Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 2.4/5 (17 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৩-২৬-২০১৬

৪৩ বিভাগের ৩২টিতেই কোনো অধ্যাপক নেই

আবুল কালাম মুহম্মদ আজাদ


৪৩ বিভাগের ৩২টিতেই কোনো অধ্যাপক নেই

রাজশাহী, ২৬ মার্চ- রাজশাহী মেডিকেল কলেজে মোট বিভাগ রয়েছে ৪৩টি। এর মধ্যে ৩২টিতেই কোনো অধ্যাপক নেই। আবার ১০টি বিভাগে অধ্যাপকের পদই সৃষ্টি করা হয়নি। সব মিলিয়ে প্রতিষ্ঠানটিতে ৭৩ জন চিকিৎসকের পদ শূন্য রয়েছে।

অভিজ্ঞ শিক্ষকের অভাবে উত্তরাঞ্চলের সবচেয়ে বড় এই মেডিকেল কলেজে ব্যাহত হচ্ছে মানসম্মত পাঠদান ও হাসপাতালের চিকিৎসা কার্যক্রম। ১৭টি বিভাগে স্নাতকোত্তর ও ডিপ্লোমা কোর্স চালু রয়েছে এখানে। কিন্তু সেসব বিভাগ ও কোর্সও অভিজ্ঞ শিক্ষকের সংকটে ভুগছে।

কর্তৃপক্ষ বলছে, অভিজ্ঞ চিকিৎসক সংকটের বিষয়টি বারবার শীর্ষ পর্যায়ে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে। কিন্তু কোনো উদ্যোগ নেই। কলেজ সূত্রে জানা যায়, স্নাতকোত্তর ও ডিপ্লোমা কোর্স চালু হওয়া ১৭টি বিভাগের অনেকগুলোতেই অধ্যাপক নেই। সেখানে পাঠদান করাচ্ছেন সহকারী ও সহযোগী অধ্যাপক পর্যায়ের শিক্ষকেরা। কিন্তু প্রভাষক, কনসালট্যান্ট ও সহকারী অধ্যাপকের পরীক্ষা নেওয়ার এখতিয়ার না থাকায় অন্য মেডিকেল কলেজ থেকে অধ্যাপক এনে পরীক্ষা নেওয়া হয়।

সূত্র জানায়, মেডিসিন বিভাগে স্নাতকোত্তর কোর্স চালু আছে। এই বিভাগে তিনটি অধ্যাপকের পদ থাকলেও একজনও নেই। এখানে বিভাগীয় প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন একজন সহযোগী অধ্যাপক। দুজন সহকারী অধ্যাপক বাইরে থেকে এসে সংযুক্ত রয়েছেন। একইভাবে ফিজিওলজি বিভাগে অধ্যাপকের পদ থাকলেও সেটিও শূন্য রয়েছে। এ ছাড়া দুজন সহকারী অধ্যাপক ও একজন প্রভাষকের পদও শূন্য সেখানে। একজন সহযোগী অধ্যাপক বিভাগীয় প্রধানের দায়িত্ব পালন করছেন। এই বিভাগেও স্নাতকোত্তর কোর্স রয়েছে।
সার্জারি বিভাগেও একই দশা। স্নাতকোত্তর কোর্স চালু থাকলেও অধ্যাপকের পদটি শূন্য। একজন চলতি দায়িত্বের অধ্যাপক বিভাগীয় প্রধানের দায়িত্ব পালন করছেন। এ ছাড়া শূন্য রয়েছে বিভাগের একজন সহযোগী অধ্যাপক ও তিনজন সহকারী অধ্যাপকের পদও।
স্ত্রী ও গাইনি বিভাগের দুটি অধ্যাপকের পদই খালি রয়েছে। শূন্য রয়েছে সহকারী অধ্যাপকের পদও। এখানেও স্নাতকোত্তর কোর্স রয়েছে।
শিশু বিভাগে চলতি দায়িত্বের একজন অধ্যাপক বিভাগীয় প্রধানের দায়িত্ব পালন করছেন। সেখানে দুজন সহযোগী অধ্যাপকের দুটি পদই শূন্য। খালি রয়েছে দুজন সহকারী অধ্যাপকের পদও। নিউরোলজি বিভাগেও উচ্চতর শিক্ষার কোর্স আছে। কিন্তু বিভাগটিতে অধ্যাপকের কোনো পদই সৃষ্টি করা হয়নি। রেডিওথেরাপি বিভাগেও এই কোর্স চালু থাকলেও একজন সহযোগী অধ্যাপক বিভাগটি চালাচ্ছেন। অধ্যাপক ও সহকারী অধ্যাপকের পদটি শূন্য রয়েছে। এ ছাড়া অর্থোপেডিক সার্জারি বিভাগ ডিপ্লোমা কোর্স চালু করেছে। কিন্তু সেখানেও অধ্যাপকের পদটি শূন্য।

একইভাবে সাধারণ বিভাগগুলোতেও অনেক পদ শূন্য রয়েছে। এর মধ্যে এন্ডোক্রাইনোলজি বিভাগে একজন অধ্যাপক, একজন সহযোগী অধ্যাপক ও একজন সহকারী অধ্যাপকের পদে কোনো চিকিৎসক নেই। গ্যাস্ট্রোএন্টারোলজি বিভাগে একজন অধ্যাপক, একজন সহযোগী ও দুজন সহকারী অধ্যাপকের মধ্যে রয়েছেন শুধু সহযোগী অধ্যাপক। রেডিওলজি বিভাগে একজন অধ্যাপকের পদ, তাও শূন্য।
সূত্রটি আরও জানায়, নিউরো সার্জারি বিভাগে অধ্যাপকের পদই সৃষ্টি করা হয়নি। তা ছাড়া একজন সহযোগী ও একজন সহকারী অধ্যাপক থাকার কথা থাকলেও তা শূন্য। নাক, কান ও গলা বিভাগের অধ্যাপকের পদটিও শূন্য রয়েছে। ইউরোলজি বিভাগে অধ্যাপকের পদই সৃষ্টি করা হয়নি। তিনটি পদের মধ্যে মাত্র একজন সহকারী অধ্যাপক বিভাগটি চালাচ্ছেন।

বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগেও অধ্যাপকের পদ সৃষ্টি করা হয়নি। একজন সহকারী অধ্যাপক বিভাগটি চালাচ্ছেন। একইভাবে ফিজিক্যাল মেডিসিন বিভাগ চালাচ্ছেন একজন সহকারী অধ্যাপক। একজন করে অধ্যাপক ও সহকারী অধ্যাপকের পদ থাকলেও তাও খালি রয়েছে। আর অধ্যাপক বা সহকারী অধ্যাপকের কোনো পদ সৃষ্টি না করেই খোলা হয়েছে শিশু হেমাটোলজি অ্যান্ড অনকোলজি বিভাগ। বিভাগটি চালাচ্ছেন একজন সহকারী অধ্যাপক। অধ্যাপক ও সহযোগী অধ্যাপকের পদ শূন্য রয়েছে।

জানতে চাইলে রাজশাহী মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ নওশাদ আলী বলেন, ৫০ জন শিক্ষার্থীর জন্য ১৯৫৮ সালে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ করা হয়েছিল। এখন প্রতি ব্যাচে ২৬০ জন করে শিক্ষার্থী ভর্তি হয়। সব সময় পাঁচটি ব্যাচ থাকে। শয্যাসংখ্যা দ্বিগুণ হলেও এখনো ওষুধ আসে ৫৬০ জন রোগীর জন্য।

নওশাদ আলী বলেন, অভিজ্ঞ চিকিৎসকের পদ খালি হলে আর পূরণ হয় না। কনিষ্ঠ চিকিৎসক দিয়ে স্নাতকোত্তর কোর্সের ক্লাস নেওয়া হচ্ছে। এতে মানসম্মত শিক্ষা ব্যাহত হচ্ছে।

এস/১৮:১০/২৬ মার্চ

রাজশাহী

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে