Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৩-১৮-২০১৬

ম্যাকক্লেনাগানের নৈপুণ্যে অস্ট্রেলিয়াকে হারাল নিউ জিল্যান্ড

ম্যাকক্লেনাগানের নৈপুণ্যে অস্ট্রেলিয়াকে হারাল নিউ জিল্যান্ড

নয়াদিল্লি, ১৮ মার্চ- টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে টানা দ্বিতীয় জয় পেয়েছে নিউ জিল্যান্ড। আগের ম্যাচে ভারতকে হারানো দলটির এবারের শিকার অস্ট্রেলিয়া। মিচেল ম্যাকক্লেনাগানের দারুণ বোলিংয়ে ৮ রানে হেরেছে স্টিভেন স্মিথের দল। শুক্রবার ধর্মশালার হিমাচল প্রদেশ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ৮ উইকেটে ১৪২ রান করে নিউ জিল্যান্ড। জবাবে ৯ উইকেটে ১৩৪ রানের বেশি করতে পারেনি অস্ট্রেলিয়া।

লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শেন ওয়াটসনের সঙ্গে ৪৪ রানের জুটিতে দলকে ভালো সূচনা এনে দেন উসমান খাওয়াজা। ছন্দে থাকা এই ব্যাটসম্যানের ঝড়ো ব্যাটিংয়ের সামনে সুবিধা করতে পারেনি কোরি অ্যান্ডারসন, অ্যাডাম মিল্নরা। নিজের দ্বিতীয় ওভারে ওয়াটসনকে ফিরিয়ে প্রথম আঘাত হানেন ম্যাকক্লেনাগান। তার স্লোয়ারে বিভ্রান্ত হয়ে মিড অফে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন অস্ট্রেলিয়ার অলরাউন্ডার।  

ভারতের বিপক্ষে জয়ের নায়ক মিচেল স্যান্টনার নিজের প্রথম দুই ওভারে কাঁপিয়ে দেন অস্ট্রেলিয়াকে। এই বাঁহাতি স্পিনারের প্রথম দুই ওভারে ফিরে যান স্টিভেন স্মিথ ও ডেভিড ওয়ার্নার।

অনেক ঝুলিয়ে দেওয়া বল এগিয়ে এসে খেলতে চেয়েছিলেন স্মিথ। কিন্তু বলে ব্যাটই ছুঁয়াতে পারেননি তিনি। স্টাম্পিংয়ের সুবর্ণ সুযোগ হাতছাড়া করেননি লুক রনকি। চার নম্বরে নামা ওয়ার্নার পুল করতে গিয়ে টাইমিংয়ে গড়বড় করে ডিপ মিডউইকেটে মার্টিন গাপটিলের হাতে ধরা পড়েন। এই দুই জনের মাঝখানে রান আউট হয়ে ফিরে যান খাওয়াজা। ২৭ বলে খেলা তার ৩৮ রানের ইনিংসটি সাজানো ছয়টি চারে।

প্রথম ৫ ওভারে কোনো উইকেট না হারিয়ে ৪২ রান সংগ্রহ করা অস্ট্রেলিয়া পরের পাঁচ ওভারে ২৪ রান তুলতেই হারায় ৩ উইকেট। একাদশ ওভারের শুরুতে ফিরে যান ওয়ার্নারও। ৬৬ রানে প্রথম চার ব্যাটসম্যানকে হারানো দলটি প্রতিরোধ গড়ে গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ও মিচেল মার্শের বলে।

১৫ ওভারে দলকে একশ’ রানে পৌছে দেন এই দুই জনে। শেষ ৫ ওভারে ৪৩ রান প্রয়োজন ছিল অস্ট্রেলিয়ার। হাতে ৬ উইকেট থাকায় দলটির লক্ষ্য ততটা কঠিন ছিল না। কিন্তু ইশ সোধির বলে ডিপ এক্সট্রা কাভারে কেন উইলিয়ামসনের হাতে ম্যাক্সওয়েল ক্যাচ দিয়ে ফিরে গেলে ম্যাচে ফিরে নিউ জিল্যান্ড।

এরপরও অস্ট্রেলিয়ার আশা বাঁচিয়ে রাখেন মার্শ। তার দৃঢ়তায় ১৮ ওভার শেষে অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ ছিল ৫ উইকেটে ১২১ রান। শেষ দুই ওভারে স্মিথের দলটির প্রয়োজন ছিল ২২ রান। নাটকীয়তার তখনও অনেক কিছু বাকি ছিল।  

সমীকরণ পাল্টে দিতে ১৯তম ওভারটিকে লক্ষ্য করেছিলেন অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটসম্যানরা। সেই ওভারেই ম্যাচ নিজেদের দিকে পুরোপুরি ঘুরিয়ে দেন ম্যাকক্লেনাগান। তার দুই স্লোয়ারে বিভ্রান্ত হয়ে মার্শ ও অ্যাশটন অ্যাগার ফিরে গেলে অস্ট্রেলিয়ার আশা প্রায় শেষ হয়ে যায়। জেমস ফকনার ছিলেন বলে শেষ ওভারে ১৯ রানও সম্ভব ছিল। কিন্তু প্রথম বলেই তাকে ফিরিয়ে জয়কে সময়ের ব্যাপারে পরিণত করেন কোরি অ্যান্ডারসন। 

১৭ রানে তিন উইকেট নিয়ে নিউ জিল্যান্ডের সেরা বোলার ম্যাকক্লেনাগান। এছাড়া দুটি করে উইকেট নেন অ্যান্ডারসন ও স্যান্টনার। 
এর আগে কেন উইলিয়ামসনের সঙ্গে ৬১ রানের উদ্বোধনী জুটিতে নিউ জিল্যান্ডকে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন মার্টিন গাপটিল।  নাথান কোল্টার-নাইলের করা প্রথম ওভারে দুই চার হাঁকিয়ে আক্রমণাত্মক ব্যাটিং শুরু করেন তিনি।

সবচেয়ে বেশি চড়াও হন অ্যাশটন অ্যাগারের ওপর। তৃতীয় ওভারটি করতে আসা এই বাঁহাতি স্পিনারের প্রথম দুই বলেই হাঁকান দুই ছক্কা। শেষ বলে আবার হাওয়ায় ভাসিয়ে সীমানার বাইরে পাঠান তিনি।গাপটিল ঝড়ে প্রথম সাত ওভারে ৬১ রান সংগ্রহ করে নিউ জিল্যান্ড। অষ্টম ওভারের প্রথম বলে নিউ জিল্যান্ডের এই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যানকে ফিরিয়ে অস্ট্রেলিয়া শিবিরে স্বস্তি আনেন ফকনার।

পরের ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় সেই ভালো শুরুর সুবিধা কাজে লাগাতে পারেনি নিউ জিল্যান্ড। গাপটিলের বিদায়ের পর দ্রুত তাকে অনুসরণ করেন উইলিয়ামসন ও অ্যান্ডারসন। তবে কলিন মানরো (২৬ বলে ২৩) ও গ্র্যান্ট এলিয়টের (২০ বলে ২৭) দুটি ছোট্ট কিন্তু কার্যকর ইনিংসে লড়াইয়ের পুঁজি পেয়ে যায় তারা।

অস্ট্রেলিয়ার ম্যাক্সওয়েল ও ফকনার দুটি করে উইকেট নেন। এক সময়ে মনে হয়েছিল ২০/৩০ রান কম করেছে নিউ জিল্যান্ড। তবে দেড়শর কম সংগ্রহ নিয়েও দারুণ লড়াইয়ে দলকে অসাধারণ এক জয় এনে দেন ম্যাকক্লেনাগান-স্যান্টনাররা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:
নিউ জিল্যান্ড: ২০ ওভারে ১৪২/৮ (গাপটিল ৩৯, উইলিয়ামসন ২৪, মানরো ২৩, অ্যান্ডারসন ৩, টেইলর ১১, এলিয়ট ২৭, রনকি ৬, স্যান্টনার ১, মিলনে ২*; ম্যাক্সওয়েল ২/১৮, ফকনার ২/১৮, ওয়াটসন ১/২২, মার্শ ১/২৬)

অস্ট্রেলিয়া: ২০ ওভারে ১৩৪/৯ (খাওয়াজা ৩৮, ওয়াটসন ১৩, স্মিথ ৬, ওয়ার্নার ৬, ম্যাক্সওয়েল ২২, মার্শ ২৪, অ্যাগার ৯, ফকনার ২, কোল্টার-নাইল ১, নেভিল ৭*, জামপা ২*; ম্যাকক্লেনাগান ৩/১৭, অ্যান্ডারসন ২/২৯, স্যান্টনার ২/৩০, সোধি ১/১৪ )

ফল: নিউ জিল্যান্ড ৮ রানে জয়ী

ম্যাচ সেরা: মিচেল ম্যাকক্লেনাগান (নিউ জিল্যান্ড)

এফ/২৩:১০/১৮মার্চ

ক্রিকেট

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে