Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৩-১৪-২০১৬

ওমানকে উড়িয়ে ‘আসল’ বিশ্বকাপে মাশরাফিরা

ওমানকে উড়িয়ে ‘আসল’ বিশ্বকাপে মাশরাফিরা

ধর্মশালা, ১৪ মার্চ- বৃষ্টি আবারও বাগড়া দিলেও জয় বঞ্চিত করতে পারেনি বাংলাদেশকে। তামিম ইকবালের দুর্দান্ত শতকে ওমানকে ডাকওয়ার্থ-লুইস পদ্ধতিতে ৫৪ রানে হারিয়েছে মাশরাফি বিন মুর্তজার দল।

ওমানের বিপক্ষে প্রথম আঘাত তাসকিন আহমেদের। তার বলে মাহমুদউল্লাহকে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন জিশান মাকসুদ (২ বলে শূন্য রান)। চতুর্থ ওভারে আঘাত হানেন আল আমিন হোসেন। তার বলে মাশরাফি বিন মুর্তজাকে সহজ ক্যাচ দিয়ে ফিরেন আরেক উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান খাওয়ার আলি (১৪ বলে ৮ রান)।  

ওমানের ইনিংসের সাত ওভার শেষে বৃষ্টি নামে ধর্মশালায়। বৃষ্টিতে চার ওভার কমেছে ম্যাচের দৈর্ঘ্য। সুপার টেনে যেতে হলে তখন ১৬ ওভারে ১৫২ রান করতে হতো ওমানকে।

বৃষ্টি শেষে খেলা শুরুর পরপরই আঘাত হানে বাংলাদেশ। সৌম্য সরকারের সরাসরি থ্রোয়ে রান আউট হন আদনান ইলিয়াস।

ওমানের ওপর চাপ আরও বাড়িয়ে আমির কালিমকে শূন্য রানে ফেরান সাকিব আল হাসান। তার বলে সহজ ক্যাচ গ্লাভসবন্দি করেন মুশফিকুর রহিম। এরপর বৃষ্টির বাধায় আবার খেলা বন্ধ হয়ে যায়।

ওমানের ইনিংসের নবম ওভারে আবার বৃষ্টি নামে ধর্মশালায়।

বৃষ্টির বাধায় ১২ ওভারে নেমে আসা ইনিংসে ওমানের লক্ষ্য ১২০ রান। নিজের অসমাপ্ত ওভারে আবার আঘাত হানেন সাকিব আল হাসান। তার বলে স্টাম্পড হন আমির আলি (৩ বলে ৪ রান)।

সাকিবের জোড়া আঘাতের পর উইকেট শিকারে যোগ দেন অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। তার বলে থার্ডম্যানে মোহাম্মদ মিঠুনকে ক্যাচ দেন জাতিন্দর সিং (২০ বলে ২৫ রান)।

সাকিব আল হাসানের তৃতীয় শিকার মেহরান খান। লংঅনে সাব্বির রহমানকে সহজ ক্যাচ দেন তিনি।

এর আগে তামিম ইকবালের দুর্দান্ত শতকে ২ উইকেট হারিয়ে ১৮০ রান তোলে বাংলাদেশ।

অফ ড্রাইভে বল বাউন্ডারির দিকে যেতেই ছুটতে ছুটতেই হেলমেট-ব্যাট উইকেটে রাখেন তামিম। উল্টো ফিরে ছুটলেন ড্রেসিং রুমের দিকে, শূন্যে লাফ; যেন ছুঁতে চাইলেন আকাশ! এই শটে আকাশই ছুঁয়েছেন তামিম। স্পর্শ করেছেন নতুন দিগন্ত। অবসান হয়েছে বাংলাদেশের অপেক্ষার। তামিমের প্রথম টি-টোয়েন্টি শতক, টি-টোয়েন্টিতে দেশের প্রথমও।

সেঞ্চুরির আগেও আরেকটি মাইলফলক ছুঁয়েছেন তামিম। বাংলাদেশের প্রথম হিসেবে স্পর্শ করেছেন ১ হাজার টি-টোয়েন্টি রান।

এর আগেও দু দফায় পুরো ২০ ওভার ব্যাটিং করেছিলেন তামিম। কোনোবারই ছাড়াতে পারেননি আশির গণ্ডি। এবার নিজেকে ছাড়ালেন, ছাড়িয়ে গেলেন দেশের সবাইকেও।

বাংলাদেশের শুরুটা যদিও ছিল বলা যায় বিভ্রান্তিকর। ৪২ রানের উদ্বোধনী জুটি টি-টোয়েন্টিতে বেশ ভালো সূচনা। কিন্তু লেগে যায় প্রায় ৭ ওভার!

এক পাশে বাঁহাতি পেসার বিলাল খান ও আরেক পাশে অফ স্পিনার আমির আলিকে দিয়ে বোলিং শুরু করে ওমান। নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে এই দুজন ডানা মেলতে দেননি বাংলাদেশের দুই ওপেনারকে।

তামিম অবশ্য খেলছেন স্বচ্ছন্দেই। তবে ধুঁকেছেন সৌম্য। ফর্মে নেই তিনি বেশ কিছুদিনই হলো। তবে এদিন একদমই ছিলেন নিজের ছায়া। মনে হচ্ছিল, ব্যাটিংয়ের চেয়ে দু:সাধ্য কিছু আর নেই! তামিম বলের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে রান করে গেলেও সৌম্য খেলেছেন প্রায় দ্বিগুণ বল। পাওয়ার প্লের ৬ ওভারে রান আসে মাত্র ২৯!

বাঁহাতি স্পিনার অজয় লালচেতাকে টানা দুবলে দারুণ দুটি চার ও ছক্কায় শেকল ভাঙার চেষ্টা করেন তামিম। তবে ওই ওভারেই দু:স্বপ্ন থেকে মুক্তি পান সৌম্য, ডাউন দা উইকেট বাজে এক শটে বোল্ড (২২ বলে ১২)।

সাব্বিরকে সঙ্গী পাওয়ার পর দলের ইনিংসটাকে দারুণ গতিময় করেন তামিম। ফর্মে থাকা দুই ব্যাটসম্যান দারুণ সব শটের প্রদর্শনীতে দুজন মুহূর্তেই বদলে দেন ম্যাচের চিত্র।

বাঁহাতি স্পিনার আমির কালিমকে চার মেরে তামিম স্পর্শ করেন পঞ্চাশ, ৩৫ বলে। পরের বলেই ডাউন দা উইকেটে ছক্কায় উদযাপন করেন অর্ধশতক। লেগ স্পিনার খাওয়ার আলিকে ৯৬ মিটার ছক্কায় গ্যালারিতে আছড়ে ফেলেন সাব্বির। তামিম যেন পাল্লা দিতে চাইলেন একই বোলারকে ৯৪ মিটারের ছক্কায়।

৫৫ বলে ৯৭ রানের জুটি ভাঙে নিরীহ এক ডেলিভারিতে। খাওয়ারকে সুইপ করতে গিয়ে পায়ের পেছন দিয়ে বোল্ড হন সাব্বির (২৬ বলে ৪৪)।

তামিম তাতে দমে যাননি। ওমানের ‘মালিঙ্গা’ মুনিস আনসারিকে ছক্কায় পা রাখেন নব্বইয়ে। শতকের আগে অবশ্য একটু থমকে গিয়েছিলেন। ৯৭ রানে ডট বল খেলেছিলেন ৩টি। এরপরই ওই অফ ড্রাইভে চার মেরে মুক্তির আনন্দ!

শেষ পর্যন্ত ৬৩ বলে ১০৩ রানে অপরাজিত তামিম। ১০টি চারের পাশে ছক্কা ৫টি। যেটিতেও স্পর্শ করেছেন বাংলাদেশের রেকর্ড। এর আগে ইনিংসে ৫টি ছক্কা মেরেছিলেন নাজিমউদ্দিন ও জিয়াউর রহমান।

শেষ দিকে ৯ বলে ১৭ রানে ফর্মে ফেরার ইঙ্গিত দিলেন সাকিব।

আর/১২:২২/১৪ মার্চ

ক্রিকেট

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে