Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৩-০৬-২০১৬

বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ১২০

বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ১২০

ঢাকা, ০৬ মার্চ- বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে টস বড় ফ্যাক্টর। সেই সুবিধাটা নিয়েছে ভারত। এশিয়া কাপের ফাইনালে রোববার টসে জিতে ভেজা উইকেটে আগে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ভারত অধিনায়ক ধোনি। বাংলাদেশের হয়ে উদ্বোধনী জুটিতে ব্যাট করতে নামেন হার্ড হিটার তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকার। শেষ অবধি বাংলাদেশের সংগ্রহ নির্ধারিত ১৫ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১২০ রান। এশিয়া কাপের প্রথম ম্যাচে এই ভারতের বিরুদ্ধে ৪৫ রানের হারের ম্যাচে বাংলাদেশ করেছিল ১২১ রান। সেই তুলনায় আজকের স্কোর অনেকটাই সন্তোষজক।

টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই ভারতীয় বোলারদের উপর চড়াও হয়ে খেলতে থাকেন সৌম্য সরকার। যদিও তামিম ছিলেন একটু ধীর লয়ে। চতুর্থ ওভারে আশিষ নেহরার বলে পরপর দুই চার হাঁকিয়ে গ্যালারীতে উন্মাদনা বয়ে আনেন সৌম্য। তবে ৩.৬ ওভারে আশিষ নেহরাকে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে মিডঅফে পান্ডের হাতে ক্যাচ তুলে দেন সৌম্য। নয় বলে ১৪ রান করে সাজঘরে ফেরেন পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ৪৭ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলে ম্যাচ সেরার পুরস্কার পাওয়া সৌম্য। দলীয় রান তখন ২৭।

এরপর বেশীক্ষণ টিকতে পারেননি অবশ্য তামিমও। দলীয় স্কোর শিটে তিন রান যোগ হতেই বিদায় তামিমের। ৪.৪ ওভারে বুমরাহর বলে হন এলবির শিকার। সাজঘরে ফেরার আগে তামিম করে যান ১৭ বলে ১৩ রান, চার ছিল দুটি। অনেকটাই টেস্ট মেজাজের ব্যাটিং। তবে ভারতের বিরুদ্ধে দারুণ রেকর্ড ছিল তামিমের। কিন্তু আসল ম্যাচেই জ্বলে উঠতে পারলেন না গেল পিএসএলে ফর্মে থাকা বাংলাদেশের এই হার্ড হিটার ব্যাটসম্যান।

রান খরায় ধুঁকতে থাকা সাকিব এদিন ভালো করার আভাস দিয়েছিলেন। ক্রিজে এসে তিনটি চার হাঁকান তিনি। কিন্তু তারপরও ইনিংসটা লম্বা করতে পারেননি বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার। ৯.১ ওভারে স্পিনার অশ্বিনের বলে মিডঅনে বুমরার হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন সাকিব। তার আগে করে যান তিন চারে ১৬ বলে ২১ রান।

দ্রুত রান তোলার আবেদন মেটাতে গিয়ে এরপর রান আউটের শিকার হন মুশফিকুর রহীম। তবে তার ভাগ্য খারাপ। পপিং ক্রিজে ব্যাট গেলেও তা ছিল শূন্যে। ফলে ধোনির স্ট্যাম্প ভাঙ্গা বৃথা যায়নি। ৫ বলে ৪ রান করে সাজঘরে ফেরেন মুশফিক। ১১.৩ ওভারে বাংলাদেশের স্কোর তখন ৭৫ রান। ব্যাট করতে নামে ক্যাপ্টেন মাশরাফি। প্রথম বলেই ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে জাদেজার বলে ডিপ মিড উইকেটে কোহলির হাতে ক্যাচ দেন নড়াইল এক্সপ্রেস। ১ বলে শূন্য রান।

মাশরাফির বিদায়ের সময় বাংলাদেশের রান ছিল ৫ উইকেটে ৭৫ রান। বল বাকি ছিল ২২টি। মাহমুদুউল্লার ব্যাটিং ঝড়ে শেষ ২২ বলে বাংলাদেশ রান করেছে ৪৫টি। শেষ অবধি মাহমুদুল্লাহ ও সাব্বির ছিলেন অপরাজিত। ১৪তম ওভারে হার্দিক পান্ডের করা বলে একাই ১৯ রান নেন রিয়াদ। এর মধ্যে ছিল দুই ছক্কা ও এক চার। সব মিলিয়ে মাত্র ১৩ বলে ৩৩ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে মাঠ ছাড়েন গ্রেট ফিনিশার রিয়াদ।

অন্যদিকে সাব্বির ছিলেন অনেকটিই শান্ত মেজাজে। ২৯ বলে ৩২ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়েন তিনি। ভারতের হয়ে একটি করে উইকেট নেন নেহরা, অশ্বিন, জাদেজা ও বুমরাহ।

ফাইনাল ম্যাচে চার পেসার নিয়ে খেলছে বাংলাদেশ। মুস্তাফিজ না থাকায় ফাইনালে সুযোগ পেয়েছেন গেল বিপিএলে বল হাতে ঝড় তোলা আবু হায়দার রনি। এছাড়া আছেন মাশরাফি, আল আমিন ও তাসকিন আহমেদ। এশিয়া কাপের উদ্বোধনী ম্যাচে ভারতের বিরুদ্ধে চার পেসার নিয়ে খেলেছিল বাংলাদেশ।

ভারত দলে রয়েছে তিন পরিবর্তন। ভুবনেশ্বর, হরভজন ও নেগির পরিবর্তে দলে ঢুকেছেন জাদেজা, নেহরা ও অশ্বিন।

প্রায় ঘন্টা দেড়েকের বৃষ্টির কারণে ওভার কমিয়ে আনা হয়েছে। ফাইনাল ম্যাচ হবে ১৫ ওভারের। ২০ ওভারের ম্যাচে একজন বোলার সর্বোচ্চ চার ওভার বল করতে পারত। তবে কার্টেল ওভারের আজকের ম্যাচে একজন বোলার সর্বোচ্চ করতে পারবে তিন ওভার।

ক্রিকেট

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে