Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৩-২২-২০১৬

গোপনে সরিয়ে নেয়া হচ্ছে ইয়েমেনী ইহুদিদের

গোপনে সরিয়ে নেয়া হচ্ছে ইয়েমেনী ইহুদিদের

সানা, ২২ মার্চ- যুদ্ধবিদ্ধস্ত ইয়েমেনে থেকে যাওয়া অবশিষ্ট ইহুদিদের গোপন মিশনের মাধ্যমে সরিয়ে নিচ্ছে ইসরায়েল। এদের ইসরায়েলের বিভিন্ন এলাকায় সরিয়ে নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে বিবিসি। তাদেরকে ফিরিয়ে নিতে সযোগিতা করছে ইসরায়েলের একটি ইহুদি সংস্থা।  

ইহুদি ওই সংস্থাটি জানিয়েছে, ইতিমধ্যে প্রায় ১৯ জন ইহুদি ইয়েমেন থেকে ইসরায়েলে এসেছে। এদের  মধ্যে রয়েছেন একজন ইহুদি পণ্ডিতও। তিনি ইয়েমেন থেকে প্রায় ৫০০ বছর পুরনো একটি তাওরাত বহন করে নিয়ে এসেছেন।

অলাভজনক ওই সংস্থাটি আরো জানায়, প্রায় ৫০ জন ইহুদি ইয়েমেনে থেকে যাওয়ার কথা ভাবছিল। ১৯৮৪ সাল থেকে আজ অবধি প্রায় ৫১ হাজার ইহুদি ইয়েমেন থেকে ইসরাইলে গিয়েছে। ধারণা করা হয়, এখন পর্যন্ত ইয়েমেনী ইহুদিরাই সবচেয়ে প্রাচীন ইহুদি সম্প্রদায়। ১৯৪৯ এবং ১৯৫০ সালের ‘অপারেশন ম্যাজিক কাপের্ট’র অংশ হিসেবেই তাদেরকে ধাপে ধাপে ইয়েমেন থেকে ইসরাইলে ফিরিয়ে নেয়া হচ্ছে।

ইয়েমেনের ইহুদিদের ইসরায়েলে ফিরিয়ে নেয়ার জন্য ১৯৪৯ সালে একটি গোপন অভিযান শুরু করে। একে ‘অপারেশন ম্যাজিক কাপের্ট’ হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়ে থাকে।   

সাম্প্রতিক সময়ে ইয়েমেনে ইহুদিদের ওপর আক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় প্রায় ২০০ ইহুদি ইসরাইলে যেতে বাধ্য হয়েছে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি। ইহুদিদের এই বড় অংশটি ইসরাইলে ফিরে যাওয়াকে নিজেদের সাফল্যের অংশ হিসেবেই মনে করছে তারা।

তারা এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, সম্প্রতি ১৯ জন ইহুদি ইসরাইলে এসেছে, যাদের ১৪ জন ইয়েমেনের রায়াদাহ এবং বাকী পাঁচজন এসেছে রাজধানী সানা থেকে। রায়াদাহ থেকে আসা প্রত্যেকেই ইহুদি ধর্মের পণ্ডিত। তাদের প্রত্যেকের কাছেই রয়েছে একটি করে তাওরাত, পাঁচ থেকে ছয়শ বছরের পুরনো।


পাঁচশ বছরের পুরনো তাওরাত

মূলত ২০০৮ সালে ইহুদি শিক্ষক মোশে ইয়াশ নাহিরিকে রায়াদাহতে হত্যা করার পর থেকেই ইসরাইলে ইয়েমেনী ইহুদীদের গমন বাড়তে থাকে। এছাড়া ওই বছরই এক ইহুদি তরুণীকে অপহরণ করে জোর করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণে বাধ্য করা এবং পরে তাকে জোর এক মুসলিমের সাথে বিয়ে দেয়ায় ইয়েমেনের প্রতি তাদের আগ্রহ কমতে থাকে।

সর্বশেষ ২০১২ সালে ইহুদি পণ্ডিত আহরান জিনদানিকে সানায় হত্যার পর ইয়েমেনে থাকার আগ্রহ তাদের আরো কমে যায়। তাছাড়া সানা এবং রায়াদাহ নিয়ন্ত্রণকারী হুতি বিদ্রোহীদের ‘আল্লাহ মহান, ইসরায়েল নিপাত যাক, আমেরিকা নিপাত যাক, জয় হোক ইসলামের’- এ ধরনের স্লোগান তাদের মনোবল ভেঙ্গে দেয়।

ইহুদি সংস্থাটি জানায়, এখনো ৫০ জন ইহুদি ইয়েমেনে বসবাস করছে। যাদের প্রায় ৪০ জন থাকে সানায় তারা সেখানে মার্কিন দূতাবাসের পাশে একটি কম্পাউন্ডে থাকে। তাদের ইয়েমেনী কর্তৃপক্ষ নিরাপত্তা দিয়ে আসছে। ইহুদি সংস্থাটির প্রধান নাতান শারঙ্কি বলেন, ‘ইয়েমেন থেকে ইহুদি অভিবাসীদের সবচেয়ে বড় দলটি ইসরাইলে ফিরে আসার মুহুর্তটি আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।’

১৯৪৯ সালে ইহুদিদের ফিরিয়ে নেয়ার দিন ‘ম্যাজিক ডে’ থেকে শুরু করে আজ অবধি ইহুদি সংস্থাটি চেষ্টা করছে ইয়েমেনের ইহুদিদেরকে ইসরায়েলে ফিরিয়ে নিতে। তাদের ঐতিহাসিক মিশনের পরিসমাপ্তির দিকে যাচ্ছে বলে জানান শারঙ্কি। একে ইসরাইলের জন্য আনন্দের এবং স্মরণীয় মুহুর্ত বলেও বর্ণনা করেন তিনি।

আর/১২:৪২/২২ মার্চ

মধ্যপ্রাচ্য

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে