Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.0/5 (29 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৩-১১-২০১৬

ফেনীতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে নবজাতক চুরির অভিযোগ

ফেনীতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে নবজাতক চুরির অভিযোগ

ফেনী, ১১ মার্চ- ফেনী সদরে একটি বেসরকারি হাসপাতালে এক গৃহবধূর ‘জমজ সন্তান হলেও’ একজনকে সরিয়ে ফেলার অভিযোগ উঠেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে।

বৃহস্পতিবার রাতে ‘মেরি স্টোপস’ ক্লিনিকে ফেনী শহরের বিজয় সিংহ এলাকার জহিরুল ইসলাম জুয়েলের স্ত্রী তাসলিমার জমজ সন্তান হয় বলে দাবি পরিবারটির।  

তাসলিমার মা রেশমা আক্তারের অভিযোগ, গর্ভবতী অবস্থায় দুইবার আল্ট্রাসনোগ্রাম করানো হলে রিপোর্টে তাসিলিমার গর্ভে একটি ছেলে ও একটি মেয়ে শিশুর কথা জানানো হয়।

“বৃহস্পতিবার দুপুরে প্রসব যন্ত্রণা শুরু হলে তাসলিমাকে মেরি স্টোপস ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়।”

রেশমা আক্তার বলেন, ওই সময় আবার আল্ট্রাসনোগ্রাম করানো হলে হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. তামান্না মাহবুবও গৃহবধূ তাসলিমার গর্ভে ‘টুইন বেবি’ রয়েছে বলে জানান।

“কিন্তু রাতে সিজার অপারেশনের পর ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ জানায় তাসলিমার একটি ছেলে হয়েছে।

“এসময় আমরা জমজ সন্তানের বিষয়ে জানতে চাইলে ‘আল্টাসনোগ্রাম’ রির্পোট ভুল ছিল বলে হাসপাতাল থেকে জানানো হয়।”

তাসলিমার শাশুড়ি ফেরদৌস আক্তার বলেন, “অপারেশন থিয়েটারের পাশে ভবনের একটি সিঁড়ি রয়েছে। আমাদের ধারণা অপারেশনের পর হাসপাতালের লোকজন ওই সিঁড়ি দিয়ে আরেকটি শিশুটিকে অন্য কোথাও সরিয়ে ফেলেছে।”

অভিযোগ অস্বীকার করে মেরি স্টোপস ক্লিনিকের ম্যানেজার শ্যামল দাস বলেন, “তাসলিমার শুধু একটি ছেলে হয়েছে। আল্ট্রাসনোগ্রাম রিপোর্টে ডা. তামান্না মাহবুব ভুল করে একটি শিশুর জায়গায় দুটি শিশুর কথা উল্লেখ করেছিলেন।”

এ বিষয়ে ডা. তামান্না মাহবুবের সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

এদিকে শিশু চুরির অভিযোগে মেরি স্টোপস ক্লিনিকের চিকিৎসক ও কর্মচারীর বিরুদ্ধে মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানান তাসলিমার স্বামী জহিরুল ইসলাম জুয়েল।

তাসলিমার স্বজনদের বরাত দিয়ে ফেনী মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. শাহীনুজ্জামান জানান, ভুমিষ্ঠ হওয়ার আগে ওই নারীর গর্ভে দুটি সন্তান রয়েছে বলে মেডিকেল পরীক্ষায় জানানো হলেও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তা ‘ভুল’ বলে দাবি করছে।

“হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাসলিমার স্বজনদের কাছে নবজাতক ছেলেকে বুঝিয়ে দিলেও আরেকটির কোনো সন্ধান নেই।”

শাহীনুজ্জামান জানান, র‌্যাব-৭ ফেনী ক্যাম্পের একটি দল ও পুলিশ শুক্রবার মধ্যরাত পর্যন্ত হসপাতালটির আশপাশে তল্লাশি চালায়।

শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত কোনো লিখিত অভিযোগ না পাওয়ায় পুলিশ কাউকে আটক করতে পারেনি বলে জানান তিনি।

এস/১৯:০৫/১০ মার্চ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে