Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৩-৩১-২০১৬

চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে পারবেন তো ফখরুল?

চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে পারবেন তো ফখরুল?

ঢাকা,  ৩১ মার্চ- প্রায় ৫ বছর পর ভারমুক্ত হয়ে বিএনপির পূর্ণাঙ্গ মহাসচিব হয়েছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। গত বুধবার তাকে বিএনপির মহাসচিব মনোনীত করেন দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। দলের সংকটকালীন সময়ে পূর্ণাঙ্গ মহাসচিব হবার পর চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করেই এগোতে হবে মির্জা ফখরুলকে এমনই মনে করছেন বিএনপির সিনিয়র নেতারা।

গত ১৯ তারিখ অনুষ্ঠিত দলের ষষ্ট জাতীয় কাউন্সিলে মহাসচিবসহ দলের স্থায়ী কমিটি ও নির্বাহী কমিটির পদগুলোতে নেতা নির্বাচনের সর্বময় ক্ষমতা ও কর্তৃত্ব খালেদা জিয়াকে দেন কাউন্সিলররা। কাউন্সিলরদের দেয়া ক্ষমতা বলেই ফখরুলকে মহাসচিব নির্বাচিত করলেন খালেদা জিয়া। এরআগে ফখরুলকে ভারপ্রাপ্ত মহাসচিবের দায়িত্ব দিয়ে ছিলেন তিনি।

ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব থাকতেই অনেক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হয়েছে দলের এ 'পরীক্ষিত' নেতাকে। মোট ৭বার যেতে হয়েছে কারাগারে। বর্তমানে তার বিরুদ্ধে রয়েছে ৮৮টি মামলা। এছাড়া বারবার অসুস্থ থাকার পরেও দলের প্রয়োজনে নির্ঘুম রাত কাটাতে হয়েছে তাকে।

গতকাল দলের মহাসচিব হবার পরেই কারাগারে যেতে হয়েছে ফখরুলকে। কারাগারে যাওয়ার সোয়া চার ঘণ্টার মধ্যেই জামিনে মুক্ত হন ফখরুল। মুক্তি পাওয়ার পরই নেতাকর্মীরা একেক করে অভিনন্দন জানান তাদের নয়া মহাসচিবকে।

অন্যদিকে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া। বুধবার রাতে গুলশানে চেয়ারপারসনের বাসভবনে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান তিনি।

ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব থাকাকালীন বিএনপির বিভিন্ন পর্যায়ের কমিটির বিরোধ নিষ্পত্তির চেষ্টা করেন ফখরুল। দলের নেতাকর্মীদের কেউ কেউ বলছেন, তিনি প্রত্যাশার চেয়েও বেশি সফল হয়েছেন। ঢাকা ও চট্টগ্রামের নেতাদের বিরোধ যাতে প্রকাশ্যে না আসে, সেই উদ্যোগ নিয়েও সফল হয়েছেন বলে জানান দলের নেতাকর্মীরা।

এদিকে জোটের সমন্বয়কের দায়িত্বও পালন করেছেন তিনি। সরকারবিরোধী আন্দোলনের সময় কর্মসূচি সংঘাতপূর্ণ না করে শান্তিপূর্ণ করার চেষ্টা চালিয়ে দলের ভেতরে ও বাইরেও প্রশংসিত হন ফখরুল। সাংগঠনিক দক্ষতা, খালেদার প্রতি আনুগত্য এবং দলের জন্য ত্যাগ স্বীকারের কারণেই জন্য মির্জা ফখরুলকে মহাসচিব করা হয়।

মহাসচিব হবার পর দায়িত্ব বেড়ে গেল ফখরুলের। দীর্ঘদিন ধরে ক্ষমতার বাহিরে থাকা এ দলকে নিয়ে যেতে হবে অনেক দূর। এটা ফখরুল ইসলামের জন্য একটা চ্যালেঞ্জও বটে। আর এ চ্যালেঞ্জ তিনি মোকাবেলা করতে পারবেন বলেও বিশ্বাস দলের নেতাকর্মীদের।

এ বিষয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক সেনা প্রধান লে. জে. (অব.) মাহবুবুর রহমান বলেন, 'ফখরুল ইসলাম আলমগীর দলের জন্য ত্যাগী। আমি আশা করছি, তিনি তার দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করে যাবেন। তিনি দলের জন্য যে কোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে পারবেন বলে আমি বিশ্বাস করি।'

অন্যদিকে দলের ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান বলেন, ‘ফখরুল ইসলাম আলমগীর আগেও দলের জন্য ত্যাগ স্বীকার করে গেছেন। এখনও করবেন।’

আর/১০:৫৫/৩১ মার্চ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে