Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৩-২৩-২০১৬

‘আমি ব্যালট কাটছি ওরা সিল মারছে’

‘আমি ব্যালট কাটছি ওরা সিল মারছে’

ঢাকা, ২৩ মার্চ- ‘আমি ব্যালট কাটছি, ওরা সিল মারছে। বেশি কাটি নাই, মাত্র ৫০-৬০টা কাটছি। বাইরের লোকজন আইসা এই কাজ করছে। ভয়ে ওগো কিছু কইতে পারি নাই।’

কথাগুলো বলছিলেন ঢাকার দোহার উপজেলার কুসুমহাটি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) ৫১ নম্বর চরকুসাই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা এরশাদ হোসেন। এ ইউপির প্রায় সব কটি কেন্দ্রে জাল ভোট ও অনিয়মের অভিযোগে বিএনপির প্রার্থী মাহবুব রহমান নির্বাচন বর্জন করেন।

উপজেলার পাঁচটি ইউপি নির্বাচনে গতকাল মঙ্গলবার বেলা দুইটার পর থেকে সংঘর্ষ, জাল ভোট, জোর করে ব্যালট পেপারে সিল মারাসহ নানা অনিয়মের চিত্র দেখা গেছে। এর আগ পর্যন্ত ৫৩টি ভোটকেন্দ্রের বেশির ভাগেই ভোট শান্তিপূর্ণ ছিল।
বেলা দুইটার দিকে ৫১ নম্বর চরকুসাই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী আমজাদ হোসেনের উপস্থিতিতে কয়েকজন যুবক জাল ভোট দিতে যান। এতে বিএনপির এজেন্ট জাহাঙ্গীর হোসেন প্রতিবাদ করেন। বেলা সাড়ে তিনটার দিকে জাল ভোট দেওয়ার অভিযোগ পেয়ে গণমাধ্যমকর্মীরা ওই ভোটকেন্দ্রের কাছে গেলে পুলিশ তাঁদের বাধা দেয়। সেখানে দায়িত্বরত উপপরিদর্শক (এসআই) কালাম, শাহীন ও মমিন বলেন, সাংবাদিকেরা ভোটকেন্দ্রে প্রবেশ করতে পারবেন না। ওপরের নির্দেশ আছে।

সাংবাদিকেরা প্রিসাইডিং কর্মকর্তার খোঁজ নিলে, তাঁর কক্ষের দরজা বন্ধ পাওয়া যায়। কক্ষে প্রবেশের চেষ্টা করলে প্রিসাইডিং কর্মকর্তা এরশাদ হোসেন কক্ষ খুলে কান্নাজড়িত কণ্ঠে জোর করে ব্যালট পেপারে সিল মারার ঘটনা বর্ণনা করেন। পরে ঘটনাস্থলে গিয়ে দোহার থানার ওসি শেখ সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘সাংবাদিকদের সাথে পুলিশ যে দুর্ব্যবহার করেছে সে জন্য দুঃখ প্রকাশ করছি। পুলিশ বিষয়টি বুঝতে পারে নাই।’

বিকেল পৌনে চারটার দিকে কুসুমহাটি স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ ভোটকেন্দ্রে গেলে সেখানকার প্রধান ফটক বন্ধ পাওয়া যায়। সেখানে কর্তব্যরত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা সাংবাদিকদের দেখে ফটক খুলে দিলে কেন্দ্রের চারটি কক্ষে এলোমেলোভাবে ব্যালট পেপার ও সিল পড়ে থাকতে দেখা যায়।

এ কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা মো. আসাদ বলেন, ‘বেলা সাড়ে তিনটার দিকে বাইরে থেকে কয়েকজন লোক এসে ব্যালট পেপার ছিনিয়ে নিয়ে নিজেরাই সিল মারতে থাকে। তখন তাদের ভয়ে আমি কিছুই বলতে পারি নাই।’

নারিশা ইউপিতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সালাউদ্দিন দরানী বলেন, দক্ষিণ শিমুলিয়া কেন্দ্রে কয়েকজন জাল ভোট দেওয়ার চেষ্টা করে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হস্তক্ষেপে সেখানে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট হয়েছে।

এস/০১:২০/২৩ মার্চ

ঢাকা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে