Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৩-১৫-২০১৬

‘দানবাক্স’ অপসারণে শাহজালালে অভিযান 

‘দানবাক্স’ অপসারণে শাহজালালে অভিযান 

ঢাকা, ১৫ মার্চ- ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে মসজিদ, মাদ্রাসা, মাজারসহ বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের নামে ঝোলানো অর্ধশতাধিক ‘দানবাক্স’ অপসারণ করা হয়েছে। বিমানবন্দরের নিরাপত্তা নিয়ে আলোচনার মধ্যে সোমবার বিকাল ৪টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত এই অভিযান চালান শাহজালালের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইউসুফ। বিমানবন্দরে দায়িত্বরত ম্যাজিস্ট্রেটদের ফেইসবুক পাতায় অভিযানের ছবিসহ একটি পোস্টও দেওয়া হয়েছে।

একটি ছবিতে দেখা গেছে, একজন নিরাপত্তাকর্মী দর্শনার্থীদের জন্য নির্ধারিত স্থানে লোহার নিরাপত্তাবেষ্টনিতে ঝোলানো দানবাক্স খুলে ফেলছেন। নিরাপত্তাহীনতার কারণ দেখিয়ে গত ৮ মার্চ ঢাকা থেকে সরাসরি কার্গো ফ্লাইট চলাচল বন্ধ করে দেয় যুক্তরাজ্য।

এর আগে অস্ট্রেলিয়াও বাংলাদেশ থেকে সরাসরি কার্গো ফ্লাইট নিষিদ্ধ করেছিল। যুক্তরাজ্য ঢাকা থেকে কার্গো ফ্লাইট নিষিদ্ধের পর শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের নিরাপত্তা উন্নয়নে ওই দেশের একটি কোম্পানিকেই নিয়োগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এর মধ্যেই ‘দানবাক্সের’ বিরুদ্ধে অভিযানে নামেন ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইউসুফ।

অভিযানে অংশ নেওয়া এক কর্মকর্তা জানান, অভিযানের বিষয়ে সোমবার সকালে বিমানবন্দরের প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা (সিএসও) ইফতেখার জাহান ভূঁইয়াকে চিঠি দেন নির্বাহী মেজিস্ট্রেট মো. ইউসুফ। তারপরও ‘নানা কারনে’ অভিযান শুরু হতে বিকাল হয়ে যায়।

বিমানবন্দর আর্মড পুলিশের সিনিয়র এএসপি আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, “নির্বাহী মেজিস্ট্রেট মো. ইউসুফের নির্দেশে বিমানবন্দরের দায়িত্বপ্রাপ্ত বিভিন্ন বাহিনীর সদস্যরা অবৈধ দানবাক্স উচ্ছেদে অংশ নেন।”  অভিযানের বিষয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো.ইউসুফ বলেন, “যুক্তরাজ্য, অস্ট্রেলিয়াসহ কয়েকটি দেশ ইতিমধ্যে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছে।

“যেখানে বিদেশ থেকে আসা লোকজনকে রিসিভ করার জন্য দর্শনার্থীরা অপেক্ষায় থাকেন, সেখানে অল্প দূরত্বের মধ্যে ৫২টি দানবাক্স ছিল। ওই বাক্সগুলো থেকে টাকা সরিয়ে কোনো বিস্ফোরক রেখে দিলে যদি সবগুলো একসঙ্গে বিস্ফোরণ ঘটে তাহলে বিরাট ক্ষতি হওয়ার ঝুঁকি থাকতে পারত।”

নিরাপত্তার দিকটি চিন্তা করেই দানবাক্সগুলো সরিয়ে নেওয়া হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, “বাক্সগুলো থেকে প্রায় সাড়ে সাত হাজার টাকা পাওয়া গেছে।” আপাতত টাকাগুলো দান করে দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানান তিনি। এরপরও বিমানবন্দরে নিরাপত্তায় নিয়োজিত বিভিন্ন বাহিনীর সদস্যদের নিজ সীমানায় কোনো দানবাক্স থাকলে তার দায় তাদেরকে নিতে হবে বলে জানান মো. ইউসুফ।

“বিমানবন্দরের নিরাপত্তার স্বার্থে ওই এলাকায় কোনো ধরনের দানবাক্স যেন না থাকে, সেটি নিশ্চিত করতে চাই। বিমানবন্দরের নিরাপত্তার দায়িত্বে যারা রয়েছেন তাদের জানিয়ে দেওয়া হবে, যার যার জুরিসডিকশনের মধ্যে ওইসব দানবাক্স থাকবে সেখানে দায়িত্বপ্রাপ্তরা তার দায় নেবেন।”

এফ/২২:৪২/১৫মার্চ

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে