Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৪-১১-২০১৬

তারকা হোটেলে বৈশাখী আয়োজন

তারকা হোটেলে বৈশাখী আয়োজন

রাজধানীর তারকা হোটেলগুলো বৈশাখী আয়োজন থেকে পিছিয়ে নেই। প্রতিবারের মতো এবারও এসব হোটেলের বিভিন্ন রেস্তোরাঁয় রয়েছে দেশি খাবারের আয়োজন ও মেলা।

পকেটের সামর্থ্য থাকলে পহেলা বৈশাখে ঢুঁ দিতে পারেন এসব রেস্তোরাঁয়।


লা মেরিডিয়ান ঢাকা: এদেশে যাত্রা শুরুর পর এবারই প্রথম ভিন্নমাত্রায় অতিথিদের নিয়ে বৈশাখ উদযাপন করছে তারা। উদযাপনে ভিন্নমাত্রা আনতে ৯ এপ্রিল থেকে থাকছে নতুন স্বাদের ইলিশ। হোটেলে নিয়োজিত ফ্রান্স, ইতালি, ভারত ও অন্যান্য দেশের শেফরা তাদের দেশীয় রন্ধন পদ্ধতিতে সৃজনশীলতার সংমিশ্রনে সুস্বাদু ইলিশের পরিবেশন করবেন।

লা মেরিডিয়ান ঢাকা-র ‘ওলেয়া’ রুফটপ রেস্তোরাঁয় প্রতিদিন সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত ইলিশের স্বাদ নিতে পারবেন অতিথিরা। দাম শুরু ১ হাজার টাকা থেকে। ১৪ এপ্রিল সকাল ১১টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত রুফটপে চলবে বৈশাখী মেলা। জাদু প্রদর্শনী, মুখে আল্পনা আঁকা, বাউল গান, ভাগ্য গননা ইত্যাদি আয়োজন থাকছে এই মেলায়।

বৈশাখী হাল্কা খাবারসহ মেলায় প্রবেশের মূল্য মাত্র ১ হাজার ৪শ’ ২৩ টাকা। এদিন যারা হোটেলের লেটেস্ট রেসিপি রেস্তোরাঁয় বুফে লাঞ্চ বা ডিনার করবেন, তাদের জন্য এই বৈশাখী মেলায় বিনামুল্যে প্রবেশ করার সুযোগ রয়েছে।

পহেলা বৈশাখের সকল আয়োজন তিন বছরের কম বয়সি শিশুরা বিনামূল্যে উপভোগ করতে পারবে। আর তিন থেকে ১২ বছরের শিশুদের জন্য সকল মূল্যের উপর রয়েছে ৫০ শতাংশ ছাড়।


হোটেল সারিনা: আয়োজন করেছে তিন দিনব্যাপি বাংলার ঐতিহ্যবাহী বৈশাখী মেলা ও ১০ দিনের বাংলা খাদ্য উৎসব।

চৈত্র সংক্রান্তির দিন ১৩ এপ্রিলে শুরু হওয়া বৈশাখী মেলায় থাকছে বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী হস্তশিল্প, কারুশিল্প, বাঁশ, বেত, কাঠ, পাট ও চামড়াজাত পণ্যের সমাহার। থাকছে হাতে ভাজা মুড়ি-মুড়কি, খৈ, বাতাসা, হাওয়াই মিঠাই, ফুচকা, পিঠা-পুলিসহ অনেক কিছু। আরও থাকছে বাংলা গানের আসর ও মেহেদি উৎসব।

আর বাংলা খাদ্য উৎসবে থাকছে মুখরোচক সব ভর্তা, ভাজি, শরবত, মিষ্টান্ন, আচার, সালাদসহ মাছের নানা পদ এবং ইলিশের অনন্য সব আয়োজন। দুপুরের বাফেটের মূল্য ২ হাজার ৩শ’ ৪০ টাকা আর রাতের বাফেটের মূল্য ২ হাজার ৮শ’ ৫০ টাকা। এছাড়াও ইস্টার্ন, ব্রাক, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ও স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের কার্ডধারীদের জন্য থাকছে ‘১টি কিনলে ১টি ফ্রি’ অফার।


হোটেল সিক্স সিজন্স: বাংলাদেশের ষড় ঋতুর রংয়ে সাজানো এই হোটেল সেজেছে আবহমান বাংলার নান্দনিক আবহে। দুপুরের বাফেটের মূল্য ২ হাজার ৪শ’ টাকা আর রাতের বাফেটের মূল্য ২ হাজার ৮শ’ টাকা। মেম্বারশিপ কার্ডধারীদের জন্য আছে একটি কিনলে একটি ফি অফার।

পহেলা বৈশাখে আয়োজিত দিনব্যাপি বৈশাখী মেলায় থাকছে বাউল গান, হস্ত—শিল্প, জামদানী শাড়ি ও মেহেদি উৎসব। ঝালমুড়ি, ফুচকা, পিঠাপুলি ইত্যাদিরও স্টল থাকছে। ১৫ থেকে ২০ এপ্রিল পর্যন্ত বাংলা খাদ্য উৎসব।

র‌্যাডিসন ব্লু ওয়াটার গার্ডেন: তাদের বৈশাখী আয়োজনে থাকছে বাফেট, সেট মেন্যু, মুখ চিত্রাঙ্কন, গানের আসর ও উপহার সামগ্রী। বাফেটের দাম ৩ হাজার ৮শ’। স্পাইস অ্যান্ড রাইস রেস্তোরাঁর সেট মেন্যুর দাম ২ হাজার ৭শ’ টাকা। বাফেটে থাকছে ইলিশ ভাজা, পাবদা মাছের কোফতা, পটলের দোলমা ও ভর্তা। ডেজার্টে খাকবে পাটিসাপটা পিঠা, রসমালাই, বাতাসা ও ডাবের শাঁস।

এছাড়াও আছে চটপটি, ফুচকা, পিঠা, আইসক্রিম ইত্যাদি।


ওয়েস্টিন: বাংলা খাবারের বাফেট মিলবে হোটেলের সিজনাল টেস্টস রেস্তোরাঁয়। ইলিশের পদের মধ্যে থাকছে ইলিশ পোলাও, স্মোকড ইলিশ, ইলিশ কোরমা ও শর্ষে ইলিশ। ভর্তার পদে আছে কাঁচকলা, বেগুন, চিংড়ি ইত্যাদির ভর্তা। আর পান্তা ভাত ও কাঁচামরিচ তো আছেই।

আরও আছে দেশীয় ধাঁচে হাঁসভুনা, মেজবানি গরুর মাংস, ভুনা খিচুড়ি, খাসির নেহেরি। ডেজার্টে আছে পিঠা, হালুয়া, রসগোল্লা, সন্দেশ ইত্যাদি। দুপুরের খাবারের বাফেটের দাম ৪ হাজার ৮শ’। আর রাতের খাবারের বাফেটের দাম ৫ হাজার টাকা। এছাড়াও নিচতলায় ডেইলি ট্রিটস রেস্তোরাঁয় মিলবে ফুচকা, চটপটি, পিঠা, কাঁচাআমের সরবত ইত্যাদি।


আমারি ঢাকা: বিভিন্ন খাবারের আয়োজনের পাশাপাশি বর্ষবরণ উৎযাপন করা হবে ঐতিহ্যবাহী বাউল সঙ্গীত, বাঁশিবাদক, বায়োস্কোপ, চুড়িওয়ালা, ‘ফরচুন টেলার’ এবং নানা ধরণের আয়োজন নিয়ে।

হোটেলের আমায়া ফুড গ্যালারিতে ১৪ এপ্রিল এশিয়ান এবং আন্তর্জাতিক আ-লা-কার্ট মেন্যুর সঙ্গে থাকবে নানা ধরনের ঐতিহ্যবাহী খাবারের সমারোহ। এই আয়োজন থাকবে সকাল, দুপুর এবং রাতে।

মুখরোচক ইলিশ মাছের নানা পদের পাশাপাশি থাকবে ভুনা খিচুড়ি, বিরিয়ানি, মাটন বিরিয়ানি, বিভিন্ন ধরনের মুরগির পদ, বিফ কালিয়া, রুপচাঁদা মাসালা, লাউ-চিংড়ি, খাসির মাংস ভুনা ইত্যাদি। এছাড়াও থাকবে বিভিন্ন ধরণের ভর্তা যেমন- শুঁটকি, শিম, ভেন্ডি ও ফলের চাটনি ইত্যাদি। আরও আছে দেশীয় উপকরণ দিয়ে তৈরি বিভিন্ন প্রকার সালাদ যেমন- কাঁচাআমের সালাদ, কাচুম্বুরি সালাদ, তান্দুরি বিফ সালাদ, ছোট চিংড়ির কামরাঙার সালাদ এবং নানা ধরণের অ্যাপিটাইজার।

নতুন বছরের পিঠা-পুলি উৎসব আয়োজনকে সামনে রেখে হালুয়া, খিরসা, পুলি-পিঠা, রসমালাই, দুধ কুলির পাশাপাশি থাকবে ইউরোপিয়ান পেস্ট্রি আইটেম, ফ্রেশ ফ্রুটস এবং বিভিন্ন ধরনের আইসক্রিম।

আমায়া রেস্টুরেন্টের সারাদিনের এই বৈশাখী আয়োজনের মূল্য সকালের নাস্তার মূল্য ১ হাজার ৬শ’ টাকা, দুপুরের খাবার ২ হাজার টাকা এবং রাতের আয়োজন আড়াই হাজার টাকা।  

২৪ ঘন্টা খোলা ক্যাস্কেইড লবি লাউঞ্জে বৈশাখী উৎসব আয়োজনে থাকবে দেশি ডেজার্ট আইটেম, চটপটি-ফুচকা, পিঠা, দই আইস্ক্রিমসহ আরও নানা ধরনের খাবার। এছাড়াও পানীয় হিসেবে থাকবে লেবুর সরবত, ডাবের পানি, বিভিন্ন তাজা ফলের সরবত, লাচ্ছি এবং জিলাপিসহ আরও নানা ধরনের আয়োজন।

আর/১৭:৫২/১১ এপ্রিল

রসনা বিলাস

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে