Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৪-০৫-২০১৬

দুই বিশ্বকাপের জয়ের নায়কই স্যামুয়েলস

দুই বিশ্বকাপের জয়ের নায়কই স্যামুয়েলস

কলকাতা, ০৪ এপ্রিল- চার বছরের ব্যবধান। দু দুটি টি২০ বিশ্বকাপের ট্রফি। প্রথমবারের মতো ইতিহাস গড়ে উৎসবের আমেজ ক্যারিবীয় শিবিরে। জয়ের নায়ক মারলন স্যামুয়েলস। ইডেনের ফাইনালে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে খেলেছেন ৬৬ বলে ৮৫ রানের অপরাজিত ইনিংস। হয়েছেন ফাইনালের ম্যাচ সেরা। কিন্তু জানেন কি, ২০১২ সালে টি২০ বিশ্বকাপের ফাইনালেও উইন্ডিজের জয়ের নায়ক ছিলেন এই মারলন স্যামুয়েলস?

দুটি ফাইনালের চিত্র অনেকটা মিলে যায়। ২০১২ সালে কলম্বোর ফাইনালে শ্রীলঙ্কাকে ৩৬ রানে হারিয়ে প্রথমবারের মতো টি২০ বিশ্বকাপের শিরোপা জিতেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। আগে ব্যাট করতে নেমে ওয়েস্ট ইন্ডিজ করেছিল ৬ উইকেটে মাত্র ১৩৭ রান। জবাবে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কা অলআউট ১০১ রানে। এই ম্যাচে মারলন স্যামুয়েলস করেছিলেন ৫৬ বলে ৭৮ রানের দুর্দান্ত ইনিংস। যেখানে ছিল ছয়টি ছক্কা ও তিনটি চারের মার।

এবার খেললেন ৬৬ বলে ৮৫ রানের অপরাজিত ইনিংস। যেখানে ছিল নয়টি চার ও দুটি ছক্কা। ২০১২ সালের ফাইনালেও ইনিংসের শুরুতেই বিদায় নিয়েছিলেন চার্লেস (০) ও গেইল (৩)। এবারও তাই। সেবার ব্রাভোর সঙ্গে ৫৯ রানের জুটি গড়ে দলকে বাঁচিয়েছিলেন শুরুর বিপর্যয় থেকে। এবার ইডেনও সেই ব্রাভোর সঙ্গে স্যামুয়েলসের জুটি। এবার আসল ৭৫ রানের কার্যকরী ইনিংস।

২০১২ সালের ফাইনালে শেষের দিকে ১৫ বলে ২৩ রান করে দলের স্কোর কিছুটা বাড়িয়েছিলেন ড্যারেন সামি। এবার সামির পরিবর্তে শেষের ঝলক অবশ্য কার্লোস ব্রাফেটের। ছয় বলে যার রান ছিল একসময় ১০। সেখানে ১০ বলে ব্রাফেট থাকল ৩৪ রানে অপরাজিত। শেষ ওভারে বেন স্টোকসকে হাঁকালেন টানা চার ছক্কা।   

তবে বেশী মিল বিপর্যয়ে পড়া দলকে হাল ধরা। যেটি মারলন স্যামুয়েলস দুটি বিশ্বকাপেই দেখিয়েছেন। সঙ্গে সঙ্গে দলও চুমু আকঁতে পেরেছে ট্রফিতে। আবার ফাইনালের ম্যাচ সেরার পুরস্কারও পেয়েছেন। দেশের হয়ে দুটি টি২০ বিশ্বকাপের ফাইনালে ম্যাচ সেরা হওয়ার এমন গৌরব স্যামুয়েলসকে আজীবনই হয়তো তৃপ্তি দিয়ে যাবে।

আর/১২:৩৭/০৫ এপ্রিল

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে