Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 1.5/5 (2 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৩-১৬-২০১৬

মৃত্যুর ১৯ বছর পরে সন্ত হচ্ছেন মাদার

মৃত্যুর ১৯ বছর পরে সন্ত হচ্ছেন মাদার
সন্ত ঘোষণার তারিখ জানার পরে মঙ্গলবার মাদার হাউসে চলছে বিশেষ প্রার্থনা।

কলকাতা, ১৬ মার্চ- শুধু গরিব-দুঃখীর মা নন। এ বার থেকে তাঁকে সন্ত বলেই জানবে গোটা বিশ্ব। আগামী ৪ সেপ্টেম্বর মাদার টেরিজাকে সন্ত উপাধি দেবে রোমান ক্যাথলিক চার্চ। মঙ্গলবার এই কথা ঘোষণা করলেন খোদ পোপ ফ্রান্সিস। গত ডিসেম্বরে ভ্যাটিকানের তরফে জানানো হয়েছিল, সন্ত হওয়ার প্রয়োজনীয় শর্ত পূরণ করেছেন মাদার টেরিজা। খুব শিগগিরই তাঁকে সন্ত উপাধি দেওয়া হবে। তার মাস তিনেকের মধ্যেই ঘোষণা হল সেই অনুষ্ঠানের তারিখ।

ভ্যাটিকানের তরফে জানানো হয়েছে, অনুষ্ঠানটি হবে রোমে। কলকাতার আর্চবিশপ টমাস ডি’সুজার কথায়, ‘‘কলকাতায় এই অনুষ্ঠানটি হলে আমরা খুব খুশি হতাম। কিন্তু মাদার তো সারা পৃথিবীর মা। তাই রোমে যে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হচ্ছে, তার জন্য আমরা অত্যন্ত গর্বিত।’’ আর্চবিশপ ডি’সুজা ছাড়া সেই অনুষ্ঠানে কলকাতা থেকে যোগ দেবেন মিশনারিজ অব চ্যারিটির সিস্টার প্রেমা।

মাদারকে সন্ত উপাধি দেওয়া প্রসঙ্গে মিশনারিজ অব চ্যারিটির মুখপাত্র সুনীতা কুমার বলেন, ‘‘ভ্যাটিকান থেকে আমাদের বিষয়টি আনুষ্ঠানিক ভাবে জানানো হয়েছে। পোপ ফ্রান্সিস নিজে মাদারকে সন্ত উপাধি দিতে স্বীকৃত হয়েছেন। আমরা ভীষণ খুশি।’’ সেপ্টেম্বরের অনুষ্ঠান মিটে গেলে মাদার হাউস, মিশনারিজ অব চ্যারিটি এবং কলকাতার বিভিন্ন খ্রিস্টান প্রতিষ্ঠান মিলে ২ অক্টোবর নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে ‘থ্যাঙ্কসগিভিং’ অনুষ্ঠানের পরিকল্পনা করা হচ্ছে বলে সূত্রের খবর। এ দিন মাদারকে সন্ত উপাধি দেওয়ার কথা আনুষ্ঠানিক ভাবে ঘোষণার করার পরেই কলকাতায় মাদার হাউসে মাদারের সমাধিস্থলের পাশে আয়োজন করা হয় এক বিশেষ প্রার্থনা অনুষ্ঠানের। তাতে যোগ দিয়েছিলেন বহু অনুগামী।

১৯৭৯ সালে নোবেল শান্তি পুরস্কার পেয়েছিলেন মাদার টেরিজা। আর এত দিন সন্ত হিসেবে স্বীকৃতি পেতে চলেছেন তিনি। আর্চবিশপ টমাস ডি’সুজার কথায়, ভ্যাটিকানের তরফে এই স্বীকৃতি দেওয়াটা আনুষ্ঠানিক হলেও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। রোমান ক্যাথলিক চার্চের রীতি অনুসারে কাউকে ‘সন্ত’ ঘোষণা করার জন্য দু’টি ‘অলৌকিক’ ঘটনা ঘটা প্রয়োজন। রোমান ক্যাথলিক চার্চের দাবি অনুসারে, ১৯৯৮ সালে মণিকা বেসরা নামের পশ্চিমবঙ্গের এক বাঙালি আদিবাসী মহিলার পেটের টিউমার সেরে গিয়েছিল মাদার টেরিজার নামে প্রার্থনা করে। ২০০২ সালে এই ঘটনাকে প্রথম ‘অলৌকিক’ ঘটনা হিসেবে চিহ্নিত করে ভ্যাটিকান। পরের বছর, ২০০৩ সালে ঘটনাটিকে ‘অলৌকিক’ বলে স্বীকৃতি দিয়ে তৎকালীন পোপ দ্বিতীয় জন পল মাদারকে ‘ঈশ্বরের আশীর্বাদধন্য’ বলে ঘোষণা করেন ‘বিয়েটিফিকেশন’ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে। সন্ত হওয়ার সেটি ছিল প্রথম ধাপ।

এর পরের ‘অলৌকিক’ ঘটনাটি ২০০৮ সালের। ভ্যাটিকানের দাবি, ওই বছর ব্রাজিলে মাদার টেরিজার নামে প্রার্থনা করে সুস্থ হয়ে ওঠেন ব্রাজিলের এক যুবক। মস্তিষ্কে একাধিক টিউমার ছিল ওই যুবকের। গত বছর ১৮ ডিসেম্বর পোপ মৃতপ্রায় ওই ব্রাজিলীয় যুবকের সেরে ওঠার ঘটনাকে দ্বিতীয় ‘অলৌকিক’ ঘটনা হিসেবে স্বীকার করে নেন। রোমান ক্যাথলিক চার্চ দু’টি ‘অলৌকিক’ ঘটনা স্বীকার করে নেওয়ায় তখনই মাদার টেরিজার সন্ত উপাধি পাওয়া নিশ্চিত হয়ে যায়। অপেক্ষা ছিল শুধু ভ্যাটিকানের তরফে তারিখ ঘোষণার।

অবশেষে সেই ঘোষণা হল। আগামী ৫ সেপ্টেম্বর মাদারের মৃত্যুর ১৯ বছর পূর্ণ হবে। তার আগের দিনই এ শহরের ‘মা’কে সন্ত উপাধি দেবে ভ্যাটিকান। স্বীকৃতি দেবে সারা বিশ্ব।

এফ/০৭:৫২/১৬মার্চ

পশ্চিমবঙ্গ

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে