Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৩-২০-২০১৬

ইইউ-তুরস্ক শরণার্থী চুক্তি কার্যকর

ইইউ-তুরস্ক শরণার্থী চুক্তি কার্যকর

এথেন্স, ২০ মার্চ- শরণার্থী সঙ্কট মোকাবেলায় ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) ও তুরস্কের মধ্যকার চুক্তি আনুষ্ঠানিকভাবে কার্যকর হয়েছে। চুক্তি অনুযায়ী, এখন থেকে গ্রিসে যাওয়া যেসব শরণার্থী আশ্রয়ের জন্য আবেদন করবেন না অথবা যাদের আশ্রয়ের আবেদন বাতিল হবে তাদের তুরস্কে ফেরত পাঠানো হবে। যদিও গ্রিস জানিয়েছে এখনই তাদের পক্ষে চুক্তি বাস্তবায়ন করা সম্ভব হচ্ছে না।

শুক্রবার ইইউ ও তুরস্কের এ চুক্তি অনুমোদন করেছেন ইইউভূক্ত ২৮টি দেশের নেতারা। তখন বলা হয়েছিল, রোববার থেকে চুক্তি কার্যকর হবে। ওদিকে, চুক্তির পর রোববারের আগেই গ্রিসে প্রবেশের জন্য গত দুই দিনে অধিক সংখ্যক শরণার্থী সমুদ্রে ভেসে পড়ে। ফলে ইউরোপে শরণার্থী প্রবেশের মূল ফটক বন্ধ করা চুক্তির লক্ষ্য হলেও ঠেকানো যায়নি শরণার্থীর স্রোত।

চুক্তিতে বলা হয়েছে, ইউরোপ থেকে তুরস্কে ফেরত পাঠানো প্রতি একজন সিরীয় শরণার্থীর বদলে আগে থেকেই তুরস্কে অবস্থান করা একজন সিরীয় শরণার্থীকে ইউরোপে পুনর্বাসন করা হবে। যদিও বিতর্কিত এই চুক্তিটির কার্যকারিতা নিয়ে এখনও অনেক প্রশ্ন রয়েছে। যেগুলোর মধ্যে অন্যতম হল, কিভাবে শরণার্থীদের তুরস্কে ফেরত পাঠানো হবে।

গ্রিস কর্তৃপক্ষকে এ বিষয়ে সাহায্য করতে প্রায় ২,৩০০ জনের একটি বিশেষজ্ঞ দল যাদের মধ্যে নিরাপত্তা কর্মকর্তা, অভিবাসন কর্মকর্তা ও অনুবাদকরা রয়েছেন, শিগগিরই গ্রিসে যাবেন বলে জানা গেছে। তবে এখনও বিশেষজ্ঞদের কেউ পৌঁছাননি বলে জানিয়েছেন গ্রিসের কর্মকর্তারা।

গ্রিস সরকারের অভিবাসন মুখপাত্র জর্গোস কিরিটসিস বলেন, “মাত্র ২৪ ঘণ্টায় এ ধরনের একটি পরিকল্পনা বাস্তবায়ন সম্ভব নয়।” এ চুক্তির আওতায় শরণার্থীদের ফিরিয়ে নেওয়ার বিনিময়ে তুরস্ককে অর্থ সাহায্য এবং রাজনৈতিক সুবিধা দেওয়ার কথাও বলা হয়েছে। আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠনগুলো চুক্তির তীব্র সমালোচনা করেছে।

অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের অভিযোগ, এই চুক্তির মাধ্যমে ইইউ ‘শরণার্থীদের দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে’। চুক্তির প্রতিবাদে শনিবার লন্ডন, এথেন্স, বার্সেলোনা, আম্সটারডাম, জেনেভাসহ বিশ্বের আরো বেশ কয়েকটি বড়বড় শহরে বিক্ষোভ হয়েছে।

এথেন্সে বিক্ষোভে অংশ নেওয়া বেশ কয়েকজন আফগান শরণার্থী ‘সীমান্ত খুলে দাও’ এবং ‘আমরা মানুষ, আমাদের অধিকার আছে’ বলে শ্লোগান দেয়। লন্ডনে প্রায় চার হাজার মানুষ বিক্ষোভে অংশ নেয়। তাদের হাতে ‘শরণার্থীরা এখানে স্বাগত’ এবং ‘রেসিজমের বিরুদ্ধে আওয়াজ তোল’ লেখা প্ল্যাকার্ড দেখা যায়।

এফ/২৩:২৭/২০মার্চ

ইউরোপ

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে