Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৪-০২-২০১৬

ঢাকা-কলকাতা রেল সার্ভিস

মুস্তাফিজ মামুন


ঢাকা-কলকাতা রেল সার্ভিস

এক সময় তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান ও ভারতের সঙ্গে রেলপথে যোগাযোগ ছিল। তবে ১৯৬৫ সালে এক যুদ্ধের পর দুই দেশের সঙ্গে সে যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়। দীর্ঘ সময় পর আবার সেই রেল যোগাযোগের সূচনা হয় ২০০৮ সালে। সে বছর পহেলা বৈশাখে আবার শুরু হয় ঢাকা-কলকাতা রেলসার্ভিস।

মৈত্রী এক্সপ্রেস নামে এই ট্রেন শুরুতে সপ্তাহে উভয় প্রান্ত থেকে দুটি করে ট্রেন চলাচল করত। বর্তমানে ঢাকার ক্যান্টনমেন্ট রেলওয়ে স্টেশন এবং কলকাতার চিতপুর রেলওয়ে স্টেশন থেকে সপ্তাহে তিনটি করে ট্রেন দুই দেশের মধ্যে চলাচল করে।

ঢাকার ক্যান্টনমেন্ট রেলওয়ে স্টেশন থেকে শুক্রবার, সোমবার এবং বুধবার বাংলাদেশ সময় সকাল ৮টা ১০ মিনিটে কলকাতার উদ্দেশ্যে একটি ট্রেন ছেড়ে যায়। একইভাবে কলকাতার চিতপুর রেলওয়ে স্টেশন থেকে শনিবার, রবিবার ও মঙ্গলবার ভারতীয় সময় সকাল ৭টা ১০ মিনিটে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে।

বাংলাদেশ এবং ভারত- দুদেশের রেল কর্তৃপক্ষ এই রুটটি পরিচালনা করে। কাস্টমস এবং ইমিগ্রেশন মিলিয়ে প্রায় ১৩ ঘণ্টা সময় লাগে ঢাকা থেকে কলকাতা পৌঁছুতে। নিজনিজ ভূখণ্ডে নিজ দেশের চালক, নিজ দেশের ইঞ্জিন দিয়ে বদল হয়। কাস্টমস এবং ইমিগ্রেশনের কার্যাদি বাংলাদেশ অংশে দর্শনা এবং ভারত অংশে গেদে রেলওয়ে স্টেশনে সম্পন্ন হয়।

টিকেট সংগ্রহ
ঢাকা কলকাতা রুটের টিকেট সংগ্রহের জন্য ভিসাযুক্ত পাসপোর্ট প্রয়োজন। ঢাকার কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন ও কলকাতার চিতপুর রেলওয়ে স্টেশনে আন্তর্জাতিক এ রুটের জন্য এক পথের কিংবা রিটার্ন টিকেট সংগ্রহ করা যায়।

প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত টিকিট প্রদান করা হয়। রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের নির্ধারিত ফর্ম পূরণ করে কাউন্টারে দিলে টিকিট পাওয়া যায়। রেল যোগে যাতায়াতের জন্য ভিসা আবেদনপত্রে বাংলাদেশিদের ‘গেদে’ এবং ভারতীয়দের জন্য ‘দর্শনা’ সীমান্ত দিয়ে প্রবেশ উল্লেখ করা বাধ্যতা মূলক। 

ভাড়া
এ রুটে এক পথের ভাড়া এসি কেবিন প্রতিসিট ২০ মার্কিন ডলার সঙ্গে ১৫% ভ্যাট। এসি চেয়ার ১২ মার্কিন ডলার সঙ্গে ১৫% ভ্যাট এবং নন এসি চেয়ার ৮ মার্কিন ডলার। সব শ্রেণির টিকিটের সঙ্গে ৫শ’ টাকা ট্রাভেল ট্যাক্স যোগ হবে। প্রাপ্তবয়স্কদের সঙ্গে ৫ বছর বা এর কম বয়সীরা ৫০% কম ভাড়ায় ভ্রমণ করতে পারে। 

ব্যাগেজ
প্রত্যেক প্রাপ্ত বয়স্ক টিকিটের বিপরীতে ৩৫ কেজি ওজনের লাগেজ নেওয়া যায়। আর শিশু টিকেটের বিপরীতে ২০ কেজি ওজনের লাগেজ নেওয়া যায়। স্ক্যানিং মেশিনে স্ক্যান করার জন্য লাগেজের আকার ৬৫ সে.মি. ও ৪০ সে.মি. এর মধ্যে হতে হয়। একজন যাত্রী  সর্বোচ্চ দুটি লাগেজ বহন করতে পারবেন। নির্ধারিত ওজনের বেশি লাগেজের জন্য নির্ধারিত মাশুল আছে।

৩৫ কেজির পরে ৫০ কেজি পর্যন্ত প্রতি কেজির জন্য ২ মার্কিন ডলার এবং ৫০ কেজির পরে অপর প্রতি কেজির জন্য ১০ মার্কিন ডলার মূল্য পরিশোধ করতে হয়। শিশুদের টিকেটের ক্ষেত্রে ২০ কেজির পর থেকে ৩৫ কেজি পর্যন্ত প্রতি কেজিরমূল্য ২ মার্কিন ডলার এবং ৩৫ কেজির পরে প্রতি কেজির মূল্য ১০ মার্কিন ডলার।

এফ/০৯:৪৫/০২ এপ্রিল

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে