Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৩-১১-২০১৬

অস্ট্রেলিয়ায় ব্যাংকিং অ্যাপে হ্যাকারদের হানা, লাখো গ্রাহক ঝুঁকিতে

অস্ট্রেলিয়ায় ব্যাংকিং অ্যাপে হ্যাকারদের হানা, লাখো গ্রাহক ঝুঁকিতে

ক্যানবেরা, ১১ মার্চ- অস্ট্রেলিয়ার বৃহত্তম বেশ কয়েকটি ব্যাংক অত্যন্ত শক্তিশালী হ্যাকিং আক্রমণের টার্গেটে পরিণত হয়েছে। দেশটির দৈনিক সিডনি মর্নিং হেরাল্ড জানিয়েছে, ব্যাংকের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপসের মাধ্যমে হ্যাকাররা গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র চুরি করার চেষ্টা করছে। এসএমএসের মাধ্যমে দুই ধাপের ভেরিফিকেশন কোড চুরি করে কয়েক লাখ ব্যবহারকারীর গুরুত্বপূর্ণ নথি চুরি করেছে তারা।

এটি একটি ম্যালওয়ার যা অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড এবং তুরস্কের অন্তত ২০টি ব্যাংকের অ্যাপস জালিয়াতি করতে পারে এবং একইসঙ্গে পেপল, ইবে, স্কাইপে, হোয়াটসঅ্যাপ এবং গুগলের বেশ কয়েকটি সেবার লগইন স্ক্রিন হুবহু নকল করতে পারে।

পত্রিকাটি জানিয়েছে, কমনওয়েলথ ব্যাংক, ওয়েস্টপ্যাক, ন্যাশনাল অস্ট্রেলিয়া ব্যাংক এবং এএনজি ব্যাংক এই ম্যালওয়ারে আক্রান্ত হয়েছে। ফলে লাখ লাখ গ্রাহক চরম ঝুঁকির মধ্যে আছেন। এই ম্যালওয়ার একটি ভুয়া লগইন স্ক্রিন তৈরি করতে পারে যেখানে ব্যবহারকারীরা ইউজারনেম এবং পাসওয়ার্ড টাইপ করেন। আর সেইসব তথ্য ব্যবহারকারীর অগোচরে এসএমএসের মাধ্যমে পৌঁছে যায় হ্যাকারের কাছে।

অস্ট্রেলিয়ার চারটি বড় ব্যাংক বাদেও দেশটির বাইরে আরো কিছু আন্তর্জাতিক অর্থনৈতিক সংস্থা এই আক্রমণের লক্ষ্য। এর মধ্যে রয়েছে : বেনডিগো ব্যাংক, সেন্ট জর্জ ব্যাংক, ব্যাংকওয়েস্ট, এমই ব্যাংক, এএসবি ব্যাংক, ব্যাংক অব নিউজির‌্যান্ড, কিউইব্যাংক, ওয়েলস ব্যাংক, হকব্যাংক, ইয়াপি ক্রেডি ব্যাংক, ভাকি ব্যাংক, গারান্টি ব্যাংক, একে ব্যাংক, ফিনান্সব্যাংক, ব্যাংক অব টার্কি এবং জিরাত ব্যাংক।

ওই ম্যালওয়ারের মাধ্যমে ব্যবহারকারীর লগইন তথ্য চুরির পাশাপাশি যে দুই ধাপের ভেরিফিকেশন কোড আছে সেটার জন্যও ফেক স্ক্রিন তৈরি করে দেয়। ফলে সেই কোড দুটোও চলে যায় হ্যাকারের কাছে।এই তথ্যগুলো পেলে হ্যাকাররা ব্যাংকের নিরাপত্তা ব্যবস্থা এড়িয়ে অ্যাকাউন্ট থেকে সারা বিশ্বে যেকোনো অ্যাকাউন্টে ব্যালেন্স স্থানান্তর করতে পারে।

এই ম্যালওয়ার ধরা পড়েছে ESET সিকুরিটি সিস্টেমে। Android/Spy.Agent.SI নামে ম্যালওয়ারটি অ্যাডোব ফ্ল্যাশ প্লেয়ার অ্যাপ নকল করে। এখনো পর্যন্ত বহু ওয়েবসাইট এই অ্যাপটি ব্যবহার করে বলে এটিকেই বেছে নিয়েছে হ্যাকাররা। এই ফ্ল্যাশ প্লেয়ার অ্যাপটি যে গুগল প্লেস্টোর থেকে আসছে না, বরং অন্য কোনো ভাইরাস আক্রান্ত ওয়েবসাইট থেকে আসছে সে ব্যাপারটি নিশ্চিত করেছে ‍গুগল কর্তৃপক্ষ।

অ্যান্ড্রয়েড ফোনে আননোন সোর্স থেকে অ্যাপ ইনস্টলের অপশনটি অ্যাকটিভ থাকলেই কেবন এই ম্যালওয়ারে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা থাকে। গুগলের একজন মুখপাত্র ওই ধরনের কোনো ওয়েবসাইট থেকে অ্যাপ ডাউনলোডের বিষয়ে সতর্ক করে দিয়েছেন।

এফ/১৬:২৯/১১মার্চ

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে