Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 1.4/5 (8 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৩-২৪-২০১৬

বাড়ি ফাঁকা পেলে বাঙালি কী কী করে?

বাড়ি ফাঁকা পেলে বাঙালি কী কী করে?

যৌথ পরিবার বাঙালির জীবন থেকে ধাঁ হওয়ার পরে বঙ্গপুঙ্গবরা কি ভেবেছিলেন যে, এইবারে সেই কাঙ্ক্ষিত নৈরাজ্য সমাগতপ্রায়, যার আশায় কেটে গিয়েছে জেনারেশনের পর জেনারেশন। কিন্তু বাঙালির প্রাইভেসির সেই জিভ লকলক আশায় ছাই দিয়ে বাড়ি তেমন ফাঁকা আর হল কই

বাড়ি ফাঁকা পাওয়া বাঙালি জীবনে বিরলতম মওকাগুলির মধ্যে অন্যতম। ‘মওকা’ একারণেই যে, আবহমানকালে বাঙালি এত কম বার এমন সুযোগ পেয়েছে যে, তাকে ‘মওকা’ না-বললে অপমান করা হয়। জিন্দেগিকে সফর মেঁ যাতে সেই মওকা গুজরে না যায়, তার জন্য বাল্যকাল থেকে কত না প্ল্যান, কত না ফিস ফিস। কিন্তু সেই ফাঁকা বাড়ি, সেই সন্নাটা কি আপনার জীবনে এসেছে? কতবার? এলেও কি সদ্ব্যবহার করে উঠতে পেরেছেন সেই শূন্যতার?

যৌথ পরিবার বাঙালির জীবন থেকে ধাঁ হওয়ার পরে বঙ্গপুঙ্গবরা কি ভেবেছিলেন যে, এইবারে সেই কাঙ্ক্ষিত নৈরাজ্য সমাগতপ্রায়, যার আশায় কেটে গিয়েছে জেনারেশনের পর জেনারেশন। কিন্তু বাঙালির প্রাইভেসির সেই জিভ লকলক আশায় ছাই দিয়ে বাড়ি তেমন ফাঁকা আর হল কই! যৌথ পরিবারের আমলে বাড়ি ফাঁকা হওয়ার কথা কেউ ভেবেছিলেন? বঙ্কিমচন্দ্র, রবীন্দ্রনাথ, শরৎবাবু— কারোর লেখাতেই তেমন কোনও সাক্ষ্য পাওয়া যায় না। এই পরোক্ষ প্রমাণ থেকেই সিদ্ধান্তে আসতে হয়, সেই প্রাইভেসিহীনতার কাল থেকে কী পরিমাণ কাঙ্ক্ষার ঝংকার বাঙালির তলপেটে জমা হয়ে থেকেছে।

তার পরে যে কালে বাঙালি তার ঘাড় থেকে যৌথতার বোঝা নামাতে সমর্থ হল, সেই কালে তার চাহিদাও গেল দেদার পরিমাণে বেড়ে। বঙ্কিম-শরতের কালে যদি ফাঁকা বাড়িতে বন্ধু ডেকে আড্ডা বসানোর খোয়াইশ থেকে থাকে, তবে সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় তাঁর ‘একা এবং কয়েকজন’ উপন্যাসে ফাঁকা বাড়ির মওকায় নায়ককে ডাকতে বাধ্য করেছিলেন বান্ধবীকে। কিন্তু সেই ফাঁকা বাড়ির উল্লাস চুম্বনের অতিরিক্ত গড়ায়নি। তার পরে কি সময়ের সঙ্গে সঙ্গে ছবি বদলেছে? নাকি, সেই একই স্থবিরতায় আটকে রয়েছে বঙ্গজন? এই অবকাশে দেখে নেওয়া যেতে পারে বাড়ি ফাঁকা পেলে বাঙালি কদ্দূর কী করতে পারে, তার একটা ছোট লিস্টি।

• বাল্যকালে ‘বাপি আর মা, গেছে সিনেমা’-পরিস্থিতিতে বড়জোর রেকি, ফুড হান্টিং। তাই হাতড়া-হাতড়িতেই কখনও কখনও বেরিয়ে আসত পেরেন্টাল সিক্রেটস। এভাবেই হাতে আসে দেরাজের কোণে রাখা কন্ডোমের প্যাকেট। হয়তো বা কিশোর দাদার লুকিয়ে রাখা পর্নোগ্রাফি চটিপুস্তক।

• কৈশোরে ফাঁকা বাড়ি পাওয়া মানে হাতে চন্দ্র, কাঁধে পক্ষ। কী যে করি, কী যে করি ভাবতে ভাবতেই সময় গড়িয়ে যেত। ফিরে আসত লোকজন।

• প্রথম যৌবনে ফাঁকা বাড়ি মানে পানুদর্শন, একটু লম্বা ফাঁকা মানে মাল্লু সেবন। আর একটু লম্বা হলে ইয়ার-দোস্ত জুটিয়ে নিষ্পাপ অর্জি (অযৌন)।

• যৌবন গাঢ় হলে বান্ধবী সমভিব্যহার । নীল আলো। ‘যাও দুষ্টু...’

• বিবাহিত পুরুষের কাছে বাড়ি ফাঁকা মানে ব্যাচেলর জীবনে প্রত্যাবর্তনের ডাক। প্রথমে জগঝম্প, পরে ঢুকুচুকু। এক্সট্রা ম্যারিটাল থাকলে চুকুরচুকু।

• বঙ্গললনারা অবশ্য হামেশাই ফাঁকা বাড়ি পান। পেয়েই থাকেন। তেমন হলে বড়জোর তাঁরা খানিকটা সেজে নেন। যে প্রসাধন কোনওদিনই প্রাকাশ্য পরবেন না, সেই সব পরে আয়নাবাজি করেন। খুব বেশি হলে গয়নার বাক্স খুলে দিদিমার বিছে হার কোমরে জড়িয়ে লাস্য করেন দর্পণে শরৎশশীবর্গ।

• যেটা সব থেকে কমন। বাড়ি ফাঁকা হবে জেনে হ্যান করেঙ্গা-ত্যান করেঙ্গা-ফ্যানজোলেঙ্গা আউড়ে ফাঁকা বাড়িতে ঘুমিয়ে পড়েন বেমালুম। 

এফ/২২:৩০/২৪মার্চ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে