Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 2.0/5 (4 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৩-২৯-২০১৬

তনু হত্যার সুষ্ঠু তদন্তে সহযোগিতা ও সময় চায় পুলিশ

তনু হত্যার সুষ্ঠু তদন্তে সহযোগিতা ও সময় চায় পুলিশ

ঢাকা, ২৯ মার্চ- কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজের ছাত্রী সোহাগী জাহান তনুর মর্মান্তিক হত্যাকাণ্ডের আসামি গ্রেপ্তারের দাবিতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এবং ব্যক্তিবর্গের আন্দোলন পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের দৃষ্টি আকৃষ্ট হয়েছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পুলিশ সদর দপ্তরের অ্যাডিশনাল ডিআইজি নজরুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স মানুষের ওই অনুভূতি ও দাবিকে যথাযথভাবে সম্মান করে। ঘটনার গুরুত্ব অনুধাবন করে বিশেষজ্ঞ ইউনিট সিআইডিকে এই হত্যাকাণ্ডে তদন্তের ভার দেয়া হয়েছে। সাথে জেলা পুলিশ এবং গোয়েন্দা পুলিশও কাজ করছে।

লক্ষ্যণীয় যে, তনু হত্যাকাণ্ড প্রকাশ্যে ঘটেনি। তাই সুস্পষ্ট এবং সুনির্দিষ্ট কোনো ব্যক্তির বিরুদ্ধে প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষ সাক্ষ্য সংগ্রহ করা সময় সাপেক্ষ বিষয়। নানা বস্তুগত সাক্ষ্য, পারিপার্শিক সাক্ষ্য, বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে সাক্ষ্য সংগ্রহ করা, বিশ্লেষণ এবং মূল্যায়নের মাধ্যমে এ ধরনের ক্লুলেস অপরাধে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে চিহ্নিত করা হয়।

অনুমানের ভিত্তিতে কোনো ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করলে সেক্ষেত্রে ভুল হওয়ার সম্ভাবনা থেকে যায়। তদন্তে ভুল হলে সবার কাছেই তা প্রশ্লবিদ্ধ হয়। এমনকি প্রকৃত দায়ী ব্যক্তি সেই ভুলের দিকে আঙ্গুল তুলে নানা সুযোগ গ্রহণ করতে পারে। এতে মামলাটির ন্যায়বিচার ব্যাহত হবার আশঙ্কা থেকে যায়। সেজন্য সাক্ষ্য প্রমাণের ভিত্তিতে প্রকৃত আসামি চিহ্নিত করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তনু হত্যাকাণ্ডের প্রকৃত আসামিকে চিহ্নিত করেই তাকে গ্রেপ্তার করার ব্যাপারে আমরা প্রত্যয়ী। তবে এটা অবশ্যই সময় সাপেক্ষ।

আরো লক্ষ্যণীয় যে, পুলিশকে বেশিরভাগ সময়ই কাজ করতে হয় আইন-কানুন ও বিধি-বিধানের মধ্যে থেকে। পুলিশের পেশাগত জ্ঞান, অভিজ্ঞতা ও দন্ধতা সম্বলিত তদন্ত কর্মকর্তাদের এ ধরনের ক্লুলেস ও স্পর্শকাতর মামলার রহস্য উদ্ঘাটনে যথেষ্ট সাফল্য আছে। ক্লুলেস মামলা তদন্ত করা সব সময়ই একটি বড় চ্যালেঞ্জ। এ মামলার তদন্তের জন্য গঠিত তদন্ত টিম এই মামলাটিতে উদঘাটনে যথাযথ মনোযোগী এবং আন্তরিক।

তনু হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটনেও আমরা বদ্ধপরিকর। যারা এই হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদ্ঘাটনের দাবি জানাচ্ছেন- তাদের দাবির প্রতিও আমাদের শ্রদ্ধা রয়েছে। তবে সেজন্য রাস্তা ঘাটে প্রতিবদ্ধকতা সৃষ্টি হলে সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ বাড়ে। পুলিশের অপরাধ দমন এবং উদঘাটনের পেশাগত দায়িত্বও বাধাগ্রস্ত হয়। কোনো হত্যাকাণ্ডের জড়িত আসামিদের গ্রেপ্তারের জন্য কোনো আন্দোলন বা বিক্ষোভের প্রয়োজন নেই। এটা পুলিশের পেশাগত ও নৈতিক দায়িত্ব। এ দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করতে আমরা অঙ্গীকারাবদ্ধ। সেজন্য আমরা সবার কাছে তনু হত্যাকাণ্ডের যথাযথ তদন্তের জন্য অনুকূল সহযোগিতা প্রত্যাশা করি। এক্ষেত্রে সমব্যথী সকলকে ধৈর্য ধরে পুলিশী তদন্তে সহযোগিতা করার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ জানানো হচ্ছে।

এফ/২২:৫৭/২৯মার্চ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে