Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৩-২২-২০১৬

৭১৭ ইউনিয়ন পরিষদে ভোটগ্রহণ শুরু

দীপান্বিতা চামেলী


৭১৭ ইউনিয়ন পরিষদে ভোটগ্রহণ শুরু

ঢাকা, ২২ মার্চ- প্রথমবারের মতো দলীয়ভাবে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে ভোট উৎসব শুরু হয়েছে। ভোটের আগেই ব্যাপক সহিংসতার কারণে ভোটার ও প্রার্থীদের মধ্যে বিরাজ করছে শঙ্কা। সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ৭১৭ ইউপিতে টানা ভোটগ্রহণ চলবে। নির্বাচনে ১৪টি রাজনৈতিক দল অংশ নিলেও জনপ্রিয়তা যাচাইয়ের মূল লড়াই হচ্ছে আওয়ামী লীগের নৌকা ও বিএনপির ধানের শীষের মধ্যে।

নির্বাচনী এলাকায় মাঠে টহলে রয়েছে বিজিবি, র‌্যাব, পুলিশ, কোস্ট গার্ড ও আনসারসহ এক লাখ ৮০ হাজারের বেশি আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। তাৎক্ষণিক সাজা দিতে সঙ্গে রয়েছে নির্বাহী ও জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট।

প্রথম ধাপের ইউপি নির্বাচনের ভোটগ্রহণের সময় ঘনিয়ে আসার সঙ্গে সঙ্গে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে নির্বাচনী পরিবেশ। প্রতিপক্ষের ওপর হামলা, বাড়ি-ঘর ভাঙচুর, প্রচারে বাধা দেয়াসহ সহিংস ঘটনা বেড়েছে। এসব ঘটনায় ব্যবস্থা নিতে স্থানীয় প্রশাসন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও রিটার্নিং কর্মকর্তাকে ব্যবস্থা নিতে শুধু নির্দেশনা পাঠিয়ে দায় সারছে ইসি। ওই সব ঘটনায় কমিশন সচিবালয় থেকে মনিটরিং ও দায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর কোনো পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে না।

নির্বাচন পর্যবেক্ষক সংস্থা ব্রতী-র নির্বাহী পরিচালক শারমিন ‍মুরশিদ বলেছেন, ‘আমরা উদ্বেগে আছি। ভোটারদের মধ্যে শঙ্কা রয়েছে। ইসিকে নির্বিঘ্ন পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে। আগের তুলনায় এবার ভোটের আগেই সহিংসতা হয়েছে অনেক এলাকায়।’

এ অবস্থায় ভোটের পরিবেশ নিয়ে সোমবার (২২ মার্চ) প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিবউদ্দীন আহমদ জানান, প্রথমধাপের ভোটের জন্য সব প্রস্তুতি শেষ হয়েছে। ব্যালট পেপার, স্বচ্ছ ব্যালট বাক্সসহ নির্বাচনী সামগ্রী কেন্দ্রে কেন্দ্রে পৌঁছে গেছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ নির্বাচনী কর্মকর্তারা অনিয়ম ঠেকাতে সজাগ থাকবে। ভোটের সময়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কেউ অনিয়ম ও পক্ষপাতমূলক আচরণ, দায়িত্বে অবহেলা করলে তাৎক্ষণিক শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

প্রার্থী-ভোটার ও ভোটকেন্দ্র
ইউপিতে প্রথম ধাপে ইতোমধ্যে আওয়ামী লীগের ৫৪ জন চেয়ারম্যান, ১৭৯ জন সাধারণ সদস্য ও ৫৪ জন সংরক্ষিত সদস্য পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। আজকের ভোটে তিন হাজার ৩৪ জন চেয়ারম্যান, সাধারণ সদস্য পদে ২৫ হাজার ৮৪৭ জন ও সংরক্ষিত সদস্য পদে সাত হাজার ৫৭৫ জন প্রার্থী রয়েছেন। সবমিলিয়ে মোট প্রার্থী ৩৬ হাজার ৪৫৬ জন।

নির্বাচনে ভোটার এক কোটি ১৯ লাখ ৪০ হাজার ৭৪১ জন। পুরুষ ভোটার ৫৯ লাখ ৯৫ হাজার ২৬৯ জন এবং নারী ৫৯ লাখ ৪২ হাজার ৬৯৪ জন। ছয় হাজার ৯৮৭টি ভোটকেন্দ্র; ভোটকক্ষ ৩৮ হাজারের বেশি। ভোটগ্রহণ কর্মকর্তা প্রায় এক লাখ ২১ হাজার ২০০ জন। 

মাঠে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী
আইন-শৃঙ্খলা রক্ষার্থে মাঠে রয়েছে বিভিন্ন বাহিনীর এক লাখ ৮০ হাজার সদস্য। একইসঙ্গে ৩৪ জেলার ১০১টি উপজেলায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের পাশাপাশি জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটরাও অপরাধ তদারকিতে মাঠে রয়েছেন। উপকূলীয় এলাকায় কোস্ট গার্ড অন্য সকল এলাকায় বিজিবি রয়েছে। প্রতি ইউনিয়নে পুলিশ, এপিবিএন ও ব্যাটালিয়ন আনসার সমন্বয়ে একটি করে মোবাইল এবং স্ট্রাইকিং ফোর্স রয়েছে। 

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্দেশনা সংক্রান্ত পরিপত্র জারি করা হয়েছে। প্রতিটি ভোটকেন্দ্রে ২০ জন করে নিরাপত্তা সদস্য নিয়োজিত রাখা হচ্ছে এবার। ভোটের আগের দুই দিন থেকে ভোটের পরদিন পর্যন্ত চারদিন থাকবে তারা। পরিস্থিতি বিবেচনায় কেন্দ্রভিত্তিক নিরাপত্তা সদস্য বাড়াবে স্থানীয় প্রশাসন।

ইউপি নির্বাচন সুষ্ঠু করতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী সব ধরনের ব্যবস্থা নিয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ মহাপরিদর্শক এ কে এম শহিদুল হক। তিনি জানান, সহিংসতার ঘটনায় এ পর্যন্ত ৫৫টি সাধারণ ডায়েরি ও ১৪৩টি মামলায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে ৯৫ জনকে। তবে সরাসরি কোনো প্রার্থীকে গ্রেপ্তার করা হয়নি বা তাদের বিরুদ্ধে মামলাও হয়নি।

দ্রুত ফলাফল পাঠাতে নির্দেশনা
ইউপি নির্বাচন ভোটগ্রহণ ও গণনা শেষে দ্রুত ফলাফল পাঠাতে রিটার্নিং অফিসারদের বিশেষ নির্দেশনা পাঠিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। রোববার বিকেলে এ নির্দেশনা সব রিটার্নিং অফিসারকে পাঠানো হয়েছে। পাশাপাশি ভোটগ্রহণ শেষে ফলাফল ঘোষণা ও পরবর্তী সময়ে যাতে সহিংসতার সৃষ্টি না হয় সেদিকে দৃষ্টি রাখতে বলা হয়েছে।

হামলা, ভাঙচুর-সহিংসতায় আতঙ্ক
তফসিল ঘোষণার পর থেকে নির্বাচনকেন্দ্রিক সংঘর্ষে অন্তত ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন দুই সহস্রাধিক মানুষ। ইতোমধ্যে বিভিন্ন স্থনে প্রতিপক্ষের ওপর হামলা, বাড়ি-ঘর ভাঙচুর এবং প্রচারে বাধা দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। এ কারণে নির্বাচনী এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে। এ ছাড়া শেষ মুহূর্তে হামলা, ভাঙচুর-সহিংসতার হাজারো অভিযোগ ইসিতে জমেছে। তবে আচরণবিধি লঙ্ঘনের ব্যাপক প্রবণতার কথা মুখে বললেও কঠোর ব্যবস্থা নিতে দেখা যায়নি ইসিকে। নির্বাচন কমিশন নির্বিঘ্নে পরিবেশের আশ্বাস দিলেও এসব কারণে পর্যবেক্ষক মহলে রয়েছে উদ্বেগ।

প্রথম ধাপের ভোটের তথ্য
তফসিলে প্রথম ধাপে ৭৫২ ইউপিতে ভোটের তারিখ ঘোষণা করা হলেও নানা জটিলতায় বাতিল হয়েছে ও পিছিয়ে গেছে ৩৫টির ভোট। ২২ মার্চ হচ্ছে ৭১৭টির ভোট, ২৩ মার্চ হবে ১১টির ও ২৭ মার্চ দুটির। বাকি ২২টির ভোট আইনি জটিলতায় তফসিল থেকে বাদ দিয়েছে ইসি।

নির্বাচনে ১৪টি রাজনৈতিক দল অংশ নিচ্ছে। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ৭৩০ জন, বিএনপির ৬১০ জন এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী এক হাজার ২৪৬ জন।

নির্বাচনী এলাকায় সাধারণ ছুটি
নির্বাচনের কারণে ৭১৭ ইউপিতে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। ফলে নির্বাচনী এলাকায় সব অফিস বন্ধ থাকবে।

যান চলাচল নিষিদ্ধ
গত শনিবার মধ্যরাত থেকে নির্বাচনী এলাকায় মোটরসাইকেল চলাচল নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এ ছাড়া ভোটের আগের রাত থেকে ৩২ ঘণ্টা সব ধরনের যান চলাচল নিষিদ্ধ করেছে ইসি। তবে রিটার্নিং কর্মকর্তার অনুমতি সাপেক্ষে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী/ তাদের নির্বাচনী এজেন্ট, দেশি-বিদেশি পর্যবেক্ষক ও অনুমোদিত সাংবাদিকদের ক্ষেত্রে তা শিথিল রয়েছে।

পর্যবেক্ষক ও সাংবাদিক
ইলেকট্রনিক মিডিয়া ৪৪৩, প্রিন্ট ৪৩৭, অনলাইন ১৪২, মোট ১০১৭ জন সাংবাদিক। ডেমোক্রেসি ওয়াচ ৫০, বাংলাদেশ মানবাধিক কমিশন ৬, বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থা ৬, ব্রতী ৫ ও জাতীয় নির্বাচন পর্যবেক্ষক পরিষদ-জানিনপ ৪টি। মোট ৭১টি। এদের বাইরে স্থানীয় পর্যায়ে ৫টি সংস্থার প্রায় ৫ হাজার পর্যবেক্ষক থাকবে।

ইসির ঘোষণা অনুযায়ী ২৩ মার্চ নাগরপুরে ১১টি এবং ২৭ মার্চ টেকনাফের দুটি ইউপিতে ভোট হবে। এ ছাড়া দ্বিতীয় ধাপে ৩১ মার্চ, তৃতীয় ধাপে ২৩ এপ্রিল, চতুর্থ ধাপে ৭ মে, পঞ্চম ধাপে ২৮ মে ও ষষ্ঠ ধাপে ৪ জুন ভোট হওয়ার কথা রয়েছে।

এফ/১০:০২/২২মার্চ

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে