Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 1.0/5 (4 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৪-১২-২০১৬

এপ্রিলের তৃতীয় সপ্তাহেই বৃষ্টি, শেষে আবারো গরম

এপ্রিলের তৃতীয় সপ্তাহেই বৃষ্টি, শেষে আবারো গরম

ঢাকা, ১২ এপ্রিল- দেশের বিস্তীর্ণ অঞ্চলে বয়ে যাচ্ছে মৃদু মাত্রার তাপপ্রবাহ, আংশিক মেঘলা আকাশে কোথাও কোথাও সামান্য বৃষ্টি হলেও গরমের অস্বস্তি তাতে কাটছে না। কর্মজীবী মানুষ বাইরে বের হলেই অতিরিক্ত ঘামে ক্লান্ত হয়ে পড়েছেন। ক্লান্তি দূর করতে কেউ পান করছেন ডাবের পানি, কেউবা খাচ্ছেন শসা। তাই প্রচণ্ড গরমে তরমুজ, আনারস, ঠান্ডা পানি আর ডাব বিক্রি বেড়ে গেছে কয়েকগুণ। লাচ্ছি, জুস আর কোমল পানীয়র ব্যবসাও বেশ জমজমাট। শহরের মোড়ে মোড়ে ফুটপাতে খোলা জায়গায় ঠান্ডা পানির লেবুর শরবত, তরমুজ বিক্রির ধুম পড়েছে। 

তবে চৈত্রের তাপদাহে অতিষ্ট এই জনজীবনকে বৃষ্টির শীতল ছোঁয়ায় সিক্ত করার আমেজে আসছে বৈশাখ, এমন তথ্য মিলেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে। শুধু শীতলই নয়, প্রচুর পরিমাণে বৃষ্টির বার্তা দিয়েছেন আবহাওয়া অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক (পূর্বাভাস) আবুল হাসনাত।

জলবায়ু চিত্র তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘বৈশাখ শুরু হচ্ছে এপ্রিলের মাঝে। এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি বৃষ্টি হয়েছিল। দ্বিতীয় সপ্তাহে আবার স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি তাপদাহ চলছে। একইভাবে তৃতীয় সপ্তাহে বেশি বৃষ্টি হবে এবং মাসের শেষ অর্থাৎ চতুর্থ সপ্তাহে আবার তাপমাত্রা বাড়বে। এভাবেই আবহাওয়ার সামঞ্জস্য ঘটে থাকে। তবে সব মিলিয়ে এপ্রিলে স্বাভাবিকের চেয়ে বৃষ্টি বেশি হওয়ার সম্ভাবনা আছে। এতে দেখা যাবে বৈশাখের প্রথমার্ধ পর্যন্ত বৃষ্টি চলতে পারে।’

এদিকে গত কয়েকদিন ধরেই চৈত্রের শেষ দগ্ধতায় পুরছে নগরবাসী। শুধু তাই নয়, এ গরমে অস্বস্তির সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে তাপমাত্রা। গত ৫ এপ্রিল দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৪ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর গতকাল সোমবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে চুয়াডাঙ্গায়, ৪০ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। অর্থাৎ গত আটদিনে তাপমাত্রা বেড়েছে ৬ দশমিক ৪ ডিগ্রি। গত ৫ এপ্রিল রাজধানী ঢাকায় তাপমাত্রা ছিল ৩১ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গতকাল তা বেড়ে হয়েছে ৩৬ দশমিক ৬ ডিগ্রি। আজ মঙ্গলবার দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্র রেকর্ড করা হয়েছে (৩৯ দশমিক ৬ সেলসিয়াস) চুয়াডাঙ্গায়।  

মঙ্গলবার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে- আজও পাবনা, যশোর ও কুষ্টিয়া অঞ্চলের উপর দিয়ে তীব্র তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। এছাড়া ঢাকা, রংপুর, রাজশাহী ও খুলনা বিভাগের অবশিষ্টাংশের উপর দিয়ে বইছে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের তাপপ্রবাহ। আর এমন অবস্থা অব্যাহত থাকতে পারে। 

তবে পরবর্তী ৭২ ঘণ্টার আবহাওয়ার সামান্য পরিবর্তন হতে পারে বলেও জানানো হয়েছে। আর পরবর্তী পাঁচ দিনের পূর্বাভাসে অধিদপ্তর বলেছে, এ সময়ের প্রথম দিকে বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে।

এদিকে এপ্রিলের দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। কালবৈশাখী, বজ্রবৃষ্টি, এমন কি ঘূর্ণিঝড়ও হতে পারে। অপরদিকে দেশের উত্তর ও উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে একটি তীব্র তাপপ্রবাহ (৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি) এবং অন্যত্র এক থেকে দুটি মৃদু (৩৬ থেকে ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস) বা মাঝারি (৩৮ এর চেয়ে বেশি ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস) তাপপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে।

অবশ্য সিলেট অঞ্চলে পরিবর্তিত আবহাওয়া বিরাজ করছে। গত কয়েকদিন তাপমাত্রা কম থাকার পাশাপাশি বৃষ্টির দেখাও মিলেছে এ নগরীতে। আর সামনের দিনগুলোতে সেখানে বজ্রসহ বৃষ্টি হওয়ার কথাও জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

পশ্চিমা লঘুচাপের বর্ধিতাংশ হিমালয়ের পাদদেশীয় পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। আর এ মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ অবস্থান করছে দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে।

আর/১০:২৪/১২ এপ্রিল

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে