Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৪-১১-২০১৬

‘চাকরিচ্যুত’ হার্শা ভোগলের জন্য তোলপাড়

মেহেরিনা কামাল মুন


‘চাকরিচ্যুত’ হার্শা ভোগলের জন্য তোলপাড়

মুম্বাই, ১১ এপ্রিল- কেউ বলছেন টুইটারে বাংলাদেশ-ভারত ম্যাচ নিয়ে বলিউডের অমিতাভ বচ্চন ও ভারতীয় অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির সাথে বিবাদের জের ধরেই ধারাভাষ্য থেকে সরিয়ে নেয়া হয়েছে হার্শা ভোগলেকে। আবার কেউ সামনে নিয়ে আসছেন নাগপুরে বিদর্ভ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের এক কর্মকর্তার সাথে তার বাকবিতণ্ডাকে।

কিন্তু, কারণ যাই হোক না কেন আশির দশকের মাঝামাঝি সময় থেকে ভারতীয় ক্রিকেটের সাথে থাকা হার্শা ভোগলে এখন ভারতীয় ক্রিকেটের ‘অতীত’। তিনি ছিলেন ২০০৮ সাল থেকে শুরু হওয়া ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) সব গুলো আসরেই।

ফলে, তাকে ছাড়া আইপিএলটা বড্ড নিরামিষ ঠেকছে অনেকের। ‘স্যার রবীন্দ্র জাদেজা’ নামের এক প্যারোডি অ্যাকাউন্ট থেকে লেখা হয়েছে, ‘হার্শা ছাড়া আইপিএল কোহলি ছাড়া ভারতের মত!’

ভারতীয় ক্রিকেটের অবিচ্ছেদ্য অংশ আইপিএল থেকে সেই হার্শা ভোগলের বাদ পড়ার অর্থ যে গোটা ভারতীয় ক্রিকেটেই তার ‘অনাহূত’ হয়ে পড়া – সেটা আর বলে না দিলেও চলে।

এবারের আইপিএলের নিলাম অনুষ্ঠানেও ছিলেন তিনি। এর অর্থ আইপিএলের সম্প্রচার স্বত্ত্বাধিকারী সনি নেটওয়ার্কের পরিকল্পনাতেও ছিলেন তিনি। তাহলে কি পেছন থেকে কলকাঠি নাড়লো খোদ বোর্ড অব কনট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়া (বিসিসিআই)? বলাই বাহুল্য যে, প্রোডাকশেন দেখভালটা ভারতীয় ক্রিকেটের এই সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থাই করে।

এখন ভারতীয় গণমাধ্যম হার্শা ভোগলেকে ধারাভাষ্যকক্ষ থেকে সরানোর পেছনে সবচেয়ে আলোচিত কারণ হচ্ছে - সদ্য শেষ হওয়া টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বাংলাদেশ-ভারত ম্যাচে তার ভূমিকা। আর সেটা নিয়ে টুইটারে হার্শা ভোগলে বনাম অমিতাভ বচ্চন একটা যুদ্ধও হয়ে যায়। এমনকি তাতে অমিতাভের পক্ষ নিয়েছিলেন খোদ ভারতীয় অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি!

ভারতীয় কমেডিয়ান সৌরভ পান্ত তো ঘটনার পেছনের ‘ব্যক্তিত্বের সংঘাত’ খুঁজে পাচ্ছেন। এক টুইটে তিনি লিখেছেন, ‘বিগ বি, এমএসডি কিংবা কোন কর্মকর্তা – ঘটনার পেছনে যেই থাকুন না কেন, আমার বক্তব্য হল হার্শা ভোগলে দারুণ একজন ধারাভাষ্যকার। ও ভাল মানুষ। ওকে বাদ দেয়াটা স্রেফ ব্যক্তিত্বের সংঘাত।’

তোলপাড় চললে বলিউডেও। অভিনেতা আয়ুষমান খোড়ানা এক টুইটে লিখেছেন, ‘আইপিএলের তৃতীয় আসরে আমি যখন উপস্থাপনায় ছিলাম, খুব নার্ভাস ছিলাম। তখন হার্শাই আমাকে সাহস দিয়েছিলেন। আপনাকে মাইকে খুব মিস করব স্যার।’

বিসিসিআই সচিব অনুরাগ ঠাকুর বা আইপিএল চেয়ারম্যান রাজিব শুক্লা এই ব্যাপারে মন্তব্য করতে রাজি হননি। ৫৪ বছর বয়সী হার্শা ভোগলের ব্যাপারে বোর্ডের দাবি – ‘সবাই মিলে আলোচনা করেই এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। আমাদের কাছে ফিডব্যাক এসেছিল - তিনি (হার্শা) ক্রমশ একঘেয়ে হয়ে উঠছিল। ফলে জনপ্রিয়তা হারাচ্ছিল। বরং নতুন ধারাভাষ্যকাররা অনেক ভাল করছেন। তাদের জনপ্রিয়তা ক্রমশ বাড়ছে।’

ভারতীয় দলের সাবেক কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান, অধিনায়ক ও বর্তমান ক্রিকেট বিশ্লেষক সুনীল গাভাস্কার এক টুইটে লিখেছেন, ‘হার্শা ভোগলে এখন নিজেকে একজন পুলিশ মনে করতে পারেন। কর্তব্য পালনে সততার কারণেই তো তাকে সাসপেন্ড করা হল।’

ভোগলে নিজে নিজে যে কোনো বিতর্কের মধ্যে যাচ্ছেন না সেটা তার টুইটেই স্পষ্ট – ‘আইপিএলে সুযোগ পেলে সেটা দারুণ এক ব্যাপার হত। সত্যি কথা বলতে আমি সেটার জন্যই মুখিয়ে ছিলাম। যাই হোক, এখনও আইপিএল আমার প্রিয় একটা টুর্নামেন্ট। আশা করি আইপিএলের নবম আসরও “ব্লকবাস্টার” হবে।’

আর/১৭:৫২/১১ এপ্রিল

ক্রিকেট

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে