Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 1.3/5 (7 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৪-০২-২০১৬

কফি পানে কোলন ও রেক্টাল ক্যান্সারের ঝুঁকি কমে

কফি পানে কোলন ও রেক্টাল ক্যান্সারের ঝুঁকি কমে

নিয়মিত কফি পানে কোলন ক্যান্সারের ঝুঁকি কমে। সাম্প্রতিক এক গবেষণায় এ কথাই জানিয়েছেন গবেষকরা। যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ক্যারোলাইনা বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের ভাষ্য অনুযায়ী, দিনে যত বেশি কফি পান করা হবে, কোলন (পায়ুপথ) বা রেক্টাল (বৃহদান্ত্র) ক্যান্সারের ঝুঁকি ততটাই হ্রাস পাবে, সেটা এসপ্রেসো বা ক্যাপুচিনো, যেভাবেই খাওয়া হোক না কেন।

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যান্সারাক্রান্ত রোগীদের মধ্যে কোলোরেক্টাল (কোলন অথবা রেক্টাল) ক্যান্সারে আক্রান্তরা সংখ্যায় তৃতীয় সর্বোচ্চ। দেশটির ক্যান্সার রোগী পুরুষদের মধ্যে ৫ শতাংশ ও নারীদের মধ্যে ৪ শতাংশের মধ্যে কোলোরেক্টাল ক্যান্সারে আক্রান্ত। আমেরিকান ক্যান্সার সোসাইটির হিসাব অনুযায়ী, শুধু চলতি বছরেই দেশটিতে ৯৫ হাজার মানুষ কোলন ও ৩৫ হাজার মানুষ রেক্টাল ক্যান্সারের চিকিত্সা নেবেন।

গবেষণায় দেখা যায়, দিনে পরিমিত তথা দুই কাপ কফি পানে কোলোরেক্টাল ক্যান্সারের ঝুঁকি কমে ২৬ শতাংশ। আর এর চেয়ে যত বেশি পান করা হবে, এ রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি ততটাই কমে দাঁড়াবে সর্বোচ্চ ৫০ শতাংশ পর্যন্ত।

গবেষণাকাজ চালাতে গিয়ে গবেষকরা গত ছয় মাসে কোলোরেক্টাল ক্যান্সারের চিকিত্সা নেয়া প্রায় ৫ হাজার ১০০ রোগীকে পর্যবেক্ষণের আওতায় নিয়ে আসেন। একই সঙ্গে কন্ট্রোল গ্রুপ হিসেবে পর্যবেক্ষণের জন্য এ রোগে কখনই আক্রান্ত হননি এমন আরো চার হাজার নারী ও পুরুষকে নিয়োগ দেন তারা।

পর্যবেক্ষণে অংশ নেয়া ব্যক্তিরা প্রত্যেকে প্রতিদিন যতভাবে যত কাপ কফি পান করেছেন (এসপ্রেসো, ইনস্ট্যান্ট, ডিক্যাফেইনেটেড বা ফিল্টার করা) গবেষকদের কাছে নিয়মিতই তার হিসাব দিয়েছেন। একই সঙ্গে তাদের অন্য পানীয়গুলো পানের তথ্যও সংগ্রহ করেন গবেষকরা।

পর্যবেক্ষণের বাইরেও তাদের পরিবারে ক্যান্সারের ইতিহাস, খাদ্যাভ্যাস, শারীরিক শ্রম ও ধূমপান-সংক্রান্ত একটি প্রশ্নপত্র পূরণ করতে দেয়া হয়। সব তথ্য জড়ো করার পর গবেষকদের সামনে কোলোরেক্টাল ক্যান্সার প্রতিরোধে কফির কার্যকারিতা স্পষ্ট হয়ে ওঠে।

বিষয়টি নিয়ে গবেষণাপত্রের জ্যেষ্ঠ লেখক ড. স্টিফেন গ্রুবারের মন্তব্য, ‘আমরা দেখতে পেয়েছি কফি পানের সঙ্গে কোলোরেক্টাল ক্যান্সারের ঝুঁকি হ্রাস পাওয়ার সম্পর্ক রয়েছে। সাধারণত কফি যত বেশি পান করা হবে, এ ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিও তত হ্রাস পাবে। এমনকি পরিমিত হারে পান করলেও মানবদেহে রোগটির দানা বাঁধার ঝুঁকি কমে ২৬ শতাংশ পর্যন্ত। তবে গবেষণায় অংশ নেয়াদের মধ্যে যারা দিনে আড়াই কাপের বেশি কফি খেয়েছেন, তাদের মধ্যে এ রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কমেছে ৫০ শতাংশ পর্যন্ত।

তবে সবচেয়ে অবাক করা বিষয় হলো, এতে ক্যাফেইনের কোনো ভূমিকাই নেই। পর্যবেক্ষণে অংশ নেয়াদের মধ্যে ক্যাফেইনেটেড ও ডিক্যাফেইনেটের কফির প্রভাব পড়েছে সমানভাবেই। ফলে গবেষকদের কাছে পরিষ্কার হয়ে ওঠা আরেকটি বিষয় হলো, ক্যাফেইন নয়, কফিতে উপস্থিত অন্য আরেকটি উপাদানের কারণেই কোলোরেক্টাল ক্যান্সারের ঝুঁকি কমে যায়। গবেষণাটি আমেরিকান অ্যাসোসিয়েশন অব ক্যান্সার রিসার্চের ‘ক্যান্সার এপিডেমিওলজি, বায়োমার্কস অ্যান্ড প্রিভেনশন’ শীর্ষক এক জার্নালে সম্প্রতি প্রকাশ করা হয়েছে।

এফ/২৩:১২/০২ এপ্রিল

সচেতনতা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে