Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৩-২০-২০১৬

‘আপসের চেষ্টায়’ ক্রিকেটার শাহাদাত

‘আপসের চেষ্টায়’ ক্রিকেটার শাহাদাত
আদালতে শাহাদাত হোসেন

ঢাকা, ২০ মার্চ- ক্রিকেটার শাহাদাত হোসেন রাজিব ও তার স্ত্রী জেসমিন জাহান নিত্য শিশু গৃহকর্মী মাহফুজা আক্তার হ্যাপিকে নির্যাতনের ঘটনা আপস করার চেষ্টা করছেন বলে জানিয়েছেন মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী।

গত সেপ্টেম্বরের ওই ঘটনায় দায়ের মামলায় রোববার ঢাকার ৫ নম্বর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরুর দিনে তা পেছানোর আবেদন করেন শাহাদাতের আইনজীবী অ্যাডভোকেট কাজী নজিবউল্যাহ হিরু।

ট্রাইব্যুনালে রাষ্ট্রপক্ষের বিশেষ পিপি আলী আসগর স্বপন আদালতে সাক্ষী হাজির করেছিলেন। শুনানি শেষে বিচারক তানজিনা ইসমাইল আগামী ১০ এপ্রিল সাক্ষ্যগ্রহণ শুরুর নতুন দিন ধার্য করেন বলে জানিয়েছেন তিনি। মামলায় গত ২২ ফেব্রুয়ারি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৪(২)/খ ধারায় শাহাদাত ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে ২০ মার্চ সাক্ষ্যগ্রহণ শুরুর দিন রাখেন বিচারক।

রাষ্ট্রপক্ষের বিশেষ পিপি স্বপন বলেন, “সময় আবেদনে লিখিতভাবে আপসের কথা না বলা হলেও শুনানিতে শাহাদাতের আইনজীবী মামলাটি আপসের জন্য সাক্ষ্যগ্রহণ পেছানোর আবেদন করেন। এ সময় শাহাদাত ও তার স্ত্রী নিত্য ট্রাইব্যুনালে হাজির ছিলেন।” গত বছরের ৬ সেপ্টেম্বর গৃহকর্মী হারিয়ে গেছে জানিয়ে শাহাদাত থানায় সাধারণ ডায়েরি করার কয়েক ঘণ্টা পর ওই শিশুকে পাওয়া যায়।

পল্লবীর সাংবাদিক কলোনি থেকে ১১ বছর বয়সী ওই শিশুকে পেয়ে তাকে থানায় নিয়ে যান খন্দকার মোজাম্মেল হক নামের এক সাংবাদিক। পরে শিশুটিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে পাঠানো হয়। সাংবাদিকদের কাছে শাহাদাতের বাসায় নির্যাতিত হওয়ার বিবরণ দেয় শিশুটি।

সাংবাদিক মোজাম্মেল বাদী হয়ে এ ঘটনায় মামলা করলে ‘পালিয়ে যান’ জাতীয় দলের এই ক্রিকেটার ও তার স্ত্রী নিত্য। এর এক মাসের মাথায় ৪ অক্টোবর নিত্যকে তার বাবার বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরদিন শাহাদাতও আদালতে আত্মসমর্পণ করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মিরপুর মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) শফিকুর রহমান গত ২৯ ডিসেম্বর ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে শাহাদাত দম্পতির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেন। গত মাসে অভিযোগ গঠনের সময় নিজেদের নির্দোষ দাবি করেন পেসার শাহাদাত ও তার স্ত্রীর। অভিযোগ প্রমাণিত হলে সাত থেকে ১৪ বছরের কারাদণ্ড এবং ৫০ হাজার টাকা জরিমানা হতে পারে তাদের।

এফ/২৩:০৫/২০মার্চ

ক্রিকেট

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে