Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৪-০২-২০১৬

শিরশ্ছেদের রেকর্ড গড়ছে সৌদিআরব

শিরশ্ছেদের রেকর্ড গড়ছে সৌদিআরব

রিয়াদ, ০২ এপ্রিল- চলতি বছরের প্রথম তিন মাসেই সৌদিআরব ৮২ জনের শিরশ্ছেদ করেছে। গত বছরের শুরুর তিন মাসে দেশটি যত মানুষের শিরশ্ছেদ করেছে, চলতি বছরের প্রথম তিন মাসেই তার দ্বিগুন শিরশ্ছেদ করা হয়েছে। আর এই ঘটনায় বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় মানবাধিকার সংস্থাগুলো মানবাধিকার ইস্যুতে যুক্তরাজ্যের সঙ্গে সৌদিআরবের ঘণিষ্ঠ সম্পর্ক নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। মানবাধিকার সংস্থাগুলোর মতে, যুক্তরাজ্য উপসাগরীয় মিত্র রাষ্ট্রটিকে শিরশ্ছেদ বন্ধে যথেষ্ট চাপ প্রয়োগ করছে না। আশঙ্কা প্রকাশ করে আরও বলা হচ্ছে, যদি এই হারে শিরশ্ছেদ চলতে থাকে, তাহলে চলতি বছরের শেষে শিরশ্ছেদের সংখ্যা ৩২০’এ ঠেকতে পারে।

আর তাই যদি হয় তাহলে গত বছরের দ্বিগুন হবে চলতি বছরের শিরশ্ছেদের সংখ্যা। ২০১৫ সালে মোট ১৫৮ বন্দীর শিরশ্ছেদ করেছিল সৌদিআরব। পাশাপাশি ২০১৪ সালে শিরশ্ছেদের সংখ্যা ছিল ৮৮জন। দেখা যাচ্ছে, প্রতিবছরই সৌদিআরবে শিরশ্ছেদের সংখ্যা বাড়ছেই। সৌদিআরবের মন্ত্রনালয় সূত্রে এই পরিসংখ্যান জানা যায়। এছাড়াও যুক্তরাজ্যের মানবাধিকার সংস্থা রিপ্রাইভ তাদের প্রভাব খাটিয়ে তথ্যের সত্যতা যাচাই করে। সংস্থাটি এবিষয়ে সৌদি প্রশাসনের গুরুত্বপূর্ণ কর্তব্যক্তিদের সাক্ষ্য গ্রহন করে।

সপ্তাহের শুরুর দিকে যুক্তরাজ্যের প্রতিরক্ষা সচিব মাইকেল ফ্যালন হঠাৎ করেই সৌদিআরব সফরে গিয়েছিলেন। ওই সফরে ফ্যালন যুক্তরাজ্য-সৌদিআরব প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাকে আর শক্তিশালী করার তাগিদে দ্বিপাক্ষিক ভৈঠক করেন। সেসময় তিনি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী যুবরাজ মোহাম্মদ বিন নায়েফ বিন আবদুল্লাহ আল সাউদের সঙ্গে বৈঠক করেন। উল্লেখ্য যে, এই যুবরাজই সৌদিআরবে শিরশ্ছেদের আদেশ দেবার ক্ষমতা রাখেন। প্রতিরক্ষা সচিব ফ্যালন সৌদিআরব থেকে চলে যাবার দুদিন পরেও আরও দুজনের শিরশ্ছেদ করা হয় এই যুবরাজের নির্দেশে।


ফ্যালনের ওই সফরকালীন সময়ে তিনি সৌদিআরবের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী মোহাম্মদ বিন সালমান বিন আবদুল আজিজ এবং সৌদি রাজপরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সঙ্গে দেখা করেন। এবিষয়ে যুক্তরাজ্যের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে বলা হয়, ‘বৈশ্বিক হুমকি মোকাবেলায় দুদেশের মধ্যকার সম্পর্ক উন্নয়নেই ওই সফর এবং আদর্শিকভাবে দায়েশকে প্রতিহত করা ও আঞ্চলিক স্থিতিশীলতা আনয়নে ওই বৈঠক করা হয়।’ যদিও ফ্যালন শিরশ্ছেদ ইস্যুতে কোনো বক্তব্য প্রদান করেছেন কিনা এবং এবিষয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর সঙ্গে কোনো আলোচনা করেছেন কিনা তা জানা যায়নি। মানবাধিকার সংস্থাগুলো আলী আল নিমর, দাউদ আল মারহুন এবং আবদুল্লাহ আল জাহেরের ভাগ্য নিয়ে গভীর উদ্বেগের মধ্যে ছিল। এদের সবাইকে যে অপরাধে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে সৌদি রাজপরিবার, ওই একই অপরাধ বিভিন্ন সময়ে যুবরাজেরাও করেছিল। এই তিন বন্দীকে যেকোনো সময় শিরশ্ছেদ করতে পারে সৌদিআরব।

রিপ্রাইভের ডেথ প্যানাল্টি বিভাগের প্রধান হ্যারিয়েট ম্যাককুলখ বলেন, ‘দেখা যাচ্ছে সৌদিআরব তাদের নিজেদের করা রেকর্ডই ভাঙতে যাচ্ছে চলতি বছরে। এটাই খুবই গুরুত্বপূর্ণ যে সৌদিআরবের মিত্র রাষ্ট্র যেমন যুক্তরাজ্য, ইউরোপ এবং যুক্তরাষ্ট্রের উচিত অনতিবিলম্বে শিরশ্ছেদ বন্ধে তাদের চাপ দেয়া। সৌদি রাজতন্ত্রের ভেতরে এক গভীর অবিচার কাজ করছে। অনেক ক্ষেত্রেই দেখা গেছে, অপরাধী না হওয়া স্বত্ত্বেও তার শিরশ্ছেদ করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র এবং যুক্তরাজ্যের উচিত এখনই আলী, দাউদ এবং আবদুল্লাহর শিরশ্ছেদ ঠেকাতে উদ্যোগ নেয়া।’

আর/১৮:১৭/০২ এপ্রিল

মধ্যপ্রাচ্য

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে