ করে তিনি বলেন, ওদের এমন অবস্থা যে ভোটে কাজ করার লোকও আমাদের জোগাড় করে দিতে হবে!‌ বাংলায় আর সি পি এমের সূর্যোদয় হবে না। ভোটের জন্য কংগ্রেসের পায়ে পড়ছে সি পি এম।

 ভোটের পর কংগ্রেস–সি পি এম সাইনবোর্ড রাখার জায়গা পাবে না। সাইনবোর্ড রাখতে চাইলে আমার বাড়িতে রেখে দিতে পারি। নির্বাচন কমিশনের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন মুখ্যমন্ত্রী। বলেন, বাংলার বাবুরা নালিশ করলেন আর টানা গরমে এক মাসের ওপর ভোট করানোর সিদ্ধান্ত নিল কমিশন। বাংলা ভাল থাকলে দিল্লির যে সহ্য হয় না। ২৯৪ দফায় ভোট হলেও তৃণমূলের কোনও ক্ষতি হবে না। তৃণমূল ভয় পায় না। যত দফা ভোট হবে ততই সি পি এম, কংগ্রেস, বি জে পি পেছনে চলে যাবে। এদিন নির্বাচনী সভা থেকে  বাংলা নববর্ষের আগাম শুভেচ্ছা জানান মুখ্যমন্ত্রী।

নাদনঘাটের সমুদ্রগড় লাগোয়া নিমতলা মাঠে জনসভায় তৃণমূল নেত্রী অভিযোগ করেন, বি জে পি  বাইরে থেকে লোক এনে হোটেলে ঢোকাচ্ছে। দাঙ্গা বাধানোর ছক কষছে। যে বাংলার মাটিতে রামকৃষ্ণ চৈতন্য বিবেকানন্দ জন্মেছেন, সেই মাটিতে ওরা হিন্দুত্ব শেখাবে? আমি কোনও দাঙ্গা হতে দেব না। বলেন, আমার চারটি মন্ত্র। সম্প্রীতি, সংহতি, প্রগতি আর উন্নতি। বাংলা ভাল থাকলে ওদের গা জ্বালা করে। কেন্দ্রে রয়েছে। সব টাকা নিয়ে চলে যাচ্ছে। দিল্লিটা ঠিকমতো চালাতে পারে না। বাংলায় এসেছে বসন্তের কোকিলের মতো কুহু কুহু করতে। ‘কংগ্রেস-সি পি এম জোট-ঘোঁট’-কে কটাক্ষ করে মমতা বলেন, সি পি এম থেকে এখন মার্কস বাদ হয়ে গেছে। কংগ্রেসের পিঠে চেপে বলছে, দাদা পায়ে পড়ি রে মেলা থেকে ভোট এনে দে। এখন কাস্তে ধরেছে হাত/তাই ভোটে হবে কুপোকাত। নাম না করে অধীর চৌধুরিকে কটাক্ষ করে মমতা বলেন, একজন তো মুর্শিদাবাদেই দলটাকে টিকিয়ে রাখতে চাইছে। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, সরকার গঠনের পর কাটোয়া ও সমুদ্রগড়ে প্রশাসনিক বৈঠক করবেন। মুখ্যমন্ত্রীর এদিনের সভায় ছিলেন ৬ প্রার্থী। পূর্বস্থলী দক্ষিণের স্বপন দেবনাথ, পূর্বস্থলী উত্তরের তপন চ্যাটার্জি, কাটোয়ার রবীন্দ্রনাথ চ্যাটার্জি, মন্তেশ্বরের সজল পাঁজা, নবদ্বীপের পুণ্ডরীকাক্ষ সাহা ও কালনার বিশ্বজিৎ কুণ্ডু।‌‌‌
গয়েশপুরের সভায় মুখ্যমন্ত্রী  স্টিং অপারেশন সম্পর্কে বলেন, আমরা জানি কোথা থেকে টাকা এসেছে। কীভাবে সব হয়েছে। বিদেশ থেকে কীভাবে টাকা এল। সব তদন্ত করে দেখব। তখন দেখব কে কোথায় পালায় ?‌ বি জে পি ৪টি আসনও পাবে না। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, কল্যাণীতে এইমস হচ্ছে। তিনি হরিণঘাটার নীলিমা নাগ মল্লিক, চাকদার রত্না ঘোষ এবং রমেন্দ্রনাথ বিশ্বাসের সঙ্গে মানুষের পরিচয় করিয়ে দেন।

বাগদার কলাবাগান মাঠে তৃণমূল প্রার্থী বিদায়ী মন্ত্রী ডঃ উপেন বিশ্বাসের সমর্থনে সভা করেন মুখ্যমন্ত্রী। ৫ বছরের উন্নয়নের খতিয়ান তুলে ধরেন। বি জে পি–‌র সমালোচনা করে বলেন, ওরা দাঙ্গা ছাড়া কিছু জানে না। বাংলাকে ভাগ করতে চেয়েছে। কখনই ওদের ক্ষমা করব না।

পশ্চিমবঙ্গ

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে